শুক্রবার, ২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডুবে যাওয়া লঞ্চে ছিলেন নৌমন্ত্রীর তিন ভাগ্নি

akbor aliপদ্মায় ডুবে যাওয়া পিনাক-৬ লঞ্চে নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাহজান খানের তিন ভাগ্নি ছিলেন। তাদের মধ্যে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। অন্য দুজন এখনো নিখোঁজ। আজ মঙ্গলবার দুপুরে মাওয়ায় উদ্ধার অভিযান পর্যবেক্ষণকালে শাজাহান খান সাংবাদিকদের এ কথা জানান।নৌ-পরিবহনমন্ত্রী বলেন, 'লঞ্চডুবির ঘটনায় কোনো কোনো পরিবারের ১০ জন পর্যন্ত লোক নিখোঁজ হয়েছে। এমনকি আমার খালাতো বোনের তিন মেয়েও লঞ্চে ছিল। এর মধ্যে একজন শিকদার মেডিকেলের ছাত্রী, আরেকজন একটি কলেজের ছাত্রী। অন্যজন গ্রামে পড়াশোনা করে। তাদের নাম স্বর্ণা, হিরা ও লাকি। এদের মধ্যে শিকদার মেডিকেলের ছাত্রী হিরার লাশ গতকাল উদ্ধার করা হয়েছে। দুজন এখনো নিখোঁজ।'

শাজাহান খান সাংবাদিকদের বলেন, 'লঞ্চটিতে কাওড়াকান্দি ঘাট থেকে দেড়শ' বা ১৬০ জন যাত্রী ওঠে। যদি ওই যাত্রী নিয়ে আসত, তাহলে এত বড় দুর্ঘটনা ঘটত না। কাঁঠালবাড়ি ঘাটে এসে আবার ৮০ থেকে ১০০ জন যাত্রী লঞ্চে ওঠানো হয়। এতে সব মিলিয়ে ২৫০ জনের মতো যাত্রী ছিল ওই লঞ্চে। এর মধ্যে নিখোঁজ যাত্রীর সংখ্যা ১২৫ জন, উদ্ধার হওয়া যাত্রীর সংখ্যা ১১০ জন। আমরা আগেই ধারণা করেছিলাম, ডুবে যাওয়া লঞ্চে যাত্রীর সংখ্যা ২০০ থেকে ২৫০ জন হবে।'

গতকাল সোমবার মুন্সীগঞ্জের মাওয়ায় দুই শতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায় পিনাক-৬। এখনো উদ্ধার অভিযান চলছে।