বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘরে বসে শপিং

77682_satrong-1অনলাইন ডেস্ক :আমাদের ব্যস্ত নগরজীবনের সময় বাঁচাতে ঘরে বসেই কেনাকাটার সুযোগ করে দিয়েছে অনলাইন শপিং সাইটগুলো। এখন আমাদের যানজট ঠেলে বাজারে না গেলেও চলবে। আর  এ জন্য আপনার স্মার্ট ডিভাইসের সাথে শুধু থাকতে হবে ইন্টারনেট সংযোগ। লিখেছেন অনলাইন শপিং নিয়ে নাজমুল হোসেন

ঘরে বসে কম্পিউটারের পর্দায় ব্রাউজ করলেই পাওয়া যাচ্ছে নিজের পছন্দমতো পোশাক, গয়না বা নিত্যপ্রয়োজনীয় প্রায় সব ধরনের দ্রব্যসামগ্রী। ডিজিটাল যুগে কেনাকাটা ডিজিটাল পদ্ধতিতে হলেও ঘরে আসছে আসল পণ্য। আর এতে বেঁচে যাচ্ছে সময়।
কয়েকটি অনলাইন ই-কমার্স সাইট।
রকমারি 
বইপ্রেমীদের ঘরে বসে বই কেনার সুবর্ণ সুযোগ করে দিয়েছে  rokomari.com। দেশী, বিদেশী মিলিয়ে প্রায় ৮৬ হাজার বইয়ের সম্ভার নিয়ে সাজানো হয়েছে এই অনলাইন বইয়ের দোকান। রকমারি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রতিদিন প্রায় ২০০ থেকে ৫০০ অর্ডার পেয়ে থাকেন। শুধু ঢাকা শহরে নয়, বরং দেশজুড়ে ‘ক্যাশ অন ডেলিভারি’ সুবিধা দেয়া হয়। লক্ষ করার করার বিষয় হলো সাইটে নেই, এমন কোনো বইয়ের অর্ডার করা হলেও সেটি বাইরে থেকে এনে দেয় তারা। যদিও এ েেত্র বইয়ের দাম পড়বে কিছুটা বেশি।
চালডাল 
অনেক পরিবারেই স্বামী-স্ত্রী দু’জনই চাকরি করেন। আর এ জন্য তারা বাজারের ভিড় ঠেলে আর দরদাম করে চাল, ডাল, তেল, সবজি কেনার ঝামেলা পোহাতে চান না। কর্মব্যস্ত সবাই এই সাইটটির মাধ্যমে ঘরে বসে পেতে পারেন প্রতিদিনকার অপরিহার্য বাজারসদাই। বর্তমানে ঢাকা এবং উত্তরার মধ্যে বাসায় পণ্য পৌঁছে দিচ্ছে। ৪০০ টাকার নিচে অর্ডার করলে ডেলিভারি চার্জ ৪০ টাকা। আর অর্ডারের পরিমাণ বেশি হলে গ্রাহক সার্ভিস চার্জ ছাড়াই ঘরে বসে পেয়ে যাবেন আপনার সামগ্রী। এ ছাড়া ‘ক্যাশ অন ডেলিভারি’র সুবিধা তো আছেই। মাউসের কিকেই কেনা যাবে চাল, ডাল বা সবজি। গ্রোসারি, স্টেশনারি এবং বেবি প্রোডাক্টসহ সবই রয়েছে chaldal.com-এর সংগ্রহে।
ড্রিম শপ
ছেলে ও মেয়েদের পোশাক, বেবি প্রোডাক্টস, কসমেটিকস, খাবার এসব মিলিয়ে বিশাল এক সম্ভার reamshopbd.com বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ফোন, ট্যাবলেট, পেনড্রাইভ এবং কম্পিউটার সংশ্লিষ্ট উপকরণও পাওয়া যায় এই সাইটে। 
আইফেরি
এ সাইটে রয়েছে নানা ব্র্যান্ডের বুটজুতার পাশাপাশি বিভিন্ন দলের জার্সি। আরো আছে ছেলেদের শার্ট, পাঞ্জাবি, শিশুদের পোশাক এবং রেপ্লিকা ঘড়ি, সানগ্লাস, কিয়ামি অল ইন ওয়ান সেটসহ আরো অনেক কিছু। চামড়ার বেল্ট এবং মানিব্যাগও কেনা যায় এই সাইট থেকে। অর্ডার করতে নিজের ই-মেইল আইডি দিয়ে খুলতে হবে অ্যাকাউন্ট। আর সেই অ্যাকাউন্টের মাধ্যমেই ঘরে বসে কেনাকাটা করতে পারবেন। পছন্দসই বিভিন্ন খেলার সামগ্রী ঘরে বসেই পেতে ঢু মারতে পারেন  iferi.com সাইটে।
অপ্সরা 
নারীদের কাছে পছন্দের এই সাইটটিতে রয়েছে প্রসাধনী, পোশাক এবং গয়নার কালেকশন।  বাজার দামের চেয়ে কম মূল্যে বিভিন্ন পণ্য কিনতে চাইলে ব্রাউজ করুন apshora.com সাইটে। এই সাইটের বিশেষত্ব হলো বিভিন্ন ব্র্যান্ডের দেশী এবং বিদেশী প্রসাধনী। অপ্সরা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও থাইল্যান্ড থেকে প্রসাধনীগুলো তারা আনেন। ভারত থেকে সংগ্রহ করা হয় বেশির ভাগ জুয়েলারি। আর এ কারণেই এসব জুয়েলারি বাজার মূল্যের তুলনায় কম দামে দিতে পারেন। এই সাইটের সংগহে রয়েছে শ্যাম্পু, বডি স্প্রে, ডে ক্রিম, নাইট ক্রিম, শাওয়ার জেল, মেনজ আইটেম এমন অসংখ্য প্রোডাক্ট। এই অনলাইন দোকানে রয়েছে নিজস্ব ডেলিভারি ম্যান। অর্ডার করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রাহকের হাতে পণ্য পৌঁছে দেয় বিভিন্ন দ্রব্য। 
বাংলাদেশ ব্র্যান্ড
রঙ, এক্সট্যাসি, সাদা-কালো, মেনেজ কাব, প্রবর্তনা, নগরদোলাসহ ৩৯টি ব্র্যান্ডের ২১ হাজারেরও বেশি রকমের কাপড় রয়েছে। আরো আছে ১০ হাজারেরও বেশি বই, বিভিন্ন ইলেকট্রনিকস ও কম্পিউটারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য। ঘরে বসে দেশী ব্র্যান্ডের বিভিন্ন পোশাক কেনার জন্য রয়েছে bangladeshbrands.com সাইট। এখানে ভিসা কার্ড, মাস্টার কার্ড, ব্র্যাক ব্যাংকের কার্ড, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের নেক্সাস কার্ড, কিউ-ক্যাশ কার্ড অথবা আপনার যেকোনো ব্যাংকের একটি এটিএম কার্ড অথবা বিকাশের মাধ্যমে কেনা যাবে। 
এসব সাইটের পাশাপাশি অনলাইন শপিংয়ের েেত্র পিছিয়ে নেই সোস্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুক। প্রায় তিন বছর ধরে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে অনলাইন শপিংয়ের ফ্যান পেইজগুলো। ফেসবুকে পেইজ তৈরি করে ুদ্র উদ্যোক্তারা তাতে দেশী বিদেশী নানা ধরনের পণ্য বিক্রি করছেন।  ফেসবুক-ভিত্তিক অনলাইন পেইজগুলো বেশির ভাগই বিদেশী জুয়েলারির জন্য জনপ্রিয়। তা ছাড়া দেশীয় বাজারে সহজলভ্য নয় এমন দ্রব্য কেনার জন্যও দারুণ মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে ফেসবুক পেইজগুলো। এসব বিক্রেতার সাথে ফেসবুক পেজে বা ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করা যায়। কোনো পণ্য না থাকলেও ফেসবুকের উদ্যোক্তারা তা আনিয়ে দেয়।
facebook.com/DeshiShilpo, facebook.com/sparklingpixies, facebook.com/Accessories.Dreams, facebook.com/tukitakishopping, facebook.com/ladyiconicbd ফেসবুকে কেনাকাটা করার সময় বা আগে, যে পেজ থেকে কিনতে যাচ্ছেন বা অর্ডার করছেন সেই পেজ এবং এর কর্ণধার সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিন।  
টাকা পরিশোধ পদ্ধতি
অনলাইন শপিং শুনলেই অনেকেই মনে করেন, টাকা দিতে হবে ডেডিট বা ক্রেডিট কার্ডে। তবে সবার ক্রেডিট কার্ড না থাকায় সব ধরনের গ্রাহকদের কেনাকাটা সুবিধা দেয়ার জন্য দেশের বেশির ভাগ অনলাইন শপই ‘ক্যাশ অন ডেলিভারি’ সার্ভিস দিচ্ছে। 
কিছু বিষয় মনে রাখা জরুরি
অনলাইনে কোনো জিনিস পছন্দ হলে লিঙ্কটি সেভ করুন। অন্যান্য অনলাইন শপে ঢুকে খোঁজখবর নিন। কারণ অনেক সময় দেখা যায়, পণ্য একই হলেও দামের েেত্র ভিন্নতা রয়েছে। অনলাইনে প্রায় সময়ই মূল্যছাড়ের অফার থাকে। অর্থ সাশ্রয়ে মূল্যছাড়ে কেনাকাটা অবশ্যই একটা ভালো উপায়। কিন্তু এসব লোভনীয় অফার দেখেই কেনাকাটা শুরু করে দেবেন না। প্রয়োজন বুঝে কেনার চেষ্টা করুন। বিভিন্ন উৎসব সামনে রেখে ওয়েবসাইটগুলোয় বেচাবিক্রি বেশি হয়। আর তখন ওয়েবসাইটগুলো অনেক বেশি জ্যাম হয়ে যায়। তাই কেনাকাটা করলে খুব সকালে না হয় শেষ রাতের দিকে করা উচিত। অনলাইনে যে পেজ বা সাইট থেকে কেনাকাটা করবেন, সেখানে অন্য ক্রেতাদের মন্তব্যগুলো পড়ুন। তাহলে পণ্যটি সম্পর্কে কিছুটা হলেও ধারণা হবে। ডেলিভারি দেয়া পণ্যে কোনো খুঁত পেলে তা ফেরত দেয়া যাবে কি না, এ বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে নিন।