বুধবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্রদূতদের দৌড়ঝাঁপের প্রটোকলে কাহিল প্রশাসন

emegrationবাংলাদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনারদের দৌড়ঝাঁপ হঠাৎ করে ব্যাপক হারে বেড়ে গেছে। প্রায় প্রতিদিনেই কোথাও না কোথাও তারা সাক্ষাৎ, সৌজন্য সাক্ষাৎ, একান্ত সাক্ষাৎ, চা চক্র, মধ্যাহ্নভোজ, নৈশভোজ কিংবা মতবিনিময় সভার নামে বৈঠকে বসছেন। সেখানে উপস্থিত থাকছেন আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াতসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, সরকারি আমলা, ব্যবসায়ী, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ নানা পেশার লোকজন। রাষ্ট্রদূত ও হাই কমিশনারদের হঠাৎ দৌড়ঝাঁপ বেড়ে যাওয়ায় তাদের নিরাপত্তা দিতে গিয়ে কাহিল অবস্থা এখন প্রশাসনের।

পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, যানজটের এই শহরে মন্ত্রীসহ উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের চলাচল নিবিঘ্ন করতেই তাদের দম ফেলানোর সময় থাকে না। এর মধ্যে নতুন ‘উপদ্রব’ শুরু হয়েছে বিদেশি রাষ্ট্রদূত ও হাই কমিশনারদের প্রটোকল প্রদান। তাদের নিরাপত্তা ও চলাচল নির্বিঘ্ন করতে গাড়িবহর নিয়ে এস্কট দিতে হচ্ছে। অনুষ্ঠানস্থল ঘিরে জোরদার করতে হয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। কূটনীতিকদের নিরাপত্তা নিয়ে কাজ করে এমন একটি গোয়েন্দা সংস্থার পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর থেকে চলতি বছরের মে পর্যন্ত গত ৯ মাসে ২৭০ দিন কোথাও না কোথাও বিদেশি রাষ্ট্রদূতদের এমন কর্মসূচি ছিল। এদের মধ্যে আমেরিকান রাষ্ট্রদূত ৫৭ দিন, ইউকে রাষ্ট্রদূত ২৪ দিন, কানাডিয়ান রাষ্ট্রদূত ২০ দিন, জার্মান রাষ্ট্রদূত ১১ দিন এবং ইইউ রাষ্ট্রদূত ১১ দিন বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন কিংবা অন্যের অনুষ্ঠানে যোগ দেন। এ ছাড়াও নেদারল্যান্ড, ডেনমার্ক ও অস্ট্রেলিয়ার রাষ্ট্রদূত ও হাই কমিশনারদের দৈনন্দিন কর্মসূচিতে স্থান পাচ্ছে রাজনৈতিক দলের নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ, একান্ত সাক্ষাৎ, মধ্যহ্নভোজ ও নৈশভোজ। গড় হিসাবে একদিন পর পর তারা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। ওই সময়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মোজেনা ব্যস্ত সময় কাটান।

তিনি সাবেক রাষ্ট্রদূত ফারুক সোবহান, জামায়াত নেতা ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক, সাবেক শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া, ব্যারিস্টার ফজলুল হক, ব্যবসায়ী শাহ নেওয়াজ, ব্যবসায়ী রাফান, শেখ রেহানা, তোফায়েল আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়, গওহর রিভভী, ড. হাসান মাহমুদ, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, সেলিমা রহমান, শমসের মবিন চৌধুরী, ড. ওসমান ফারুক, ড. মঈন খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিজিবি ডিজি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুল আজিজ, এয়ার কমোডর ফজলুল হক, মফিদুল আনিস, বিনিয়োগ বোর্ডের চেয়ারম্যান এস এ সামাদ, অ্যাডভোকেট আদিলুর রহমান শুভ, বদিউল আলম মজুমদার, সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ, সামিট গ্রুপের চেয়ারম্যান আজিজ খান, ওরিয়ন গ্রুপের চেয়ারম্যান সালমান ওবায়দুল করিম, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। প্রায় একই ব্যক্তিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ইউকে হাই কমিশনার রবার্ট গিবসন। কানাডীয় হাই কমিশনার, ইইউ রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হানা, জার্মান রাষ্ট্রদূত বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এই রাষ্ট্রদূত কিংবা হাই কমিশনাররা তাদের দফতর ও বাসভবন ছাড়াও গুলশান, বনানী, বারিধারার হোটেল রেস্টুরেন্ট যেমন হোটেল সোনারগাঁও, হোটেল ওয়েস্টিন, সল্টস রেস্টুরেন্ট, হোটেল লেকশোর, হোটেল সারিনা, ভিলা আইডিয়াস রেস্ট হাউসে বৈঠক করেন। বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শনের নাম করে তারা ঢাকার বাইরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও, নড়াইল, মাগুরা, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, কুষ্টিয়া, যশোর, সাতক্ষীরা, ঝিনাইদহ, চট্টগ্রাম, রাঙামাটি, কক্সবাজার, বরিশাল, বরগুনা, পটুয়াখালী, বগুড়া, রংপুর, গাইবান্ধা, টাঙ্গাইল, সিলেট, মৌলভীবাজার, দিনাজপুর, রাজশাহীসহ বিভিন্ন এলাকায় যান। সেখানে তারা জেলার পুলিশ সুপার এবং জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে দেখা করে বিভিন্ন বিষয়ে কথাও বলেন। সেখানেও স্থানীয় প্রশাসনকে তাদের প্রটোকল দিতে গিয়ে ব্যতিব্যস্ত থাকতে হয়। বা প্র

এ জাতীয় আরও খবর

বিএনপি নেতা টুকুর বক্তব্য শিষ্টাচারবহির্ভূত ও কুরুচিপূর্ণ: জামায়াত

মাথা দিয়ে বাংলাদেশকে উড়িয়ে দিলেন অঞ্জন

ক্যাম্পাসে ফিরেছেন রিভা-রাজিয়া

পরীক্ষার সিরিজে প্রত্যাশিত জয় টাইগারদের

প্রেমিকাকে পেতে স্ত্রীকে বিষ খাইয়ে হত্যা

রাজনৈতিক সহিংসতা ও নির্বাচনী অস্থিতিশীলতা বিনিয়োগকারীদের ভীত করে: পিটার হাস

গৃহবধূকে ধর্ষণের পর হত্যায় ৯ জনের যাবজ্জীবন

নিহত রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহর ১৪ স্বজন কানাডায়

টুকু জনগণের ভাষায় কথা বলতে পারেন না: জামায়াত

‘সাবধানে যাবি, তাড়াতাড়ি আসবি’: মেয়ের সঙ্গে বাবার শেষ কথা

প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা বার্তা লিখবে দেড় কোটি শিক্ষার্থী

মানুষের জন্য চিকিৎসা নেই, বেকারদের জন্য কাজের নিশ্চয়তা নেই : জিএম কাদের