বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া গ্যাস ফিল্ডে নিয়োগ দূর্নীতিতে গোয়েন্দা হুশিয়ারী

gas field B Baria head Officeনিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ডে নিয়োগ কেলেংকারীর ঘটনায় কেপিআই প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা নিয়ে শংকা প্রকাশ করা হয়েছে। আশংকা প্রকাশ করা হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি চেইন অব কমান্ড ভেঙ্গে পড়ার। মাঠ পর্যায়ের সরকারী একাটি গোয়েন্দা সংস্থা সম্প্রতি সরকারের উচ্চ পর্যায়ে এমন রিপোর্র্টই দিয়েছে। এমন নিয়োগ কার্যকর হলে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানটির ভাবমুর্তি হবে প্রশ্নবিদ্ধ। ক্ষুন্ন হবে প্রতিষ্ঠানের অর্জিত সুনাম এমন তথ্য জানানো হয়।
খবর সংশি¬ষ্ট সূত্রের। সূত্র জানায়, ২০০৮ সালে পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ড ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জন্য জনবল আহবান করা হয়। কিন্তু সেখানে ৩১ শুন্য পদ থাকলেও এর বিপরীতে ১৪৩ জনকে নিয়োগপত্র দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়। এতে কর্মকর্তা রাজনৌতিক ও সিবিএ’র নেতারা কয়েক কোটি টাকা ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ উঠে। বিষয়টি গনমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার হয়। এতে নড়েচড়ে বসেন কর্তৃপক্ষ। স্থগিত হয়ে যায় নিয়োগ প্রক্রিয়া। সরকার গঠন করে পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি। সংসদীয় তদন্ত কমিটিও গঠিত হয়। দুর্নীতি দমন কমিশন ঘটনাটি তদন্ত শুরু করেন। এখনও চলছে তদন্ত কাজ। ঘটনাটি আদালতে গড়ায়। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অনিয়ম ও দুর্নীতির কারনে তৎকালীন কোম্পানীর এমডি নুরুল ইসলাম ও জিএম (এইচআর) মজিবুর রহমানকে কোম্পানী থেকে প্রত্যাহার ও পরবর্তীতে সাসপেন্ড করা হয়। সম্প্রতি ওই কেলেংকারীর সাথে জড়িতরা নতুন করে নিয়োগ প্রক্রিয়াটি শুরুর করার ফন্দি ফিকির শুরু করেছেন। একাধিক সূত্র জানায়, কেপিআই প্রতিষ্ঠানের অবৈধ নিয়োগ প্রত্যাশিরা নিয়োগের দাবীতে ১৯ অক্টোবর ও ৩০ অক্টোবর কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে ফেলে। সে সাথে তারা কর্মকর্তাদের জিম্মি করে ফেলে। কর্মকর্তাদের লাঞ্চিত করারও চেষ্টা করা হয়। এ নিয়ে সরকারের একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা বিস্তারিত রিপোর্ট সংগ্রহ করে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে প্রেরণ করেন।

সংশি¬ষ্ট সূত্র জানায়, রিপোর্টে এ ধরনের নিয়োগ বাস্তবায়ন হলে প্রতিষ্ঠানের বিধি বিধান ও নিরাপত্তা হবে পদদলিত এমনটা জানিয়েছেন গোয়েন্দা সংস্থা। দীর্ঘ রিপোর্টের উল্লেখ করা হয়, সরকার ঘোষিত দুটি তদন্ত রিপোর্ট আজও আলোর মুখ দেখেনি। সে সাথে সংসদীয় এবং সংশি¬ষ্ট মন্ত্রনালয় গঠিত রিপোর্টের ভিত্তিতে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলা হয়। রিপোর্টে নিয়োগের মারাত্মক নেতিবাচক দিক তুলে ধরে গুরুত্বপূর্ন প্রতিষ্ঠানের ভাবমুর্তি নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি কেপিআই প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা নিয়ে শংকা প্রকাশ করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, সরকার গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশে লিখিত পরীক্ষার সব কিছু ঠিক রেখে পুনরায় মৌখিক পরীক্ষা নেয়ার কথা বলা হয়েছে। গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্টে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষার নজিরবিহীন অসামঞ্জস্য ও অনিয়ম তুলে ধরা হয়। আইবিএ’র লিখিত পরীক্ষায় যে চাকুরী প্রার্থী ৭০ নম্বর পেয়েছে, তাকে মৌখিক পরীক্ষায় দেয়া হয়েছে মাত্র ৫ নম্বর। অন্য দিকে লিখিত পরীক্ষায় সর্বনিম্ন নম্বর প্রাপ্তদের মৌখিক পরীক্ষায় দেওয়া হয়েছে ২৫ এর মধ্যে ২৪ নম্বর। কৌশলে চরম অনিয়মের মাধ্যমে ছুড়ে ফেলা হয়েছে মেধাবীদের। সুযোগে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার অপকৌশল প্রয়োগ করেছেন প্রতিষ্ঠানটি কিছু অসাধুকর্মকর্তা। পরীক্ষার খাতায় নাম্বার দেওয়ার সময় ও দেখিয়েছেন নানান কারিশমা। এ দূর্নীতি অনিয়মের দায় কোন ভাবেই এড়াতে পারবে না সরকার।

সূত্র জানায়, প্লাট অপারেটর ১১ শূন্য পদে ৩৩ জনকে নিয়োগ দেয়ার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ঘুষকে হালাল করার জন্য বিএনপি ও জামায়াতের একাধিক প্রার্থীকেও রাখা হয়েছে তালিকায়।
 

 

 

 

এ জাতীয় আরও খবর

৮৭ হাজার টাকার মদ খান পরীমণি, পার্সেল না দেওয়ায় চালান তাণ্ডব

যুদ্ধ পরিস্থিতি মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ভারতের পররাষ্ট্র সচিব ঢাকায় আসছেন শনিবার

পি কে হালদারের বিরুদ্ধে প্রথম চার্জশিট দিচ্ছে দুদক

কেমন ছিল জিম্মিদশার দিনগুলো, জানালেন জাহাজের ক্যাপ্টেন রশিদ

ইসরায়েলে ড্রোন হামলা হিজবুল্লাহর, ১৪ সেনাসদস্য আহত

হাথুরুকে নিয়ে ধোঁয়াশা নেই, ২১ এপ্রিল রাতে ফিরছেন ঢাকায়

উপজেলা নির্বাচন সরকারের আরেকটা ভাওতাবাজি : আমীর খসরু

গরমে গতি কমিয়ে ট্রেন চালানোর নির্দেশ

পশ্চিমবঙ্গে ৪৬ ডিগ্রিতে পৌঁছাবে তাপমাত্রা

গুলশানে চুলোচুলি করা সেই ৩ নারী গ্রেপ্তার

দায়িত্বশীল ও টেকসই সমুদ্র ব্যবস্থাপনার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর