সোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দায়সারা ব্যাটিং পথহারা বাংলাদেশ!

crবাংলাদেশের ক্রিকেটে এ এক গভীরতর সমস্যা। সেই সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসার যেন কোনো লক্ষণ নেই। সেন্ট ভিনসেন্ট হোক কিংবা সেন্ট লুসিয়া- সবখানেই একই বৃত্তে বন্দি মুশফিকুরদের ব্যাটিং। ছন্নছাড়া, ছন্দহীন। ছিন্নমূল পরিবারের মতো শামসুর-নাসিরদের ব্যাটিং পরশু দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিন ঘুম বিসর্জন দিয়ে যারা টিভি সেটের সামনে বসেছিলেন, তাদের যথেষ্ট বিরক্তির উদ্রেক হয়েছে সফরকারীদের লক্ষ্যবিহীন ব্যাটিংয়ে। রোচের রোষের আগুনে পুড়তে হয়েছে মুশফিকদের। এটি মুদ্রার এক পিঠ। অপর পিঠে রয়েছে নিজেদের দায়সারা ব্যাটিং। আত্মনিবেদনের চরম ঘাটতি। আত্মপ্রয়োগে দৃষ্টিকটু অনীহা। বলের পেছনে শরীর এনে টেস্ট ব্যাটিংয়ের ব্যাকরণ থেকে এখনও যোজন মাইল দূরে রয়েছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। পায়ের নড়াচড়া নেই। যেন সিমেন্ট দিয়ে বাঁধাই করে রাখা হয় পা-জোড়া। তাই তো মুহূর্তে স্কোর বোর্ড দেখায় ৭৯/৬, ৮৯/৭। কোনো মানে হয় এমন ব্যাটিংয়ের? সেন্ট লুসিয়ার গ্রস আইলেটের বোশেজো স্টেডিয়ামে রোববার মুশফিকুররা যে ব্যাটিং-প্রদর্শনী করেছেন তা ক্ষমাহীন।


টেস্ট মেজাজের ব্যাটিংয়ের সঙ্গে এখনও নিজেদের মানিয়ে নিতে পারেননি তামিম ইকবালরা। একটা উদাহরণ দেয়া যাক। দ্বিতীয় টেস্টে অভিষিক্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ ওপেনার লিওন জনসন ৬৬ রান করতে খেলেছেন ১৬২ বল। আর নিজের ১৬তম টেস্টে নাসির হোসেন তিন বলে এক রান করে এমনভাবে সাজঘরে ফিরে গেছেন, যেন প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়েছিলেন। কেন তিনি এখনও দলে আছেন, তা একমাত্র নির্বাচকরাই জানেন। শামসুর রহমান সম্পর্কেও একই কথা প্রযোজ্য। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের না আছে কোনো দায়বদ্ধতা, না জবাবদিহিতা। হাঁটলে মনে হয় পা মাটিতে নেই। কলার সব সময় উঁচু থাকে। বিজ্ঞাপনে কেউ বিস্কুট খান।


কেউ বিস্কুটের পক্ষে সাফাই গান। নিজেদের কাজটা ঠিকমতো


করতেই শুধু রাজ্যের অনীহা তাদের। বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে এদিন তামিম ইকবালের ৪৮ বাদ দিলে আর কিছুই থাকে না। বাকিদের স্কোর টেলিফোন নম্বরের মতো।


রোচের রোষের মুখে মুশফিকুরদের ভেঙে পড়া তাদের নির্জীব, নিস্পৃহ ব্যাটিং এবং কদর্য ক্রিকেটের দৃষ্টিকটু প্রদর্শনী। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৫০০তম টেস্টের প্রথম দু’দিনেই অন্ধকার নেমে আসে বাংলাদেশ শিবিরে। শেষ তিন দিনে চিত্র কতটা ভয়াবহ হবে, ভাবলেই শিউরে উঠতে হয়। তিন দিনের কথাইবা ভাবা হচ্ছে কেন। মুশফিকুরের দলের যা ব্যাটিং সামর্থ্য, তাতে এই ম্যাচের আয়ু বড় জোর আর দু’দিন হলে কেউ বিস্মিত হবেন না। দেশে ফেরার আগে একদিন মুফতে পেয়ে গেলে বরং সেন্ট লুসিয়ায় বেড়াতে পারেন মুমিনুলরা। রোচের বাউন্সারের বিপরীতে নৈসর্গিক সৌন্দর্যের আধার এক একটি ক্যারিবীয় দ্বীপদেশ। তাতে নিজেদের ব্যর্থতায় খানিকটা প্রলেপ পড়বে।


সর্বশেষ


সেন্ট লুসিয়ায় সোমবার দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের তৃতীয় দিন শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ তাদের প্রথম ইনিংসে ১৩৫ রানে আট উইকেট হারিয়েছিল। মাহমুদউল্লাহ ব্যাট করছিলেন ৩৪ রান নিয়ে। বাংলাদেশ তখনও ২৪৫ রানে পিছিয়ে। হাতে তাদের প্রথম ইনিংসের শেষ দুই উইকেট। রোচ পাঁচটি এবং টেলর দুটি উইকেট নেন। একটি উইকেট পান গ্যাব্রিয়েল।


ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস ৩৮০ (ব্রাফেট ৬৩, জনসন ৬৬, ব্রাভো ৪৬, চন্দরপল ৮৪*, টেলর ৪০, বেন ২৫। আল-আমিন ৩/৮০, শফিউল ২/৮০, রবিউল ২/৬৩, তাইজুল ২/৮৯)।


বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস


রান বল ৪ ৬


তামিম ক রামদিন ব রোচ ৪৮ ৭৫ ৬ ০


শামসুর ক রামদিন ব রোচ ১ ১২ ০ ০


এনামুল ক ব্রাভো ব রোচ ৯ ৩৯ ০ ০


মুমিনুল ক ব্ল্যাকউড ব টেলর ৩ ৩৪ ০ ০


মুশফিকুর ব টেলর ৪ ২২ ০ ০


মাহমুদউল্লাহ নটআউট ৩৪ ৮৩ ১ ০


নাসির ক রামদিন ব রোচ ১ ৩ ০ ০


তাইজুল ক গ্যাব্রিয়েল ব রোচ ১২ ১১ ২ ০


শফিউল ক রামদিন ব গ্যাব্রিয়েল ১০ ৫০ ০ ০


অতিরিক্ত ১৩


মোট (৮ উইকেটে, ৫৫.৩ ওভারে) ১৩৫


উইকেট পতন : ১/১৪, ২/৪৩, ৩/৬২, ৪/৬৫, ৫/৬৮, ৬/৬৯, ৭/৮৯, ৮/১৩৪।


বোলিং : টেলর ১৯-৫-৪১-২, রোচ ২০-৫-৪২-৫, গ্যাব্রিয়েল ১১.৩-১-৩১-১, বেন ৫-১-১১-০। (অসমাপ্ত)

এ জাতীয় আরও খবর

চকবাজারে পলিথিন কারখানার আগুন নিয়ন্ত্রণে

দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ষসেরা ক্রিকেটার মহারাজ

ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা

শোক দিবসে সংঘর্ষ, ছাত্রলীগ কর্মীদের পেটাল পুলিশ

দল যখন ডাকবে তখনই সাড়া দেবো : সোহেল তাজ

কোনো সভ্য রাষ্ট্র খুনিদের প্রশ্রয় দেবে না: আইনমন্ত্রী

ভাসমানসহ সব শিশু টিকা পাবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

২০৪১ সালে মাথাপিছু আয় হবে সাড়ে ১২ হাজার ডলার: প্রতিমন্ত্রী

মানুষ যেন স্বল্পসময়ে ন্যায়বিচার পায় : প্রধান বিচারপতি

আশপাশের সব ভবনই ঝুঁকিপূর্ণ : ফায়ার সার্ভিস

বাংলাদেশ সংকটে নেই, বিশ্ব সংকটে আছে : নৌ-প্রতিমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণে সংগ্রাম করে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা: কাদের