বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সরাইল -নাসিরনগর আঞ্চলিক মহা সড়কে গনডাকাতি,আহত-৯

dakat=======মাহবুব খান বাবুল :সরাইল – নাসিরনগর আঞ্চলিক মহাসড়কে গনডাকাতি হয়েছে। বেশ কয়েকটি সিএনজি অটোরিক্সা  মোটরসাইলের যাত্রীদের মারধোর করে সর্বস্ব লুটে নিয়েছে ডাকাতরা। ডাকাতের পিটুনিতে বিজয় টিভির সরাইল উপজেলা প্রতিনিধি সহ আহত হয়েছেন নয়জন। গত শনিবার রাত ১১টায় সড়র্কে বড্ডাপাড়া নামক স্থানে এ গনডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতের কবলে পড়া যাত্রী ও চালকরা জানায়, রাত ১১টায় বিশ্বরোড মোড় থেকে কালিকচ্ছ গামী যাত্রীবাহী একটি সিএনজিকে বড্ডাপাড়া খাদ্য গুদামের নিকটে মহাসড়কের পাশে স্তুপ দিয়ে রাখা ইট দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে আটক করে মুখোশ পড়া সংঘবদ্ধ একদল ডাকাত। তারা রামদা চাপাতি চাইনিজ কুড়াল ও গরু জবাইয়ের ছুড়া দেখিয়ে প্রথমে যাত্রীদের আতঙ্কিত ও জিম্মি করে। পরে চালক ও যাত্রীদের বেধরক পিটিয়ে নগদ টাকা মোবাইল সেটসহ অন্যান্য জিনিষ লুটপাট করতে থাকে। একে একে ডাকাত দল ১০/১২টি যাত্রীবাহী সিএনজি আটক করে তান্ডব চালিয়ে চালক ও যাত্রীদের সর্বস্ব লুটে নিয়ে যায়। সবশেষে ডাকাতরা সরাইল উপজেলার বিজয় টিভির প্রতিনিধি মোহাম্মদ মাসুদের মোটরসাইকেলটি আটক করে। অপর আরোহী মোশাররফ (৩৪) সহ মাসুদকে মারধোর করে তার দুইটি মূল্যবান মোবাইল, একটি ক্যামেরা, একটি মডেম ও নগদ টাকা নিয়ে যায়। এ সময় ডাকাতরা রামদা ও হকিষ্টিকের দ্বারা সড়কের পাশে মাটিতে ফেলে দুই পথচারীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এক সময় পথচারীরা জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। সড়কে এক ঘন্টা ব্যাপী ডাকাত দলের তান্ডব চললেও পুলিশ ও আশপাশের কোন লোকজনের দেখা মিলেনি। রাত ১২টার পর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর আহত দুই পথচারীকে উদ্ধার করেন। ডাকাতের পিটুনিতে অপর আহতরা হলেন- নন্দনপুরের সিএনজি চালক মোঃ কুতুব মিয়া (৩২), যাত্রী মজলিশপুর গ্রামের রহিম মিয়া (২০), সুজন মিয়া (২৩), কালু মিয়া (৩০), হারুন মিয়া (৩৫) ও অবসর প্রাপ্ত বিজিবি সদস্য সিএনজি চালক দুলাল মিয়া (৪০)। ওদিকে একই রাতে উপজেলা সদরের পূর্ব কুট্রাপাড়া গ্রামের বাসিন্ধা ও উপজেলা যুব সংহতির সম্পাদক মোঃ মাহফুজ খানের পাকা ভবনের গ্রীল ভেঙ্গে একটি (ডিসকভার) মোটর সাইকেল নিয়ে গেছে দূর্বৃত্তরা।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আলী আরশাদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনার সাথে জড়িতদের আমরা দ্রুতই গ্রেপ্তারের ব্যবস্থা করছি।