শনিবার, ২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফেরি থেকে হামাগুড়ি দিয়ে পালান ক্যাপ্টেন

দক্ষিণ কোরিয়ার ডুবে যাওয়া ফেরি থেকে হামাগুড়ি দিয়ে পালিয়ে যান ক্যাপ্টেন। অথচ তখন ফেরির ভেতরে আটকে ছিলেন কয়েক শ যাত্রী। ক্যাপ্টেনের পালিয়ে যাওয়ার একটি ভিডিও গতকাল সোমবার প্রকাশ করেছে দেশটির কোস্টগার্ড।



গতকাল সোমবার বার্তা সংস্থা এএফপি প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানানো হয়, ১০ মিনিটের ওই ভিডিওটি ধারণ করেছেন উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা। সংবাদভিত্তিক একটি টিভি চ্যানেলে ভিডিওটি প্রচার করা হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, সোয়েটার ও অন্তর্বাস পরা ৬৯ বছর বয়সী ক্যাপ্টেন লি জুন সেওক কাত হয়ে যাওয়া ফেরিটি ডুবে যাওয়ার আগে সেখান থেকে হামাগুড়ি দিয়ে জলদি নিরাপদে সরে যান। ভিডিওটিতে আরও দেখা যায়, ফেরির খোলা ডেকগুলো অনেকটাই ফাঁকা। কারণ ফেরির ক্রুরা বারবার যাত্রীদের কেবিনে থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন। আর ফেরিটি যখন অনেকটাই কাত হয়ে যায়, তখন যাত্রীদের পক্ষে বের হয়ে আসাটা অসম্ভব হয়ে পড়ে।



ফেরিতে থাকা ১৫ জন ক্রুর সবাইকে গ্রেপ্তার করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। তাঁদের বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলা ও যাত্রীদের ফেরিতে ফেলে আসার অভিযোগ আনা হয়েছে।



১৬ এপ্রিল ছয় হাজার ৮২৫ টনের সেউল নামের ফেরিটি ৪৭৬ জন যাত্রী নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার উপকূলে ডুবে যায়। ফেরিতে থাকা যাত্রীদের অধিকাংশই ছিলেন স্কুলের শিক্ষার্থী। ফেরিডুবির ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৭৪ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করা হয়েছে ১৭৮ জনের। বাকিরা এখনো নিখোঁজ রয়েছেন।



ফেরির হতভাগ্য যাত্রীদের স্বজনেরা এ দুর্ঘটনা ও উদ্ধার তত্পরতায় সরকারের ব্যর্থতার অভিযোগ এনেছেন। তাঁরা বলছেন, উদ্ধার তত্পরতায় বিলম্ব না হলে হয়তো আরও অনেককে জীবিত পাওয়া যেত।

ফেরিডুবির ঘটনায় ব্যর্থতার দায়ভার নিয়ে গত রোববার পদত্যাগ করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী চাং হং-ওয়ান।

এ জাতীয় আরও খবর