সোমবার, ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রতি মিনিটে যা ঘটছে ইন্টারনেটে।

full_1662711650_1401613084সীমানাহীন ইন্টারনেট  অন্তর্জালে জড়িয়ে রেখেছে বিশ্বের একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্ত। ইন্টারনেটের কল্যাণে পৃথিবীর সবকিছুতে লেগেছে অনলাইনের ছোঁয়া। এক্ষেত্রে আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্যও পিছিয়ে নেই। আধুনিক সমাজব্যবস্থাকে বলা হয়, তথ্যভিত্তিক সমাজ। একটি দেশের জন্য এই তথ্য খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং ব্যয়বহুল একটি ব্যানার। এ তথ্যকে যে দেশ যত বেশি কাজে লাগাতে পারবে সে দেশই তত উন্নতি লাভ করবে। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের পার্থক্য ঘুচিয়ে দিয়েছে ইন্টারনেট। মানুষ আর যন্ত্রের মধ্যে রচনা করেছে সেতুবন্ধ। দুনিয়াজুড়ে প্রায় প্রতিটি মানুষের হাতেই জায়গা করে নিয়েছে নেটওয়ার্কযুক্ত ডিভাইস। আর এর ব্যবহার এতটাই বেড়েছে যে, আগামী ২০১৫ সাল নাগাদ এই সংখ্যা দ্বিগুণ হবে। অর্থাৎ তখন প্রত্যেক মানুষের হাতেই থাকবে গড়ে দুটি করে নেটওয়ার্কযুক্ত ডিভাইস। 
প্রতি মিনিটে ইন্টারনেটের ঘটমান তথ্য-উপাত্ত নিয়ে প্রকাশিত 'ইনফোগ্রাফি' উপস্থানের মাধ্যমে এই পূর্বাভাস দিয়েছে বিশ্বখ্যাত চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইন্টেল। ইন্টারনেটের ভবিষ্যৎ প্রবৃদ্ধিসূচক সংশ্লিষ্ট এই ইনফোগ্রাফিতে দেখানো হয়েছে, প্রতি মিনিটেই ইন্টারনেট দুনিয়ায় ঘটছে মজার সব ঘটনা। বিনিসুতার তার বেয়ে পরিবহন হচ্ছে ছয় লাখ ৩৯ হাজার ৮০০ গিগাবাইট ডাটা। ই-মেইল পাঠানো হচ্ছে ২০ কোটি ৪০ লাখ অর্থাৎ সেকেন্ডে ৩৪ লাখ। প্রতি মিনিটে যুক্ত হচ্ছে এক হাজার ৩০০ জন নতুন মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী। স্মার্টফোনের কল্যাণে প্রতি মিনিটে ডাউনলোড হচ্ছে ৪৭ হাজার অ্যাপস। ফ্লিকার থেকে মিনিটে ছবি আপলোড হচ্ছে তিন হাজার, আর এই ছবি দেখছেন দুই লাখ ব্যবহারকারী। প্যান্ডোরা বক্স থেকে প্রতি মিনিটে গান শোনা হচ্ছে ৬১ হাজার ১৪১ ঘণ্টার মতো। মিনিটে ভিডিও শেয়ারিং ওয়েব ইউটিউবে ডাউনলোড হচ্ছে ৩০ ঘণ্টার বেশি। ভিডিও দেখছেন এক কোটি তিন লাখ। বিনোদনের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগে এক ধাপ এগিয়ে রয়েছে নেটিজেনরা। তাই প্রতি মিনিটে ৩২০ জনেরও বেশি নতুন অ্যাকাউন্ট খুলছেন মাইক্রোব্লগ টুইটারে, টুইট হচ্ছে এক লাখ। একই সময়ে পেশাজীবীদের প্লাটফর্ম লিংকডিনে অ্যাকাউন্ট খুলছেন ১০০ জনের বেশি। আর ফেসবুকে মিনিটে ৬০ লাখেরও বেশি পেজভিউ যেমন হচ্ছে, তেমনি লগইন করছেন দুই লাখ ৭৭ হাজার জন। এ যজ্ঞে পিছিয়ে নেই মুক্ত বিশ্বকোষ। প্রতি মিনিটে এখানে প্রকাশ হচ্ছে ছয়টি নতুন আর্টিকেল। আর ইন্টারনেটের ব্যবহার যত বাড়ছে স্বাভাবিকভাবে বাড়ছে হুমকির ঘটনাও। প্রতি মিনিটে বটনেট ইনফেকশনের ঘটনা ঘটছে কমপক্ষে ১৪০টি।