বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিরামপুর গ্রামের কলেজ ছাত্র জুনায়েদের উপর সন্ত্রাসী হামলা

Crime1ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের বিরামপুর গ্রামে মোঃ জুনায়েদ (১৯) নামক এক কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত জুনায়েদকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানিয়েছে, জুনয়াদের মুখে এবং মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
হাসপাতালে ভর্তি মোঃ জুনায়েদ জানান, গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে তার প্রতিবেশী সুজন, হৃদয় এবং সুমনের নেতৃত্বে একদল যুবক তাকে বাড়ী থেকে ডেকে নেয়। পরে তার হাত থেকে তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনটি কেড়ে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই তার উপর অতর্কিত হামলা চালায় দুবৃর্ত্তরা। তবে হামলার কারণ সর্ম্পকে কিছু বলতে পারেনি জুনায়েদ।
এদিকে জুনায়েদের দাদা বিরামপুর গ্রামের প্রবীণ ব্যক্তি আব্দুল গফুর জানান, তার নাতি জুনায়েদ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে বিজ্ঞান বিভাগে সাফল্যের সাথে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে গত কয়েক মাস ধরে বাড়ীতে অবস্থান করছে। সে মেডিকেলে ভর্তির জন্যে প্রস্তুতি নিচ্ছে। তার জানা মতে তার নাতি জুনায়েদের এলাকায় কোন শত্রু নেই। কেন তার উপর এমন বর্বরোচিত হামলা করা হলো তিনি এলাকার লোকজনের কাছে বিচার প্রার্থী হয়েছেন।
জুনায়েদের আরেক দাদা আব্দুল করিম বলেন, জুনায়েদের বাবা মোঃ ফরিদ মিয়া বিদেশে থাকেন এলাকার স্থানীয় সর্দার মাতাব্বরা বিষয়টি কঠিন ভাবে দেখবেন বলে কথা দিয়েছেন এর জন্যে থানা পুলিশ পর্যন্ত গড়ায়নি।
এলাকার বিশিষ্ট সরদার মলাই মিয়া বলেন, জুনায়েদের আমাদের গ্রামের মধ্যে একজন ভাল ছেলে। তাকে কেন এভাবে মারধর করা হলো আমরা বিষয়টি কঠিনভাবে দেখব।
এদিকে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ ইমরান জানান, জুনয়াদের মুখে এবং মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে নিবির পর্যবেক্ষণে রাখার জন্যে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার মাথায় আঘাত জনিত কারণ সর্ম্পকে ডাঃ ইমরান বলেন সিটিস্ক্যানে রিপোর্ট আসলে রোগীর অবস্থা সর্ম্পকে বিস্তারিত বুঝা যাবে।
অপর দিকে ন্যায় বিচারের প্রত্যাশায় জুনায়েদের পরিবার এখন গ্রামের সর্দার মাতাব্বরদের দিকে তাকিয়ে আছে।