সোমবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

লাইক বাড়ানোর ফর্মুলাও হচ্ছে!

news-image

অনেকেই ফেসবুকে ও টুইটারে চমত্কার ছবি, সেলফি পোস্ট করার পরও বেশি লাইক না পেয়ে হতাশ হন। হয়তো বেশিদিন আর এই হতাশা থাকবে না। অনলাইন অ্যাকাউন্টের ছবি বা পোস্টে বেশি করে লাইক বাড়ানোর কৌশল নিয়ে চলছে গবেষণা। সম্প্রতি ভারতীয় বংশোদ্ভূত এক মার্কিন গবেষক লাইক বাড়ানোর একটি নতুন ‘ফর্মূলা’ তৈরির দাবি করেছেন। এক খবরে এ তথ্য জানিয়েছে আইএএনএস।


ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির শিক্ষার্থী আদিত্য খোসলা দাবি করেছেন, তাঁর উদ্ভাবিত ফর্মুলাটি ছবির বিষয়বস্তু বিশ্লেষণ করে অনলাইনে সেটি জনপ্রিয় হবে কিনা তা নির্ধারণ করতে পারে।


আদিত্য ও তাঁর গবেষক দলটি ২৩ লাখ ফ্লিকারের ছবি স্ক্যান করে কোন ধরনের ছবি বেশি জনপ্রিয় হয় তা বের করেছেন। ফ্লিকার হচ্ছে ইয়াহুর ইমেজ ও ভিডিও হোস্টিং সাইট।


গবেষকেরা দাবি করেছেন, ছবি স্ক্যান করার পর তারা ছবির রং, কম্পোজিশন, বিষয়বস্তু এবং ছবিতে লাইক না পড়ার কারণের মধ্যে সম্পর্ক বের করার কাজ করেন। এতে তারা দেখেন যে, ছবির জনপ্রিয়তার সঙ্গে অন্তর্বাস, রিভলবার, মিনিস্কার্ট, বিকিনি প্রভৃতির সম্পর্ক রয়েছে।


গবেষকেদের মতে, সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটে কারও মাত্র ১০ জন বন্ধু থাকতে পারে আবার কারও হাজারেরও বেশি। বন্ধুত্বের পার্থক্য স্বত্বেও ছবির বিষয়বস্তু দেখেই তা কতখানি জনপ্রিয় হবে তা ধারণা করা যায়। ছবির বিষয়বস্তুর পাশাপাশি জনপ্রিয়তার ক্ষেত্রে ছবির রঙেরও ভূমিকা থাকে।

গবেষকেরা দাবি করেছেন, তাঁদের এলগরিদম নিয়ে সফটওয়্যার তৈরি করা হলে সেই সফটওয়্যারের মাধ্যমে ছবি সম্পাদনা করা যাবে এবং সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটে আকর্ষণীয় ছবি পোস্ট করা যাবে যা দেখে লাইক বেড়ে যাবে।

অবশ্য এর আগে মার্কিন গবেষকেরা লাইক বাড়ানোর কৌশল নিয়ে ভিন্ন একটি গবেষণা করেছিলেন।  জর্জিয়া টেকের কলেজ অব কম্পিউটিংয়ের গবেষকরা দাবি করেছিলেন, সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটে ‘লাইক’ বাড়াতে চাইলে আপনার ফেস বা মুখের ছবি ট্যাগ করুন। কোনো দৃশ্য বা পেইন্টিংয়ের বদলে ফেস ট্যাগ করলে বেশি বেশি লাইক পাওয়া যায়। অবশ্য ঘন ঘন ও মাত্রাতিরিক্ত ছবি বা মন্তব্য করলে লাইক কমেও যেতে পারে। তাঁরা দাবি করেন, কোনো ছবি না দেওয়ার চেয়ে মানুষের চেহারাযুক্ত প্রোফাইল ও পোস্টের ক্ষেত্রে ৩৮ শতাংশ বেশি বেশি লাইক পাওয়া যায়।