সোমবার, ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

তেলদূষণ: ১০০ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা, তদন্ত কমিটি

54044_r-4ডেস্ক রির্পোট :সুন্দরবনের শেলা নদীতে ট্যাংকারডুবে সাড়ে তিন লাখ লিটার জ্বালানি তেল ছড়িয়ে পড়েছে। এর ফলে সুন্দরবনের সংরক্ষিত বনাঞ্চল এবং জলজ প্রাণী ও মাছের ব্যাপক ক্ষতি হতে পারে বলে আশংকা করছেন পরিবেশ কর্মীরা। আর তেল ছড়িয়ে পড়ার ঘটনায় দুই জাহাজ মালিকের বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা করেছে বনবিভাগ। এছাড়া দুর্ঘটনার কারণ খতিয়ে একটি তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। যার প্রধান করা হয়েছে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক বেলায়েত হোসেনকে। কমিটি দুর্ঘটনার কারণ নির্ণয়, ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয়, দুর্ঘটনার জন্য দায়ীদের শনাক্ত করা এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের দুর্ঘটনা কীভাবে রোধ করা যায় তার সুপারিশ দেবে। ১৫ কর্ম দিবসের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। ওদিকে, বুধবার সকাল পর্যন্ত খোঁজ মেলেনি জাহাজটির মাস্টার মোখলেসুর রহমানের। এদিকে ডুবে যাওয়া ওটি সাউদার্ন স্টার-৭ নামের ট্যাংকারটি উদ্ধারে বেসরকারি তিনটি জাহাজ নিয়ে কাজ শুরু করেছে এর মালিক প্রতিষ্ঠান মেসার্স হারুণ অ্যান্ড কোং। আপাতত দুটি জাহাজ দুই দিক থেকে সাউদার্ন স্টার-৭ কে আটকে রেখেছে, যাতে সেটি পুরোপুরি তলিয়ে না যায়। এছাড়া নৌবাহিনীর দুটি এবং বিআইডব্লিউটিএর দুটি উদ্ধারকারী জাহাজ ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। ওটি সাউদার্ন স্টার-৭ নামের ট্যাংকারটি গোপালগঞ্জের একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য খুলনার পদ্মা অয়েল ডিপো থেকে ৩ লাখ ৫৭ হাজার ৬৬৪ লিটার ফার্নেস অয়েল নিয়ে যাচ্ছিল। মঙ্গলবার ভোর ৫টার দিকে ‘টোটাল’ নামে একটি কার্গো জাহাজের ধাক্কায় সাউদার্ন স্টারের একপাশের খোল ফেটে যায় এবং সেটি ডুবতে শুরু করে। ট্যাংকারটির প্রায় সব ফার্নেস অয়েল বেরিয়ে মঙ্গলবারই সুন্দরবনের শেলা নদীর অন্তত ২০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে বলে বন কর্মকর্তারা জানান।