বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সরকারি অফিসে বসে রোগী পাঠায় ক্রিসেন্টে

Crime1প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে সরকার কর্তৃক দেয়া সুযোগ সুবিধা থেকে সাধারণ মানুষ বঞ্চিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। কতিপয় ডাক্তারের অসহযোগিতার কারনে সাধারণ রোগীরা পদে পদে হয়রানীসহ চরম আর্থিক ক্ষতির শিকার হচ্ছে। দুপুরে গ্রাম থেকে আসা এক রোগী জনৈক ডাক্তারের অসহযোগিতার কারনে চিকিৎসা না পেয়ে ফিরে গেছে। প্রাপ্ত তথ্যে  মতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরে আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে সাধারণ রোগীদের জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা থাকার পরও এক শ্রেণীর ডাক্তারদের খেয়ালীপনার কারনে রোগীরা সরকার কর্তৃক দেয়া প্রাপ্য সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অভিযোগ উঠেছে যে, বিভিন্ন সময়ে দালালদের উপর ঢালাও দোষ চাপিয়ে দেয়া হলেও এর পেছনে রয়েছে কতিপয় ডাক্তারদের অদৃশ্য কারসাজি। গতকাল দুপুরে টুম্পা সাহা (২২) নামে জনৈকা রোগী জেলা সদর হাসপাতালে ইর্মাজেন্সীতে টোকেন গ্রহণ করে চিকিৎসা নিতে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার ইমরান খান ব্যবস্থা পত্র লিখে দিয়ে পরীক্ষার জন্য হাসপাতালের বাইরে ক্রিসেন্ট ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে যাওয়ার জন্য একটি শ্লিপ হাতে ধরে দেন। দরিদ্র রোগী এ শ্লিপ পেয়ে হতবাক হয়ে পড়েন। অথচ বিভিন্ন রোগের পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা থাকার পরও কেন বাইরে থেকে বিপুল অর্থ ব্যয়ে পরীক্ষা করতে হবে তা রোগীদের বোধগম্যে নহে। দরিদ্র রোগী টুম্পা সাহা সরকারের দেয়া চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হয়ে চিকিৎসা না নিয়ে বিফল মনোরথে বাড়ী ফিরে যায় বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ রয়েছে যে, টুম্পা সাহা নয় প্রতিদিন অসংখ্য টুম্পা সাহাকে এমনিভাবে বাড়ী ফিরতে হচ্ছে। জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালে বিভিন্ন বিভাগের ডাক্তার ও পরীক্ষা নিরীক্ষায় যন্ত্রপাতি থাকার পরও নানা সমস্যা ও অজুহাতে সাধারণ রোগীরা যথাযর্থ চিকিৎসা পাচ্ছে না।