মঙ্গলবার, ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও চাকরি না পেতে পারেন দুটি কারণে

need jobকোনো একটি চাকরির জন্য আপনি কি নিজেকে যথেষ্ট যোগ্য বলে মনে করছেন? চাকরিটির জন্য তাদের চাহিদা অনুযায়ী আপনার যথেষ্ট যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা, স্মার্টনেস ইত্যাদি আছে? কিন্তু জানেন কি, যথেষ্ট পরিমাণ যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা ও ব্যক্তিত্ব থাকার পরেও আপনি কিছু কারণে চাকরি নাও পেতে পারেন? এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার। চাকরি না পাওয়ার কারণগুলো অতি সামান্য হওয়ায় তা অনেকের কাছে বিশ্বাসযোগ্য মনে নাও হতে পারে। কিন্তু এ সামান্য কারণগুলোর ভুক্তভোগি হতে হয় বহু স্মার্ট মানুষকে। কারণগুলো হলো-
১. স্মার্ট ও যোগ্যদের প্রোফাইল বড় ও বিস্তারিত থাকে
বুদ্ধিমান ও স্মার্ট মানুষদের অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো তারা অল্প সময়ের মধ্যেই বহু কাজ করতে পারেন। এতে তাদের প্রোফাইলও অনেক ভারি দেখা যায়। অন্য লোকজনের যেসব অর্জন করতে ২০ বছর সময় লাগে, তাদের অনেকেই ১০ বছরেই সেসব অর্জন দেখা যায়। ক্ষেত্রবিশেষে অনেকে অল্প বয়সেই এত অভিজ্ঞতা অর্জন করেন যে নিয়োগকর্তার কাছে তা হিতে বিপরীত হয়ে যায়। এক্ষেত্রে মূল সমস্যা হয় উপস্থাপনে। স্মার্ট ব্যক্তিরা স্বভাবতই তাদের অভিজ্ঞতার বিস্তারিত সিভিতে তুলে ধরেন। প্রত্যেকটি অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতা তুলে ধরতে গিয়ে বহু বিষয় উল্লেখ করতে হয় সিভিতে। আর তারা যখন চাকরির জন্য কোথাও আবেদন করেন, সেখানকার নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ সিভি থেকে তাদের প্রয়োজনীয় অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতা খুঁজে পায় না। আর সময়মতো প্রয়োজনীয় তথ্য খুঁজে না পাওয়ায় তাদের চাকরির সম্ভাবনাও কমে যায়। এছাড়া বড় সিভি দেওয়া হলেও নিয়োগকারী সিভি দেখার জন্য অল্প কয়েক সেকেন্ড সময়ই ব্যয় করে। ফলে তাদের কাছে আবেদনকারিকে অন্য কোনো পদের জন্য যোগ্য বলেই মনে হয়।
এ সমস্যা সমাধানে চাকরিপ্রার্থীকে প্রয়োজন অনুযায়ী সিভি কাটছাট করে সঠিক বিষয়গুলো উপস্থাপন করা প্রয়োজন। এ ছাড়াও চাকরিদাতার চাহিদা পূরণের জন্য প্রয়োজনীয় অভিজ্ঞতা, যোগ্যতা, দক্ষতা ইত্যাদি হাইলাইট করা অত্যন্ত দরকারি একটি বিষয়।
২. ইন্টারভিউতে নিজেকে যথাযথভাবে তুলে না ধরা
কোনো একটি কাজের জন্য যথেষ্ট দক্ষ ও অভিজ্ঞ মানুষ অনেক সময়েই কাজের মাধ্যমে তাদের সে যোগ্যতার প্রমাণ দিতে ভালোবাসেন। তাদের অনেকেই ইন্টারভিউতে তাদের সে যোগ্যতার প্রমাণ জোর গলায় উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হন। কিন্তু কোনো একটি প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পেতে হলে প্রথমে ইন্টারভিউ পর্যায় পার হতে হয়। সেখানে নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষকে সন্তুষ্ট করার পরে চাকরিতে ঢুকে তারপর কাজের প্রমাণ দেওয়া সম্ভব হয়। এর আগের পর্যায় পর্যন্ত অনেক উপযুক্ত প্রার্থী নিজের যোগ্যতা যথাযথভাবে প্রমাণ করতে পারেন না। ফলে তাদের চাকরি থেকেও বঞ্চিত হতে হয়।
এ সমস্যা সমাধানে চাকরিপ্রার্থীর ইন্টারভিউতে গিয়ে কীভাবে নিজের যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা উপস্থাপন করতে পারবেন তা শিখে নেওয়া প্রয়োজন। তাদের চাকরির জন্য আপনার কী কী যোগ্যতা আছে তা নিয়োগকারীকে জানিয়ে দেওয়া আপনার নিজের জন্যই প্রয়োজনীয় একটি বিষয়।

এ জাতীয় আরও খবর

মেয়রের সামনে কাউন্সিলরকে জুতাপেটা করলেন চামেলী!

নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন

নির্বাচনের পর আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে সরকার : ফখরুল

২৪ উপজেলায় ইভিএমে ভোট হবে মঙ্গলবার

এলজিইডি’র সেই প্রকৌশলীর স্ত্রীরও ৬ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ!

রাইসির হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় আমরা জড়িত নই: ইসরায়েলি কর্মকর্তা

কঠোরভাবে বাজার মনিটরিংয়ের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

‘গিভ অ্যান্ড টেকের অফার অনেকেই দেয়, মেডিকেলের স্যারও দিয়েছিল’

বিয়ের পর আমার কাজের মান ভালো হয়েছে

৪ দিনেও খোঁজ মেলেনি ভারতে নিখোঁজ এমপি আনারের

বঙ্গবন্ধু শান্তি পদক দেবে সরকার, পুরস্কার কোটি টাকা ও স্বর্ণ পদক

অটোরিকশা চালকদের তাণ্ডবের ঘটনায় ৪ মামলা, আসামি প্রায় ২৫০০