বৃহস্পতিবার, ১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লতিফ এখনো লাপাত্তা, খুঁজছে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা

2_37747-300x228অনলাইন ডেস্ক :ধর্মীয় অবমাননাকর বক্তব্য দিয়ে বিতর্কের ঝড় তোলা সাবেক মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর কোনো খবর নেই।

সর্বশেষ কলকাতার হোটেল থেকে বের হওয়ার পর থেকেই তিনি লাপাত্তা। তাকে খুঁজে পাচ্ছে না ভারতীয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও।
মূলত তার গতিবিধি নজরে রাখা ও প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্যই ভারতীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী লতিফ সিদ্দিকীর খোঁজ করছে। কিন্তু তার অবস্থান গতকাল পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, লতিফ সিদ্দিকী কলকাতা গিয়ে তার সম্পর্কে ভারতের কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের নেতিবাচক মনোভাব জানতে পেরেই অবস্থান বদল করে আত্মগোপনে চলে গেছেন।
জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বিতর্কিত বক্তব্য দিয়ে মন্ত্রিত্ব হারানো লতিফ সিদ্দিকী সুবিধাজনক অবস্থানের আশাতেই লন্ডন হয়ে কলকাতা গিয়েছিলেন। আশা ছিল বাংলাদেশের কাছাকাছি থেকে পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে যোগাযোগ ছাড়াও রাজনৈতিক সহকর্মী ও অনুসারী নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করা।
এ ছাড়া আওয়ামী লীগের নিজের দলীয় অবস্থান অনুকূলে আনতে ভারত সরকারের কাছ থেকে একটি ভূমিকা পাবেন বলেও আশা করেছিলেন লতিফ সিদ্দিকী। এ কারণে ভারতে গিয়েই রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করেন। কিন্তু প্রণব মুখার্জি তাকে সাক্ষাতের সময় না দেওয়াতেই ভারত সরকারের অবস্থান সম্পর্কে ধারণা পেয়ে যান লতিফ সিদ্দিকী। খোঁজ নিয়ে বুঝতে পারেন তার সম্পর্কে নয়াদিল্লির পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারের মনোভাবও নেতিবাচক। কলকাতা থেকে অনুকূল পরিস্থিতি বুঝে বাংলাদেশে চলে আসার পরিকল্পনা নিলেও লতিফ বুঝতে পারেন, ভারতে সুবিধার চেয়ে অসুবিধাই বেশি হবে। তাই সঙ্গে সঙ্গেই তিনি কলকাতার তাজ বেঙ্গল হোটেল থেকে বেরিয়ে চলে যান অজানা স্থানে। এমন পরিস্থিতিতে লতিফ সিদ্দিকী ভারতে দীর্ঘ সময় অবস্থান করবেন বলে মনে হচ্ছে না। যদিও অনেকে মনে করছেন, তিনি ভারত থেকে গোপনে বাংলাদেশে এসে উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারেন।
কিন্তু তার পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, লতিফ সিদ্দিকীর এই মুহূর্তে দেশে আসা অনিশ্চিত। সরকারের কাছ থেকে কোনো রকমের সাড়া না পাওয়ায় পরিস্থিতি মোকাবিলার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন না লতিফ সিদ্দিকী। আসলে কোনো সিদ্ধান্তই তিনি এখনো চূড়ান্ত করতে পারেননি। তবে দ্রুতই তিনি যুক্তরাষ্ট্র বা কানাডায় আত্মীয়স্বজনদের কাছে ফিরে যেতে পারেন। যদিও লন্ডনেও তার স্বজনরা রয়েছেন। কিন্তু লন্ডন না গিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার কথাই বিশেষভাবে ভাবা হচ্ছে। কারণ, এই দেশ দুটিতে রাজনৈতিক আশ্রয়ের সিদ্ধান্ত প্রায়ই গৃহীত হয়। সবমিলিয়ে লতিফ সিদ্দিকী কোনটা করবেন তা এখনো নিশ্চিত না হলেও দ্রুতই তিনি সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানিয়েছে পারিবারিক একাধিক সূত্র।টাঙ্গাইলের আসনে চার বারের এমপি আওয়ামী লীগের গত মেয়াদের বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী সর্বশেষ ডাক-টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী হিসেবে জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে সস্ত্রীক প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গী হয়েছিলেন। সেই সফর চলাকালীন গত ২৮ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে পবিত্র হজ, তাবলিগ জামাত, প্রধানমন্ত্রীর ছেলে জয় ও প্রবাসীদের নিয়ে কটূক্তি করেন তিনি। হজ নিয়ে তার বক্তব্যের ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর দেশজুড়ে প্রতিক্রিয়া হয়। কয়েকটি ইসলামী দল আন্দোলনের হুমকি দেয়।
তাকে মন্ত্রিসভা থেকে বাদ দেওয়ার পাশাপাশি গ্রেফতারের দাবিও তোলে বিএনপি। ‘ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত’ দেওয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন জেলায় কমপক্ষে ২৫টি মামলা দায়ের হয়। এগুলোতে গ্রেফতারি পরোয়ানাও জারি হয়েছে। নিউইয়র্ক থেকে লন্ডন যাওয়া প্রধানমন্ত্রী সেখান থেকেই জানিয়ে দেন লতিফ সিদ্দিকী আর মন্ত্রিসভায় থাকবেন না। ফাইল প্রস্তুত রাখার নির্দেশ দেন তিনি। তবে রাষ্ট্রপতি হজে যাওয়ায় কিছুটা বিলম্ব হয়। পরে ১২ অক্টোবর দুপুরে মন্ত্রিত্ব হারান লতিফ সিদ্দিকী। সেদিনই সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারণী ফোরাম সভাপতিম-লীর সদস্যপদ থেকে বহিষ্কৃত হন আবদুল লতিফ সিদ্দিকী। সেদিন আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে দলের প্রাথমিক সদস্যপদ স্থগিতের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়। এ জন্য নিয়মানুসারে লতিফ সিদ্দিকীকে টাঙ্গাইলের ঠিকানায় কারণ দর্শাও নোটিস দেওয়া হয়েছে। সেই জবাবের ওপর ভিত্তি করেই আওয়ামী লীগের সাধারণ সদস্য পদে লতিফ সিদ্দিকীকে রাখা হবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। প্রক্রিয়া অনুসরণ করে সাধারণ সদস্যপদ হারাতে হয়তো সময় লাগবে কিন্তু এখনই লতিফ সিদ্দিকীর সঙ্গে আওয়ামী লীগের আর কোনো সম্পর্ক আছে বলে মনে করেন না দলের নেতারা।

এ জাতীয় আরও খবর

৮৭ হাজার টাকার মদ খান পরীমণি, পার্সেল না দেওয়ায় চালান তাণ্ডব

যুদ্ধ পরিস্থিতি মোকাবিলায় আগাম প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ভারতের পররাষ্ট্র সচিব ঢাকায় আসছেন শনিবার

পি কে হালদারের বিরুদ্ধে প্রথম চার্জশিট দিচ্ছে দুদক

কেমন ছিল জিম্মিদশার দিনগুলো, জানালেন জাহাজের ক্যাপ্টেন রশিদ

ইসরায়েলে ড্রোন হামলা হিজবুল্লাহর, ১৪ সেনাসদস্য আহত

হাথুরুকে নিয়ে ধোঁয়াশা নেই, ২১ এপ্রিল রাতে ফিরছেন ঢাকায়

উপজেলা নির্বাচন সরকারের আরেকটা ভাওতাবাজি : আমীর খসরু

গরমে গতি কমিয়ে ট্রেন চালানোর নির্দেশ

পশ্চিমবঙ্গে ৪৬ ডিগ্রিতে পৌঁছাবে তাপমাত্রা

গুলশানে চুলোচুলি করা সেই ৩ নারী গ্রেপ্তার

দায়িত্বশীল ও টেকসই সমুদ্র ব্যবস্থাপনার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর