বৃহস্পতিবার, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

যে কারণে গুগলের চাকরি করবেন না

শুয়ে বসে আরাম-আয়েশের চাকরি গুগলে! ভাবছেন এমন চাকরি পেলে ভালোই হতো। তবে বাস্তবতা কিন্তু ভিন্ন। গুগলে চাকরির ক্ষেত্রে পাঁচটি নেতিবাচক দিক নিয়ে পেশাদারদের নেটওয়ার্ক লিংকডইনে লিখেছেন ‘ক্যারিয়ালিজম’-এর প্রধান নির্বাহী জে.টি. ওডনেল। ক্যারিয়ালিজম হচ্ছে পেশাদার চাকরি সম্পর্কে পরামর্শদাতা ম্যাগাজিন। চলুন দেখে নেয়া যাক গুগলে কাজ না করার পক্ষে  ওডনেলের লেখা পাঁচটি কারণ।

গুগলে চাকরি করা অনেকের জন্যই স্বপ্ন সমতূল্য। ওয়েব দুনিয়ার পর এবার নানা উদ্ভাবনের মধ্য দিয়ে বাস্তব জগতকেও নিজেদের মুঠোয় করে নিতে কাজ করে চলা এ কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ খোঁজেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। তবে দুষ্কর হলেও এমন মানুষ যে নেই তা কিন্তু নয়! গুগলে কাজ করার বহু ভালো দিক যেমন রয়েছে, তেমনি কিছু নেতিবাচক দিকও রয়েছে।

আপনাকে ভিন্নভাবে দেখা হবে

প্রতিবছর অসংখ্য প্রার্থী গুগলের বিভিন্ন পদে চাকরির জন্য আবেদন করেন। কিন্তু বেশিরভাগেরই ভাগ্যে গুগলের চাকরি জোটে না। ফলে গুগলে কাজ করাটা যেমন সম্মানের তেমিন কিছুটা অহঙ্কারের বিষয়ও মনে করা হয়। কেউ কেউ গুগলে চাকরি পাবার পর তাদের অতিরিক্ত অহঙ্কার দেখাতে শুরু করেন। ফলে অনেকেই গুগলের কর্মীদের একটু ভিন্ন চোখে দেখেন। ফলে আপনি ব্যক্তিগতভাবে যতই হাসিখুশি আর আন্তরিক হোন না কেন, অনেকখানেই আপনাকে প্রথমেই একটু ভিন্ন চোখে দেখা হবে।

গুগলের চাকরি চলে যাওয়া আশঙ্কা বেশি

গুগলে চাকরি সুতোয় ঝুলে থাকা চাকরি। আপনাকে এমন কিছু মানুষের সঙ্গে সর্বক্ষণ কাজ করে যেতে হবে যারা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন উদ্ভাবনী কাজে সফলতা লাভের জন্য কঠোরভাবে কাজ করে চলেছেন। ফলে সবসময় আপনাকে কাজের মধ্যেই থাকতে হবে। অবসর বলে কিছু নেই। গুগলে কাজ পাওয়া কেবল একটা ধাপ পেরোনো। প্রতিদিন পেশাদারিত্বের পরিচয় দিতে না পারলে বেশিদিন চাকরি নাও থাকতে পারে।

প্রত্যাশা বেড়ে যাবে

গুগলের মতো বড় কোনো কোম্পানিতে চাকরি করার ফলে আপনি নানাবিধ সুবিধা পাবেন । ফলে আপনার চাহিদা আরও বেড়ে যাবে। পরবর্তীতে গুগল ছেড়ে অন্যত্র কাজ করতে যেতে চাইলে গুগলের অন্যান্য সুবিধা খুঁজে পাওয়া  অসম্ভব হবে। আপনার বেড়ে যাওয়া প্রত্যাশা পূরণ করে আপনাকে চাকরি দেবে এমন আশা করাটাও তখন বোকামি হবে।

অন্যত্র চাকরি পাওয়া কঠিন হবে

আপনার মতো ঠিক একই অবস্থা অধিকাংশ চাকরিদাতার ক্ষেত্রেও হবে। আপনার জীবনবৃত্তান্তে গুগলের নাম দেখে হয়তো অনেক চাকরির সাক্ষাত্কারে আপনাকে ডাকা হবে,  কিন্তু গুগলে চাকরি করার ফলে আপনার চাহিদা ছোট প্রতিষ্ঠানগুলো পূরণ করতে পারবে না। সবাই আপনাকে গুগলে কাজ করার অভিজ্ঞতা শোনার জন্য ডাকবে। আপনাকে চাকরি দেওয়ার সামর্থ্য অন্য প্রতিষ্ঠানগুলোর হবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ তৈরি হবে।

খ্যাতির বিড়ম্বনায় পড়বেন

গুগলে ৮০ শতাংশ কর্মীই অন্য গুগল কর্মীর সূত্র ধরেই চাকরি পেয়েছেন। ফলে আপনি গুগলে চাকরি পেয়েছেন এই খবর ছড়িয়ে পড়ামাত্রই আপনার সোশাল মিডিয়া প্রোফাইলে আপনি জনপ্রিয় হয়ে উঠবেন। আপনার সঙ্গে খাতির জমাতে অনেকেই ব্যস্ত হয়ে উঠবেন। শুনতে বেশ রোমাঞ্চকর হলেও একসময় খ্যাতির বিড়ম্বনায় পড়ে যাবেন।

গুগলে চাকরি না করার পক্ষে যুক্তিগুলোকে যথেষ্টই খোঁড়া মনে হতে পারে। কিন্তু চাকরি পাওয়ার পর অনেকেই এই সমস্যাগুলোর মুখোমুখী হয়ে থাকেন। তবে তাই বলে গুগলে চাকরি করার মতো সুযোগ কেউই ছেড়ে দেবেন না যেন! কেননা প্রায় সবাই এই বিষয়ে একমত যে, গুগলে চাকরির মাধ্যমে তারা অনেক কিছু শিখতে পেরেছেন, পেয়েছেন নানা অভিজ্ঞতা।