সোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কসবায় দু’দল গ্রামবাসীর মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ, ৪ পুলিশসহ আহত-৫০

attackশেখ কামাল উদ্দিন : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পূর্ব বিরোধের জেরধরে দু‘দল গ্রামবাসীর মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এতে ৪ পুলিশসহ ৫০ জন আহত হয়েছে। এ সময় কসবা নতুন বাজার, কদমতলী এলাকার অর্ধশতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাড়ি ঘর ভাংচুর এবং লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ কাদাঁনে গ্যাস ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে ৪ ঘন্টা পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। 
পুলিশ, এলাকাবাসী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে; কসবা পশ্চিম ইউনিয়নের জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের জ্যৈষ্ঠ সহ-সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের ছবি সম্বলিত একটি ফ্যাস্টুন সম্প্রতি কে বা কারা ছিড়ে ফেলে। এ নিয়ে আড়াইবাড়ি গ্রামের ইমন মিয়া, এনায়েত ও সাইফুল ইসলামের সাথে সাদ্দামের কথা কাটাকাটি হয়। 
শুক্রবার সকালে সাদ্দাম হোসেন কসবা টি.আলী বিশ্ব-বিদ্যালয় কলেজ মাঠে ক্রিকেট খেলতে আসে। এ সময় কসবা পৌর এলাকার আড়াইবাড়ি গ্রামের লোকজন তাকে মারধর করে জখম করে। 
এ খবর গ্রামে ছড়িয়ে পড়লে বেলা ১২টা থেকে আড়াইবাড়ি ও আকছিনা দু‘দল গ্রামবাসীর মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। 
আকছিনা গ্রামের লোকজন আড়াইবাড়ি, কদমতলী ও কসবা নতুন বাজারের কমপক্ষে ৫০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাড়ি ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করেছে। কদমতলী এলাকায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ১০/১৫টি মিটার ভাংচুর করেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করলেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে র‌্যাপিড অ্যাকশান ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব), ব্রাহ্মণবাড়িয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদ হাসানের নেতৃত্বে ও আখাউড়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে যৌথভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেন। 
বেলা ৪টায় ঘটনাস্থলে এডভোকেট রাশেদুল কায়সার জীবন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনিছুল হক ভুইয়া, কসবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  মুহাম্মদ আরিফুল ইসলামসহ পুলিশ ও র‌্যাপিড এ্যাকশান ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এর সহযোগিতায় প্রায় ৪ঘন্টা পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনেন। 
আহত কসবা থানার এস.আই শেখ হাফিজুর রহমান, এস. আই আশরাফ কামাল, কনস্টেবল মো. শরীফ , কন্েস্টবল আমির হোসেনকে আহত অবস্থায় কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের ভর্তি করা হয়েছে। এ ছাড়া ভর্তি করা হয়েছে; শামিম মিয়া, শরীফ, হৃদয় , জামাল উদ্দিন, সেলিম ভুইয়া , রাকিব মিয়া, রিমন মিয়া, এনায়েত, খোকন মিয়াকে। অপর আহতদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লাসহ আশে-পাশের বিভিন্ন সরকারি ও বে-সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 
আড়াইবাড়ি গ্রামের কদমতলী এলাকার ব্যবসায়ী হেলাল মিয়া বলেন; আমরা কোন ঝগড়ায় নেই। ব্যবসা করে খাই। আকছিনা গ্রামের লোকজন তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি ভাংচুর করে নগদ টাকা ও মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। 
এ ছাড়া নতুন বাজারের ব্যবসায়ী আবদুল করিম বলেন, আকছিনা গ্রামের লোকজন তার দোকানসহ নতুন বাজার, কদমতলী, আড়াইবাড়ি গ্রামের কমপক্ষে অর্ধশতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়ি ঘর ভাংচুর এবং লুটপাট করেছে। 
    ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদ হাসান বলেন; ব্যাপক আকারে রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। থানায় কেউ মামলা দেয়নি। 

এ জাতীয় আরও খবর

দেশে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ঘটে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মিসরে গির্জায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহত ৪১

ফাঁস হওয়া গোপন ভিডিও নিয়ে যা বললেন অঞ্জলি

‘বালুখেকো’ সেলিমকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

পাখির আঘাতে বিকল লন্ডনগামী বিমানের ফ্লাইট

বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে বাসের ধাক্কায় নিহত ২

বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত বুয়েট শিক্ষার্থীরা

বুয়েটের আন্দোলনকারীরা শিবির: জয়

অনুশীলনে গুলিবিদ্ধ বিজিবি সদস্যের মৃত্যু

সরকারি চাকরিজীবীদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ বিষয়ে করা রিট খারিজ

বঙ্গবন্ধু হত্যার বড় সুবিধাভোগী জিয়া ও তার পরিবার : তথ্যমন্ত্রী

আপনারা সবাই আমারে খায়া ফেললেন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী