শুক্রবার, ১২ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ২৯শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

৮ ডিসেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়া মুক্ত দিবস

obokashপ্রতিনিধি : ৮ ডিসেম্বর সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া মুক্ত দিবস ১৯৭১ সালের এই দিনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর যখন পাকহানাদার দখল থেকে মুক্ত হয় তখন চারদিকে ছিল ধ্বংশের স্তুপ। স্কুল-কলেজ আবাসিক এলাকা হয়েছিল ধ্বংসের স্বীকার। এদিকে সকালে তৎকালীন এমএনএ ও আওয়ামীলীগ নেতা প্রয়াত আলী আজম ভূইঁয়া ও মুক্তিযুদ্ধের ৩নং সেক্টরের গেরিলা উপদেষ্টা প্রয়াত অ্যাডভোকেট লুৎফুল হাই সাচ্চুসহ অন্যান্য মুক্তিযুদ্ধাদের নিয়ে শহরে প্রবেশ করে দেখতে পান পাকবাহিনীর নারকীয় হত্যাযজ্ঞের দৃশ্য। পাকবাহিনী শহর ছেড়ে যাবার সময় কলেজ হোস্টেল, অন্নদা স্কুল বডিং সহ বিভিন্ন রেশন গুদামে অগ্নি সংযোগ করে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহর মুক্ত হবার পর তৎকালীন পূর্বাঞ্চলের লিবারেশন কাউন্সিলের চেয়ারম্যান জহুর আহাম্মেদ চৌধুরী আনুষ্ঠানিক ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তলন করেন। একাত্তরের শহীদদের স্মরণে শহরের ফারুকী পার্র্কে গড়ে উঠে স্বৃতিসৌধ। কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে কাউতলী এলাকায় তিন সড়কের মোড়ে নির্মাণ করা হয়েছে সৌধ হিরম্ময় ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধ। এছাড়াও রয়েছে পৈরতলা এলাকায় বধ্যভূমি। ব্রাহ্মণবাড়িয়া মুক্ত দিবস উপলক্ষে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

B baria 1971

এ জাতীয় আরও খবর

ক্যানসার আক্রান্ত অভিনেত্রীর পাশে ফারহান

যুক্তরাষ্ট্রে ঈদ উদযাপনে গোলাগুলি, আহত ৩

ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিতে প্রস্তুত স্পেন

গোর-এ-শহীদ ময়দানে ৬ লাখ মুসল্লির ঈদের নামাজ আদায়

একদিনে শীর্ষস্থান হারালেন মুস্তাফিজ

মায়ের জমানো টাকা ও গাড়ি বেচে সিনেমা, হল না পেয়ে কাঁদলেন নায়ক

অপরাজনীতি যেন চিরতরে দূর হয়, প্রার্থনা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে আড়ালেই থাকে তাদের কষ্ট

শুধু বিএনপি নয়, পুরো দেশ দুঃসময় পার করছে : মির্জা ফখরুল

ঈদের আনন্দ থেকে কেউ যেন বঞ্চিত না হয় : রাষ্ট্রপতি

রোজায় এক হাজার ইফতার পার্টি করেছে বিএনপি : প্রধানমন্ত্রী

মিরপুর চিড়িয়াখানায় হাতির আঘাতে কিশোরের মৃত্যু