বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মৌলভীবাজারের রাজনগরে অগ্নিকান্ডে কোটি টাকার ক্ষতি

downloadমৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার ভুজবল গ্রামের পীরের বাড়িতে অগ্নিকান্ডে একশত হাত লম্বা ঘর পুড়ে কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। বৈদ্যুতিক সর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে। 
শনিবার শেষ রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের ভুজবল গ্রামের পীরের বাড়ির খন্দখার আব্দুল কাদিরের ঘর থেকে প্রথমে  আগুন ছড়ায়। দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়লে একই পরিবারের খন্দখার মরহম আলী,খন্দখার তৈয়ব আলী, খন্দখার সিকান্দর আলী,খন্দখার ফাহিম আলী এই পাচঁ পরিবারের  একশত হাত লম্বা সেমি পাকা ঘর আগুনে পুড়ে ভষ্মিভুত হয়। 
মৌলভীবাজার ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের দমকল বাহিনী শেষের দিকে ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সহায়তা করেছে। কাতার প্রবাসি আব্দুল কাদির জানান রাত সাড়ে তিন টার দিকে তার ফটিক রুমে বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিটের আগুন লেগে যায়। এ সময় ঘরের ভেতরে বাশেঁর তৈরী ছাদে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। 
আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পেয়ে তিনি হতভম্ব হয়ে যান। তার স্ত্রী ছেলে মেয়েদেরকে নিরাপদে নিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে চোখের সামনে সবকিছু  পুড়ে ছাঁই হয়ে গেল কিছুই করার ছিল না।পাশবর্তী ঘর গুলোতে এ সময় দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে তার পাসপোর্ট ভিসা,আমেরিকা যাওয়ার জন্য আবেদন পত্র সহ ঘরের মূল্যবান জিনিস পত্র পুড়ে ছাই হয়েছে। খন্দখার নজাবত আলী জানান ঈদের খরচের জন্য ঘরে রাখা তার নগদ এক লাখ টাকা সহ সোনা দানা,ধান চাউল, কাপড়,মূল্যবান কাগজপত্র,ফ্রিজ,কম্পিউটার,টেলিভিশন,ঘরের আসবাবপত্র সহ অনেক কিছু পুড়েছে। নজাবত আলী অরো জানান, তাদের পাচঁটি পরিবারের সব কিছু মিলিয়ে প্রাথমিক হিসেবে এক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। মৌলভীবাজার ফায়ার সার্র্ভিস স্টেশনের সাব-অফিসার নজরুল ইসলাম জানান আমরা ঘটনা স্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছি। ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ জানতে চাইলে তিনি জানান ৭০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। খন্দখার ফাহিম আলীর অভিযোগ বার বার ফোন করে বিদ্যুত বিভাগের পক্ষ থেকে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।