মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে আগরতলায় গেছে ভারতীয় চাল

Akaura-port1-150x150বিশেষ প্রতিনিধি : আজ বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতীয় চাল পরিবহন শুরু হয়েছে। পাঁচ হাজার মেট্রিক টন চাল পরিবহনের প্রথম দিনে তিনটি কাভার্ড ভ্যানে মোট ৫১ টন চাল পরিবহন করা হয়।

আগরতলার কাস্টমস কর্মকর্তা দেবেন চক্রবর্তী বাংলাদেশের কাস্টমস কর্মকর্তা মো. লুৎফুর রহমানের কাছ থেকে চাল সংক্রান্ত কাগজ পত্র বুঝে নেন।
এর আগে পাঁচ হাজার মেট্রিক টন ভারতীয় চাল নিয়ে পাঁচটি জাহাজ গত মঙ্গলবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ নৌবন্দরে এসে পৌঁছায়। নৌ-প্রটোকল চুক্তির আওতায় ‘বিশেষ মানবিক কারণে’ বাংলাদেশের উপর দিয়ে এ চাল পরিবহনে ভারতকে কোনো শুল্ক বা ব্যাঙ্ক গ্যারান্টি দিতে হচ্ছে না।
তবে বন্দরের ল্যান্ডিং সার্ভিস চার্জ বাবদ সর্বমোট এক লাখ ৬৫ হাজার টাকা পাওয়া যাবে। আশুগঞ্জ থেকে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে আগরতলা পর্যন্ত চাল পরিবহন করে কাভার্ড ভ্যান ভাড়া বাবদ পাওয়া যাবে মোট ৩৫ লাখ টাকা।
মেরামতের কারণে সড়ক ও রেলপথ বন্ধ থাকা এবং দূরত্ব কম ও সময় বাঁচানোর কথা মাথায় রেখে বাংলাদেশের উপর দিয়ে কলকাতা থেকে আগরতলায় চাল পরিবহনের চিন্তা করে ভারত সরকার। মোট ১০ হাজার মেট্রিক টন চাল পরিবহনের সম্মতি দেয় বাংলাদেশ। এরই আওতায় নৌপথে আশুগঞ্জ এসে সড়ক পথে আগরতলায় নেওয়ার জন্য প্রথমে পাঁচ হাজার মেট্রিকটন চাল আসে।
গতকাল চাল পরিবহন করা বাংলাদেশি কাভার্ড ভ্যান সরাসরি ভারতে প্রবেশ করে। আখাউড়া স্থলবন্দর থেকে একজন করে বিএসএফ জোয়ান প্রতিটি ভ্যানের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকে।  চাল যেন দ্রুত খালাস করা যায় সেজন্য ইতিমধ্যেই সেখানে অতিরিক্ত শ্রমিকের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
সড়ক পথে চাল পরিবহনের দায়িত্ব পাওয়া মো. কবির হোসেন বলেন, ‘আকাশের অবস্থা চিন্তা করে ট্রাকের বদলে কাভার্ড ভ্যানে করে আশুগঞ্জ থেকে আগরতলায় চাল পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। একেকটি কাভার্ড ভ্যানে করে ১৭ টন চাল পরিবহন করা হবে। প্রতিটন চাল পরিবহনে সাতশ’ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে’।
আশুগঞ্জ স্থলবন্দরের পরিবহন পরিদর্শক মো. শাহ আলম জানান, বিকেলে পাঁচটি জাহাজ পাঁচ হাজার মেট্রিক টন চাল নিয়ে আশুগঞ্জ নৌবন্দরে এসে পৌঁছায়। বুধবার জাহাজ থেকে চাল নামানো শুরু হয়। ল্যান্ডিং সার্ভিস চার্জ হিসেবে প্রতি টন চালের বিপরীতে ৩৩ টাকা করে নেওয়া হবে।
চাল পরিবহনকারি গালফ্ সিওয়েজ ওরিয়েন্টেড লিমিটেড এর লজিষ্টিক ম্যানেজার মো. নুরুজ্জামান জানান, আশুগঞ্জ থেকে সড়ক পথে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে চাল নেওয়া শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার তিনটি কাভার্ড ভ্যানে করে চাল যায়। তবে পরবর্তীতে এক দিনে আরও বেশি পরিমান চাল পৌঁছানো হবে। সাড়ে তিনশ’ ট্রাকে করে এসব চাল পরিবহনে অন্তত ১০-১২ দিন লাগবে ।
জানা গেছে, কলকাতা থেকে শিলিগুড়ি, শিলং হয়ে সড়ক পথে আগরতলার দূরত্ব ১৬৫০ কিলোমিটার। অন্যদিকে কলকাতা থেকে জলপথে আশুগঞ্জের দূরত্ব মাত্র ৩৬৫ কিলোমিটার। সড়ক পথে আশুগঞ্জ থেকে আখাউড়ার দূরত্ব প্রায় ৫৮ কিলোমিটার। যে কারণে পরিবহন খরচ ও সময় বাঁচাতে বাংলাদেশের ভেতর দিয়ে চাল পরিবহনের সিদ্ধান্ত নেয় ভারত।
প্রসঙ্গত, এর আগে ত্রিপুরার পালাটানা বিদুৎ কেন্দ্র নির্মাণের জন্য বাংলাদেশের উপর দিয়ে যন্ত্রপাতি পরিবহন করে ভারত। ওই সময়ও কোনো শুল্ক দেওয়া হয় নি। ওই অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ পালাটানা থেকে বাংলাদেশকে ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ দিতে রাজি হয়েছে ভারত।

এ জাতীয় আরও খবর

এ সফর ছিল সংক্ষিপ্ত কিন্তু অত্যন্ত ফলপ্রসূ : প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিতে আফগানিস্তান, অস্ট্রেলিয়ার বিদায়

স্ত্রীর সঙ্গে দীর্ঘদিন যোগাযোগ বন্ধ মেসির?

ইতিহাস গড়তে একসঙ্গে রজনীকান্ত-সালমান

ঈদযাত্রায় সড়কে ২৬২ জনের মৃত্যু

রাসেলস ভাইপার নিয়ে যা বলছেন বেদেরা

সংবাদ সম্মেলনে আসছেন মির্জা ফখরুল

কোপা মিশনে সকালে মাঠে নামছে ব্রাজিল, দেখবেন যেভাবে

ভোরে আফগানদের মুখোমুখি বাংলাদেশ, সেমিতে খেলতে যা করতে হবে

পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি অগ্রহণযোগ্য : নোয়াব

গাজীপুরের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সাময়িক বরখাস্ত

বাংলাদেশ থেকে যাওয়া ১৩ কোটি ডলার রেমিট্যান্সের ৫ কোটিই ভারতের