শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লিবিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ২ বাংলাদেশি নিহত

libya_reuters_328-340x210লিবিয়ায় ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত হয়েছেন দুই বাংলাদেশি শ্রমিক। ময়না তদন্ত শেষে ক্ষতিপূরণসহ তাদের লাশ দু’একদিনের মধ্যেই দেশে নিয়ে আসা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. খোন্দকার শওকত হোসেন।

রোববার রাতে লিবিয়ার সময় রাত সোয়া ১০টায় বেনগাজী শহরের একটি পানি বিশুদ্ধকরণ কারখানার আবাসিক ক্যাম্পে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত হন শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলার মোহাম্মদ মিলন ও  তার ভাই মোহাম্মদ স্বপন।

এ ঘটনায় আরও দুজন বাংলাদেশি আহত হয়েছেন। এর মধ্যে ইব্রাহিম নামের একজনকে চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আহত অন্যজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার নাম কামাল।

সেখান থেকে আরও ২৮ বাংলাদেশি শ্রমিককে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. খোন্দকার শওকত হোসেন অর্থসূচককে জানান, লিবিয়ায় সন্ত্রাসীদের হামলায় দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছে। ঘটনার পর দূতাবাসের পক্ষ থেকে শ্রমিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। আজ ময়না তদন্ত হচ্ছে।  খুব শীঘ্রই ক্ষতিপূরণসহ তাদের মরদেহ দেশে নিয়ে আসা সম্ভব হবে। তারা যে কোম্পানিতে চাকরি করতো তাদের সাথেও দুতাবাসের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে।

বিএমইটি সূত্র জানায়, ২০১১ সালে লিবিয়াতে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর দেশটি থেকে ৩৬ হাজার বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে আনা হয়। পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হলে গত দুই বছরে ২১ হাজার বাংলাদেশি নতুন করে সেখানে গেছেন। বৈধ-অবৈধ মিলিয়ে সেখানে প্রায় ৪৫ হাজার বাংলাদেশি আছেন। এর একটা বড় অংশই থাকেন বেনগাজী শহরে। কিন্তু গত কয়েক মাস ধরে সেখানে ইসলামপন্থী ও ন্যাশনাল আর্মি নামে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। দুই পক্ষই ভারী আগ্নেয়াস্ত্র, স্বল্প পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র  নিয়ে যুদ্ধ করছে। প্রায়ই এসব গুলি ও ক্ষেপণাস্ত্র লক্ষ্যচুত হয়ে সাধারণ মানুষের প্রাণহানি ঘটছে।

এর আগে ফেব্রুয়ারি ও মার্চে বেনগাজীতে গুলিবিদ্ধ হয়ে তিনজন বাংলাদেশি মারা যান। আহত হন কয়েকজন। সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে লিবিয়ায় অবস্থানরত সব বাংলাদেশিকে গত মার্চ থেকেই সতর্কভাবে চলাফেরার পরামর্শ দিয়েছে সেখানকার বাংলাদেশি দূতাবাস। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারাও বেনগাজীতে অবস্থানরত ২৫ হাজার বাংলাদেশিকে সাবধানে থাকতে বলেছে।

বাংলাদেশি ছাড়াও লিবিয়াতে নিয়মিতই নিহত হচ্ছে বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা। এরমধ্যে ১২ মার্চ একজন ভারতীয় চিকিৎসক ও ২২ মার্চ সাতজন মিসরীয়কে গুলি করে হত্যা করা হয়। এর আগে বেনগাজিতে মার্কিন দূতাবাসে হামলায় লিবিয়ার মার্কিন রাষ্ট্রদূতসহ চারজন মার্কিন নাগরিক নিহত হন। গত এক বছরে এভাবে শতাধিক বিদেশি নাগরিককে হত্যা করে লিবিয় বিদ্রোহীরা।

সূত্র : অর্থসূচক

এ জাতীয় আরও খবর

নজরুল পুরস্কার পেলেন চার গুণী

জামানত হারিয়েছেন ওবায়দুল কাদেরের ভাই শাহাদাত

ভিসা হয়নি ২৯২ হজযাত্রীর, ৯ এজেন্সির ব্যাখ্যা তলব

শাকিবের জীবনে প্রথম প্রেমিকা আমি : অপু বিশ্বাস

সাকিবের দলে খেলবেন মিলার

র‍্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উত্তম কুমারের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

বেনজীরের বিরুদ্ধে টাকা সরানোর প্রমাণ পেয়েছে দুদক

ঈদযাত্রায় একদিন একটু কষ্ট হলে কী আসে-যায়: কাদের

ফরিদপুর-১ আসনের সাবেক এমপি মনজুর হোসেন আর নেই

দস্যুতা না ছাড়লে দুঃসংবাদের খবর দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘দেশের সবচেয়ে লাভজনক’ কক্সবাজার স্পেশাল ট্রেন বন্ধ

সরকারের স্বার্থ নয়, জনগণের অধিকার নিশ্চিতে কাজ করব : ইসির নতুন সচিব