বুধবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের বেহাল দশা

KSA P Officeসৌদি আরবের রাস্তা-ঘাট, অফিস, হাসপাতাল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার কাজে নিয়োজিত আছে কয়েক লাখের বেশি বাংলাদেশি শ্রমিক। যারা রাত-দিন পরিশ্রম করে তকতকে ঝকঝকে রাখছে সৌদি আরবের বিভিন্ন শহর ও প্রতিষ্ঠান।

যে দেশের শ্রমিকরা সৌদি আরবের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখছে সে দেশের দূতাবাসে গিয়ে দেখা গেছে ভয়ঙ্কর নোংরা পরিবেশ।

চরম অব্যবস্থাপনা এবং ভয়াবহ নোংরা পরিবেশের মধ্য দিয়ে চলছে প্রবাসী বাংলাদেশিদের সেবা দেওয়ার জন্য প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ দূতাবাসের স্বাভাবিক কার্যক্রম।

সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের ওলাইয়ার ওরুদ এলাকায় অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রবেশের ডান দিকের অফিসটি পাসপোর্ট জোন হিসেবে পরিচিত। এ জোনে নতুন ডিজিটাল পাসপোর্ট, মেয়াদ উত্তীর্ণ পাসপোর্ট নবায়নের সেবা দেওয়া হয়।

পাসপোর্ট জোনে ঢুকে ভেতরকার অবস্থা দেখে যে কারো মনে প্রশ্ন জাগতে পারে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন শহর রিয়াদে এমন নোংরা পরিবেশ কিভাবে সম্ভব?

পাসপোর্টের মতো গুরুত্বপূর্ণ জোনে পাসপোর্ট সম্পর্কিত যে কোনো সমস্যা জানার কোনো ডেস্ক নেই। পাসপোর্ট সম্পর্কিত তথ্য জানার জন্য প্রবাসীদের ধর্ণা দিতে হচ্ছে ভেতরে ঘুর ঘুর করা দালালদের কাছে।

পাসপোর্ট জোনের দেয়ালের যত্রতত্র ময়লার পাশাপাশি মেঝের অবস্থা দেখে বোঝার উপায় নেই আদৌ সপ্তাহে একবারো পরিষ্কার করা হয় কিনা। যত্রতত্রে পড়ে আছে ব্যবহৃত টিস্যু।

পাসপোর্ট জমা দিয়ে পাসপোর্ট ফেরত নেবার জন্য অপেক্ষারত একজনকে ব্যবহৃত টিস্যু মেঝেতে ফেলতে দেখে কেন মেঝেতে ব্যবহৃত টিস্যু ফেলল জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাহলে আপনি দেখিয়ে দিন কোথায় ফেলব।

আশপাশে খুঁজে ময়লা ফেলার জন্য ঝুঁড়ি খুঁজে পাওয়া না গেলেও বেশ কয়েকটি জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে মিনারেল ওয়াটারের খালি বোতল।

মার্স ভাইরাসের ভয়াবহতা রোধে সৌদি সরকারের ব্যাপক প্রচারণার অংশ হিসেবে দূতাবাসের দেয়ালে যেখানে সেখানে ব্যবহৃত টিস্যু না ফেলার সতর্কবার্তা আটকানো আছে। দেয়ালে আটকানো সতর্কতাবার্তার নিচেই পড়ে আছে ব্যবহৃত টিস্যু।

একটু ভেতরে যেতেই কানে এল দেয়াল ঘেঁষে দাড়ানো এক প্রবাসী বাংলাদেশি আরেক প্রবাসীকে আক্ষেপ করে বলছে, রিয়াদের বিভিন্ন শপিংমলের টয়লেটের ওয়াশ রুমগুলো এর চাইতে ১০০ভাগ বেশি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন।

পাসপোর্ট জমা নেওয়া এবং নবায়ন পরবর্তী পাসপোর্ট প্রদানের জন্য যে চারটি কাউন্টার ব্যবহার করা হয় সে কাউন্টারগুলোর বেহাল দশা। সারা কাউন্টার জুড়ে ময়লার দাগ। অপরিচ্ছন্ন গ্লাস।

আধুনিক প্রযুক্তির কোনো ছোঁয়াই নেই পাসপোর্ট জোনে। পুরনো আমলের নোংরা ডেস্কেই চলছে পাসপোর্ট সেবার কাজ। কাউন্টারের ভেতর কর্মরত পাসপোর্ট অফিসারদের পেছনে বাম পাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে পুরাতন মনিটর, কিবোর্ড, মাউসসহ বিভিন্ন ফাইল।

পাসপোর্ট জমা নেওয়া হয় দুপুর ১২টা পর্যন্ত। দুপুর ১২টার পর নবায়নকৃত পাসপোর্ট ফেরত দেওয়ার সময় সিরিয়ালের কোনো বালাই নেই। যে যার মতো হুমড়ি খেয়ে পড়ছে পাসপোর্ট ফেরত  নেবার জন্য।

দূতাবাসের প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী নবায়নকৃত পাসপোর্টগুলো সিরিয়াল অনুসারে প্রদানের কথা থাকলেও নিয়ম বাস্তবায়নের দায়িত্ব পালনে কোনো কর্মকর্তার দেখা মেলেনি। যে যতবেশি শক্তি খাটিয়ে কাউন্টারের সামনে যেতে পারছে সে আগে পাচ্ছে পাসপোর্ট।

যাদের ধস্তাধস্তি করে কাউন্টারের সামনে যাবার শক্তি নেই তাদের সকাল ৯টায় জমা দেওয়া পাসপোর্ট বিকেল ৩টায়ও মেলে না। কিন্তু ক্ষমতার জোরে ১১টায় জমা দেওয়া পাসপোর্ট ১২টা ৩৫ এ অনেকে পেয়ে যাচ্ছে।

নবায়নকৃত পাসপোর্ট প্রদানের জন্য নির্ধারিত কাউন্টারের সামনে বাম পাশে পানি চালিত বড় এয়ারকুলার কেন বসিয়ে রাখা হয়েছে এই প্রশ্নের উওরের জন্য কাউকেই খুঁজে পাওয়া যায়নি।

কাউন্টারের সামনে হুড়োহুড়ি করে পাসপোর্ট নিতে গিয়ে কেউ যদি এয়ারকুলারে সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয় সে দায় কারো প্রশ্নের উওর তো বহুদূর! 

শীর্ষ নিউজ ডটকম

এ জাতীয় আরও খবর

বিএনপি নেতা টুকুর বক্তব্য শিষ্টাচারবহির্ভূত ও কুরুচিপূর্ণ: জামায়াত

মাথা দিয়ে বাংলাদেশকে উড়িয়ে দিলেন অঞ্জন

ক্যাম্পাসে ফিরেছেন রিভা-রাজিয়া

পরীক্ষার সিরিজে প্রত্যাশিত জয় টাইগারদের

প্রেমিকাকে পেতে স্ত্রীকে বিষ খাইয়ে হত্যা

রাজনৈতিক সহিংসতা ও নির্বাচনী অস্থিতিশীলতা বিনিয়োগকারীদের ভীত করে: পিটার হাস

গৃহবধূকে ধর্ষণের পর হত্যায় ৯ জনের যাবজ্জীবন

নিহত রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহর ১৪ স্বজন কানাডায়

টুকু জনগণের ভাষায় কথা বলতে পারেন না: জামায়াত

‘সাবধানে যাবি, তাড়াতাড়ি আসবি’: মেয়ের সঙ্গে বাবার শেষ কথা

প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা বার্তা লিখবে দেড় কোটি শিক্ষার্থী

মানুষের জন্য চিকিৎসা নেই, বেকারদের জন্য কাজের নিশ্চয়তা নেই : জিএম কাদের