বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গণতন্ত্রের দরজা বন্ধের পরিণতি ভালো হয় না: ফখরুল

বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সরকারের উদ্দেশে বলেছেন, গণতন্ত্রের জায়গা (স্পেস) যেন নষ্ট করা না হয়। দরজা যেন বন্ধ করা না হয়। এর পরিণতি ভালো হয় না।
আজ শুক্রবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল এ আহ্বান জানান।
আগামীকাল শনিবার রাজধানীর ডেমরায় পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী সমাবেশ করার কথা রয়েছে। কিন্তু পুলিশ এখনো সমাবেশ করার অনুমতি দেয়নি।
মির্জা ফখরুল জানান, আগামীকাল সমাবেশের জন্য তাঁরা যাত্রাবাড়ীর শহীদ ফারুক সড়ক, কমপ্যাক্ট স্কুল মাঠ ও মাতুয়াইলের কনকর্ড হাউজিং মাঠের যেকোনো একটিতে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছেন। কিন্তু এখনো পর্যন্ত তাঁরা অনুমতি পাননি। তিনি বলেন, ‘আমরা গণতান্ত্রিক উপায়ে রাজনীতি করতে চাই। সভা-মিছিলের মাধ্যমে জনগণের সামনে আমাদের বক্তব্য তুলে ধরতে চাই। এখানে বাধা দেওয়ার অধিকার কারও নেই।’
গুম-খুন মহামারি আকার ধারণ করেছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, নদী-খাল-বিল এমনকি বঙ্গোপসাগর মোহনায়ও গুলিবিদ্ধ লাশ পাওয়া যাচ্ছে।

যারা গুম-খুনের বিরুদ্ধে কথা বলছে, তারাই আক্রমণের শিকার হচ্ছে দাবি করে বিএনপির এই নেতা বলেন, গতকাল (বৃহস্পতিবার) আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) কর্মকর্তা নূর খানকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছিল। নারায়ণগঞ্জে শহীদ চেয়ারম্যান সত্য কথা বলায় তাঁকে ভয় দেখানো হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত তদন্ত কমিটি সাড়া পায়নি দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, ভয়ে কেউ সেখানে সাক্ষ্য দিতে পারছে না। এ ঘটনায় র্যাবের ওই তিন কর্মকর্তা গ্রেপ্তার হবে কি না, এ নিয়েও সংশয় আছে।

আগামীকালের সমাবেশ কর্মসূচির সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম বলেন, কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশে নয়, সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্যই তাঁরা এই জনসভা করছেন। যদি আজ বেলা দুইটার মধ্যেও সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়, তাহলে কমপক্ষে পাঁচ লাখ লোকের সমাগম হবে।