সোমবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রোবটেরা কখনোই মানুষের মতো অনুভূতিসম্পন্ন হবে না!!- বিশেষজ্ঞদের দাবী

robotএটা সত্যি যে, রোবটেরা দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্নভাবে আমাদের সাহায্য করছে। কিন্তু একই সাথে এও সত্যি যে তারা কেবলই একটি মেশিন, এর বাইরে কিছু না!

রোবটকে নিয়ে দিনে দিনে অনেকেই শঙ্কিত হয়ে পড়ছেন। তাদের ভীতির কারণ, রোবট মানুষের মতো অনুভূতিসম্পন্ন হয়ে গেলে তা আর মানুষের জন্য কতটা নিরাপদ থাকতে পারে, এই নিয়ে!

কিন্তু ইদানীং বিশেষজ্ঞরা দাবী করছেন, রোবট যতোই মানুষের কাছাকাছি যাক না কেন, মানুষের মতো কখনোই তাদের অনুভূতি থাকবে না।

বর্তমানে আমাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে রান্নাঘর থেকে শুরু করে জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে দুঃসাধ্য সব কাজে রোবট ব্যবহার হয়ে আসছে অনায়াসে। বলতে গেলে রোবট এখন আমাদের জীবনের একটি অপরিহার্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তারা এমনভাবে আমাদের সাথে মেলামেশা করছে যে, আমরা প্রায়ই ভুলে যেতে বসি এটা কেবল একটি মেশিন, মানুষ না!

কিন্তু সাম্প্রতিক, রোবটেরা যে আমাদের মতো মস্তিষ্কে চেতনা সৃষ্টি করে অনুভূতি প্রকাশে অভিজ্ঞ না তার একটি গাণিতিক নকশা প্রকাশিত হয়েছে। কম্পিউটারে তথ্য সমন্বয়ের পুরোপুরি কোন কৌশল জানা নেই এদের। যার অর্থ এরা কখনোই চেতনা বা অনুভূতিসম্পন্ন হবে না।

এই গবেষণা প্রকাশের পর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব আয়ারল্যান্ডের প্রোফেসর মাগুরি বলেন যে, সীমাবদ্ধ ম্যমোরি ব্যবহার করে একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে রোবটের চেতনা সৃষ্টি সম্ভব না। অন্যকথায়, সচেতন মনে এই সমন্বিত সজ্জিত তথ্যগুলো ভেঙ্গে ক্ষুদ্রতম উপাদানে নিয়ে আসা রোবটের পক্ষে সম্ভব না। কারণ মস্তিষ্কে তথ্যগুলোকে প্রাসঙ্গিকভাবে ব্যবহার উপযোগী করে নির্ধারিত করে ফেলে তারা, এর বাইরে যাওয়া তাদের পক্ষে অসম্ভব । তিনি আরও উল্লেখ করেন যে, এমনকি আমারা যদি কোনভাবে রোবটের মধ্যে অনুভূতি ঢুকিয়েও দেই, তবে তা এতটাই জটিল হয়ে যাবে যে এটাকে রোবটের উপযোগী করে ব্যবহার করা ও ম্যাশিনের মধ্যে সঠিকভাবে প্রয়োগ করা সম্পূর্ণরূপে আমাদের সক্ষমতার বাইরে চলে যাবে ।

সুতরাং এই গবেষণার সারমর্ম কি?               

শেষকথা এটাই যে, রোবট বা ম্যাশিনের জন্য প্রত্যেকটি আলাদা আলাদা ছবির সংগ্রহকে এডিট করা অনেক সহজ হতে পারে কিন্তু যখন ম্যমোরির অসংখ্য ছবি নিয়ে একটি সংগঠন ও অভিজ্ঞতা দাঁড়িয়ে যায়, তখন এটাকে একইভাবে পরিবর্তন করা রোবটের পক্ষে সম্ভব না । তাই রোবট কখনোই মানুষের জন্য হুমকিস্বরূপ হয়ে দাঁড়ানোর সুযোগ নেই!