বৃহস্পতিবার, ৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আদর্শ বাবা শাহরুখ

সব বাবার কাছেই তাঁর সন্তান অনেক বেশি আদরের। ‘বলিউড বাদশাহ’ শাহরুখ খানও এর ব্যতিক্রম নন। দায়িত্ববান বাবা হিসেবে যথেষ্ট সুনাম আছে বলিউডের অন্যতম প্রভাবশালী এ তারকা অভিনেতার। সম্প্রতি আবারও তার প্রমাণ দিলেন তিনি। এবার কাজের শত ব্যস্ততা সত্ত্বেও মেয়ে সুহানাকে পড়ানোর জন্য ঠিকই সময় বের করে খবরের শিরোনাম হয়েছেন খান সাহেব।শাহরুখের মেয়ে সুহানা এখন ক্লাস নাইনে পড়ছে। স্কুলের পাঠ্যবই থেকে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের নয়টি অধ্যায় সুহানাকে পড়ানোর দায়িত্ব নিয়েছেন শাহরুখ। চারটি অধ্যায় পড়ানোর কাজ শেষ করে বাকি পাঁচ অধ্যায়ও শিগগির শেষ করে দেবেন বলে মেয়েকে কথা দেন তিনি। কিন্তু বাদ সাধে কাজের ব্যস্ততা। এ প্রসঙ্গে ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাতে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, মুম্বাইয়ের ফিল্মসিটিতে ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ ছবির শুটিং শেষ করে বাড়ি গিয়ে মেয়েকে পড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন শাহরুখ। কিন্তু হঠাত্ করেই কলকাতা যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে হয় তাঁকে। এ অবস্থায় মেয়েকে দেওয়া কথা রাখতে তিনি ব্যক্তিগত বিমানে সুহানাকে সঙ্গে নিয়ে কলকাতায় উড়াল দেন। আকাশপথে বিমানের ভেতরেই মেয়েকে পড়ানোর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। বরাবরই শাহরুখকে সংসারী মানুষ হিসেবেই দেখা গেছে। প্রচণ্ড কাজের ব্যস্ততার ফাঁকে সময়-সুযোগ পেলেই পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে দারুণ পছন্দ করেন তিনি। সন্তানদের প্রচণ্ড ভালোবাসেন শাহরুখ। প্রায়ই তিনি ছেলে আরিয়ান ও মেয়ে সুহানাকে নিয়ে রাতে ঘরে বসে ছবি দেখেন। প্রতিদিন সকালে মেয়ের কপালে চুমু দিয়ে ঘর থেকে বের হন শাহরুখ। মেয়ে সুহানা সম্পর্কে এক টুইটে শাহরুখ লিখেছিলেন, ‘যখন অলৌকিক কিছু দেখার ইচ্ছে হয়, তখনই আমি আমার মেয়ের চোখের দিকে তাকাই। সুহানার চোখের দিকে তাকালেই মনে হয়, অলৌকিক কিছুর সন্ধান পেয়ে গেছি আমি। সে চমত্কার নাচতে পারে। তার নাচ দেখলে মনে হয়, ঘুম আর জাগরণের মাঝামাঝি একটি জায়গায় যেন দাঁড়িয়ে আছি আমি।’ সন্তানদের সঙ্গে নানা বিষয়ে খোলামেলা আলোচনার পাশাপাশি তাদের নানা সুপরামর্শও দেন শাহরুখ। গত বছর ছেলে আরিয়ানকে হিতোপদেশ দিয়ে খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন শাহরুখ। নারীদের সম্মান করা শেখার জন্য আরিয়ানকে নানা পরামর্শ দেন বলেই জানিয়েছিলেন তিনি। এ প্রসঙ্গে তাঁর ভাষ্য ছিল, ‘নারীদের প্রতি অসম্মানের কোনো ঘটনা ঘটলে আমরা দুঃখ প্রকাশ করেই ক্ষান্ত হয়ে যাই। আমাদের যেন আর কোনো দায়িত্বই নেই! নারীদের প্রতি ভদ্র ও শ্রদ্ধাশীল আচরণের গুরুত্ব নিয়ে সন্তানের সঙ্গে খোলামেলা আলোচনা না করার প্রবণতা থেকে প্রত্যেক মা-বাবার বের হয়ে আসা উচিত। সন্তানকে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারিবারিক শিক্ষাটা খুব জরুরি। পরিবার থেকেই সন্তানকে নানা বিষয়ে সুপরামর্শ দিতে হবে। আমি এটা শুরু করেছি। আপনারাও করুন।’ শাহরুখ আরও বলেছিলেন, ‘আমি আমার ছেলে আরিয়ানকে প্রায়ই বলি, কখনো কোনো নারীর মনে আঘাত দেবে না। সব সময় তাঁদের সঙ্গে নম্র ও ভদ্র আচরণ করবে এবং শ্রদ্ধার চোখে দেখবে। কোনো নারীর প্রতি অন্যায় আচরণ চোখে পড়লে তুমি তার প্রতিবাদ করবে। আর তুমি যদি কোনো নারীর সঙ্গে অন্যায় আচরণ করো, তাহলে তোমার মা-বাবা কখনোই তোমাকে ক্ষমা করবে না।’ এ ছাড়া মেয়ে সুহানাকে বাবার মতোই প্রেমিক নির্বাচনের পরামর্শ দিয়ে খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন শাহরুখ। এ প্রসঙ্গে তাঁর ভাষ্য ছিল, ‘আমার ধারণা, ভালোবাসার মানুষ হিসেবে আমি যথেষ্ট ভালো। আমি খুবই ভদ্র, ভালোবাসাপরায়ণ, শিক্ষিত এবং মনের মানুষের প্রতি যত্নশীল। মেয়ে সুহানার প্রতি আমার পরামর্শ—সে যেন আমার মতোই একজন ছেলেবন্ধু খুঁজে নেয়। তবে আমার চরিত্রে মন্দ একটি দিক আছে। আমি মাঝে মাঝে নিজের রাগকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারি না। আমি চাই, সুহানার মনের মানুষটির মধ্যে যেন এই দোষটি না থাকে। প্রেমিক নির্বাচনের ক্ষেত্রে আমার এসব পরামর্শ শুধু সুহানার জন্য নয়, সব মেয়ের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।’শাহরুখ ও গৌরী খান দম্পতির ছেলেমেয়ে আরিয়ান ও সুহানার বয়স যথাক্রমে ১৭ ও ১৪। সারোগেসি পদ্ধতিতে গত বছরের মে মাসে তৃতীয় সন্তানের বাবা হয়েছেন শাহরুখ। এ পদ্ধতিতে বাবা-মায়ের অনাগত সন্তানের ভ্রূণ পরিবারের বাইরের কোনো নারীর গর্ভে বেড়ে ওঠে। শাহরুখ-গৌরী তাঁদের তৃতীয় সন্তানের নাম রেখেছেন আবরাম খান।

এ জাতীয় আরও খবর