মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা

00000

আমিরজাদা চৌধুরী: ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিভিল সার্জন অফিসের অধীনে স্বাস্থ্য সহকারীসহ বিভিন্ন পদে ১৭২ জন লোক নিয়োগে ব্যাপক ঘুষ-দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এক চাকুরী প্রার্থী সিভিল সার্জন নারায়ন চন্দ্র দাশসহ ৪ জনকে আসামী করে বুধবার রাতে কসবা থানায় একটি অভিযোগও দিয়েছেন। মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রীর সুপারিশের পরও এক চাকুরী প্রার্থীর কাছে ৩ লাখ টাকা ঘুষ দাবীর অভিযোগ করা হয়েছে সিভিল সার্জনের বিরুদ্ধে। আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রীর দু-উপজেলা কসবা ও আখাউড়ায় নিয়োগে বিধি বিধান না মানার অভিযোগ করেছেন মন্ত্রীর ব্যাক্তিগত সহকারী। পুরো নিয়োগে মেধা-যোগ্যতা বা কোটার তোয়াক্কা না করে টাকার অংক বিবেচনায় সিভিল সার্জন নিয়োগ সম্পন্ন করেছেন বলেই অভিযোগ উঠেছে সব মহল থেকে। এ নিয়োগে কমপক্ষে ৮/১০ কোটি টাকা বানিজ্যের অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। এদিকে চূড়ান্ত নিয়োগ তালিকা প্রকাশের পর থেকেই গা ঢাকা দিয়ে আছেন সিভিল সার্জন। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উপস্থিত না থেকেও নিয়োগ প্রাপ্তদের যোগদানপত্র ও স্বাস্থ্য পরীক্ষার সনদে স্বাক্ষর করার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ মিলেছে সিভিল সার্জনের বিরুদ্ধে। সিভিল সার্জন কার্যালয় সুত্র জানায়,চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি দৈনিক ইত্তেফাক ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ওয়েব সাইটে স্বাস্থ্য বিভাগের অধীনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সকল উপজেলায় স্বাস্থ্য সহকারী শূন্য পদে ১০৭ জন, অফিস সহকারী পদে ২, পরিসংখ্যান পদে ২, জুনিয়র মেকানিক পদে ৩, কুক মশালচি (বাবুর্চি) পদে ৬, ঝাড়–দার পদে ১২, আয়া ১০, মালি পদে ২, এমএলএসএস পদে ১৪, ওয়ার্ড বয় পদে ৬ জন,নিরাপত্তা প্রহরী পদে ৭ জন  নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। মোট ১৭২ পদে নিয়োগ পেতে ১০ হাজার ৫০০ জন আবেদন জমা দেন। চলতি বছরের ২৮ মার্চ নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতি পদের বিপরীতে ৫ জনকে পাশ দেখিয়ে ৩ এপ্রিল ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ১৬ মে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কর্মকর্তার কার্যালয়ে মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। গত ২৪ শে জুলাই নিয়োগের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হয়। তালিকা প্রকাশের পর সিভিল সার্জনের নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগ ছড়িয়ে পড়ে মুখেমুখে। টাকার পরিমান কম দেয়ায় অনেকে চাকুরী পাননি বলে অভিযোগ করেন। ৫/৬ লাখ টাকা করে যারা দিয়েছেন শুধু তাদেরই চাকুরী হয়েছে বলে জানান বঞ্চিতরা। অনেকে টাকা ফেরত পাওয়ার জন্যে ভীড় জমান সিভিল সার্জন অফিসে।
ঘুষ নিয়েও চাকুরী না দেয়ার অভিযোগে মামলা: ১৩ চাকুরী প্রার্থী কসবা উপজেলার জাজিসার গ্রামের রাহাত সুলতানা, কুটি গ্রামের সফিউল হক, আড়াইবাড়ী গ্রামের সৌজনা আক্তার, শাহপুর গ্রামের ফোরকানুল হক ভ্ইূয়া, আড়াইবাড়ী গ্রামের মাকসুদুর রহমান, মইনপুর গ্রামের জহিরুল ইসলাম, চড়নাল গ্রামের নয়নতারা, দিনা আক্তার, রানিয়ারা গ্রামের মো. বাছির মিয়া, মূলগ্রাম গ্রামের ফারজানা আক্তার, মজলিশপুর গ্রামের সেলিনা আক্তার এবং হুমায়ুন কবির  কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের  কোষাধ্যক্ষ বিল্লাল চৌধুরী, অফিস সহকারী রাজিয়া সুলতানা ও নিরাপত্তা প্রহরী আতাউর রহমান শাহিনের মাধ্যমে সিভিল সার্জন নারায়ন চন্দ্র দাসকে এ বছরের ১২ ই মে ৩৬ লাখ টাকা প্রদান করেন। এই টাকা গ্রহন করে সিভিল সার্জন তাদেরকে আশ্বস্থ করে বলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজির সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তাদের চাকুরী হবে। কিন্তু নিয়োগের ফল প্রকাশের পর তারা দেখেন তালিকায় তাদের নাম নেই। এরপর প্রথমে তারা বিল্লালের সঙ্গে যোগাযোগ করলে বিল্লাল তাদেরকে সিভিল সার্জনের কাছে যেতে বলেন। তারা ব্রাহ্মণবাড়িয়া এসে সিভিল সার্জনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তাদেরকে সিভিল সার্জন হুমকী দিয়ে বলেন টাকা চাইলে পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে দেব। এ ঘটনায় রাহাত সুলতানা বাদী হয়ে বুধবার রাতে সিভিল সার্জন নারায়ন চন্দ্র দাশসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে কসবা থানায় একটি অভিযোগ দেন। কসবা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মফিজ উদ্দিন ভূইয়া জানান,অভিযোগটি আমরা জিডি (নং ১২৬০)  হিসেবে রেকর্ড করেছি। অভিযুক্ত ব্যক্তিগন যেহেতু সরকারী চাকুরীজীবি এবং বিষয়টি দুদকের এখতিয়ার বিধায় উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে থানায় একটি সাধারণ ডাইরী করে পুলিশ সুপারের মাধ্যমে তা দুদকে প্রেরণ করা হয়েছে। এতে সিভিল সার্জন ছাড়াও অফিস সহকারী রাজিয়া সুলতানা,নৈশ প্রহরী আতাউর রহমান শাহিন এবং কোষাধ্যক্ষ বিল্লাল চৌধুরীকে আসামী করা হয়েছে।
মন্ত্রীর সুপারিশের পর ৩ লাখ টাকা ঘুষ দাবী: মন্ত্রীর সুপারিশের পরও ৩ লাখ টাকা দিতে না পারায় চাকুরী হলোনা মো: মুছা মিয়ার। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিভিল সার্জন অফিসের অধীনে স¤প্রতি বিভিন্ন পদে লোক নিয়োগে ঝাড়–দার পদে চাকুরী প্রার্থী হয়েছিলেন মুছা। মুছা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বর্ষীয়ান আওয়ামীলীগ নেতা সদর আসনের প্রয়াত সংসদ সদস্য এডভোকেট লুৎফুল হাই সাচ্চুর বাসার গৃহপরিচারক ছিলেন। ২০১০ সালে এডভোকেট সাচ্চুর মৃত্যুর পর থেকে তিনি রিকসা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। এই অবস্থায় স্বাস্থ্য বিভাগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিভিল সার্জন অফিসের অধীনে বিভিন্ন পদে লোক নিয়োগ করার জন্যে দরখাস্ত আহবান করলে   ঝাড়–দার পদের জন্যে আবেদন করেন। লুৎফুল হাই সাচ্চুর পরিবারের পক্ষ থেকে তার চাকুরীটি নিশ্চিত করার জন্যে চেষ্টা করা হয়। এরই অংশ হিসেবে সাচ্চু পরিবারের শুভাকাঙ্খি মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী এডভোকেট সায়েদুল হক সিভিল সার্জন নারায়ন চন্দ্র দাশকে গত ১৪ ই মে মুছা মিয়ার চাকুরীর জন্যে সুপারিশ করেন। তখন সিভিল সার্জন মন্ত্রীকে আশ্বস্থ করেন মুছা মিয়ার চাকুরী হবে। এরপরই মুছা সিভিল সার্জনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে সিভিল সার্জন নারায়ন চন্দ্র দাশ তাকে বলেন মন্ত্রী বললেই তো হবেনা। কমপক্ষে ৩ লাখ টাকা দিতে হবে। সিভিল সার্জনের এই কথায় মুছা বিচলিত হলেও আশা ছিলো তার চাকুরী হবে। গত ২৪ শে জুলাই নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর মুছা দেখেন সত্যিই তার চাকুরী হয়নি। মুছা জানান,মন্ত্রীর ফোনের পর তিনি সিভিল সার্জনের সঙ্গে গিয়ে দেখা করেছিলেন। তখন সিভিল সার্জন নিজে ও তার বাসার এক ষ্টাফ সরাসরি তার কাছে টাকা দাবী করে বলেন মন্ত্রী বললেই চাকুরী হয়না। কমপক্ষে ৩ লাখ টাকা দিতে হবে। এই টাকার ভাগ স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে দিতে হবে। এদিকে নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর এডভোকেট লুৎফুল হাই সাচ্চু পতœী ফরিদা হাই  স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রী মো: নাসিমের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এতে তিনি বলেন মো: মুছা মিয়া অল্প বয়স থেকেই আমাদের ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাসায় গৃহপরিচারকের কাজ করে আসছে। বিশেষ করে প্রয়াত নেতা এডভোকেট লুৎফুল হাই সাচ্চুর ফুট ফরমায়েশ করা ছিলো তার অন্যতম কাজ। এডভোকেট সাচ্চুর ইচ্ছে ছিলো সুযোগ মতো তার একটি সরকারী চাকুরীর ব্যবস্থা করার। কিন্তু আকস্মিক মৃত্যুর কারনে তার পক্ষে সেটা সম্ভব হয়নি। এবার স্বাস্থ্য বিভাগে বিভিন্ন পদে লোক নিয়োগের জন্যে দরখাস্ত আহবান করলে মুছার ঝাড়–দার পদের জন্যে একটি আবেদন করেন। তার চাকুরীটি নিশ্চিত ভাবে যাতে হয় সেজন্যে আমাদের পরিবারের শুভাকাঙ্খি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সর্বজন শ্রদ্ধেয় রাজনীতিবিদ মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী এডভোকেট সায়েদুল হক সিভিল সার্জনকে ফোন করে মুছাকে চাকুরী দেয়ার জন্যে সুপারিশ করেন। তখন সিভিল সার্জন মন্ত্রীকে আশ্বস্থ করলেও পরে মুছার কাছে ৩ লাখ টাকা ঘুষ দাবী করেন। এতে মুসার চাকুরীর বিষয়টি মানবিক কারনে বিবেচনা করার এবং সিভিল সার্জনের নিয়োগ দূর্নীতির বিচার দাবী করেন। এদিকে এই নিয়োগে জেলার মন্ত্রী-এমপিদের সুপারিশের কোন তোয়াক্কা না করে টাকার বিনিময়ে চাকুরী দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। জেলার কসবা-আখাউড়া থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী এডভোকেট আনিসুল হক এর একান্ত ব্যাক্তিগত সহকারী এডভোকেট রাশেদুল কায়সার জীবন বলেন কসবা-আখাউড়ার নিয়োগে সিভিল সার্জন বিধিমালা অনুসরণ না করে সম্পূর্ণ দূর্নীতির মাধ্যমে ২২ জনকে নিয়োগ দিয়েছেন। 

এভরি বডি গুড হেলথ: ২৪ শে জুলাই রাতে নিয়োগের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পরদিন থেকে গত এক সপ্তাহ ধরে কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছেন সিভিল সার্জন। ২৫ জুলাই থেকে ৩০ শে জুলাই পর্যন্ত ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জনের দায়িত্ব পালন করেন সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার শওকত হোসেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সিভিল সার্জনের কর্মস্থলে আসার কথা থাকলেও তিনি কর্মস্থলে আসেননি। চট্রগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা:আলাউদ্দিন মজুমদার ফোনে জানান  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন অনঅনুমোদিত ভাবে কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছেন। এরমধ্যেই ২৭ শে জুলাই এর তারিখে সিভিল সার্জন নতুন নিয়োগ প্রাপ্তদের যোগদানপত্রে স্বাক্ষর করেন। চাঞ্চল্যকর বিষয় হচ্ছে ঐ তারিখেই সকল নিয়োগপ্রাপ্তদের স্বাস্থ্য সনদ ইস্যু করেন সিভিল সার্জন। সিভিল সার্জন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অনুপস্থিত থেকে কিভাবে স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন করলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। সুত্র জানায়, সিভিল সার্জন অফিসের হিসাব রক্ষক খন্দকার শফিকুর রহমান স্বাস্থ্য সনদ ও যোগদানপত্র নিয়ে ঢাকায় যান। সেখানে বসে সিভিল সার্জন এসবে স্বাক্ষর করেন।  ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা: শওকত হোসেন জানিয়েছেন ২৭ তারিখ সিভিল সার্জন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসেছিলেন কিনা তার জানা নেই।স্বাস্থ্য পরীক্ষা নেয়া হয়েছে কিনা তাও তিনি জানেননা। সিভিল সার্জন নারায়ন চন্দ্র দাশ ফোনে বলেছেন অভিযোগ উঠলেই তা সত্য হয়ে যায়না। তিনি আরো বলেন যোগদানপত্র য়েখানে খুশি সেখানে বসেই স্বাক্ষর করা যায়। চাকুরী প্রার্থীদের সবার স্বাস্থ্য ভালো সেটা তিনি আগেই দেখেছেন। গতকাল সিভিল সার্জনের অফিসে গিয়ে দেখা গেছে সিভিল সার্জনে কক্ষ তালাবদ্ধ। অফিসের আরো অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারী অনুপস্থিত।

এ জাতীয় আরও খবর

এ সফর ছিল সংক্ষিপ্ত কিন্তু অত্যন্ত ফলপ্রসূ : প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিতে আফগানিস্তান, অস্ট্রেলিয়ার বিদায়

স্ত্রীর সঙ্গে দীর্ঘদিন যোগাযোগ বন্ধ মেসির?

ইতিহাস গড়তে একসঙ্গে রজনীকান্ত-সালমান

ঈদযাত্রায় সড়কে ২৬২ জনের মৃত্যু

রাসেলস ভাইপার নিয়ে যা বলছেন বেদেরা

সংবাদ সম্মেলনে আসছেন মির্জা ফখরুল

কোপা মিশনে সকালে মাঠে নামছে ব্রাজিল, দেখবেন যেভাবে

ভোরে আফগানদের মুখোমুখি বাংলাদেশ, সেমিতে খেলতে যা করতে হবে

পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি অগ্রহণযোগ্য : নোয়াব

গাজীপুরের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সাময়িক বরখাস্ত

বাংলাদেশ থেকে যাওয়া ১৩ কোটি ডলার রেমিট্যান্সের ৫ কোটিই ভারতের