মঙ্গলবার, ৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিক উদ্ধার হয়েছে

Abubakorপরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিকে কলাবাগান চেকপোস্টে পরিচয় পাওয়ার পর ধানমন্ডি থানায় নেয়া হয়। পরে রাতেই তাকে সেন্ট্রালরোডের বাসায় নেয়া হয়। শুক্রবার সকাল ১০টায় তাকে নারায়ণগঞ্জের আদালতে নেয়ার কথা। রিজওয়ানা হাসান মনে করেন, টাকার জন্য তার স্বামীকে অপহরণ করা হয়নি। 
বৃহস্পতিবার রাত পৌনে দুইটার দিকে রাজধানীর মিরপুর রোডের কলাবাগান বাসস্ট্যান্ডে বসানো চেকপোস্টে কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তা একটি সিএনজি থেকে তাকে উদ্ধার করেন।

ধানমন্ডি থানার ডিউটি অফিসার এএসআই আলী হোসেন বলেন, রাজধানীর ধানম-ি মিরপুর রোডে সিএনজি দিয়ে যাওয়ার সময় কর্তব্যরত পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। তবে সিএনজিতে তিনি একাই ছিলেন বলে জানান ডিউটিরত ওই পুলিশ অফিসার।

তিনি বলেন, আবু বকর সাহেব বর্তমানে সুস্থ্য আছেন এবং রিজওয়ানা হাসান ও তার আত্মীয়রা থানায় এসেছেন।

ধানমন্ডি থানায় আবু বকর সাংবাদিকদের বলেন, তাঁকে মাইক্রোবাসে তুলে নেওয়ার প্রায় তিন ঘণ্টা পর একটি বাড়িতে নেওয়া হয়। চোখ সার্বক্ষনিক বাঁধা ছিল। ধরে নেওয়ার সময় কিছু কিল-ঘুষি ছাড়া তাঁকে কোনো নির্যাতন করা হয়নি।

তিনি বলেন, গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতে তাঁকে মিরপুরের আনসার ক্যাম্প এলাকায় গাড়ি থেকে নামিয়ে দেওয়ার সময় পকেটে ৩০০ টাকা দিয়ে দেয় অপহরণকারীরা। তিনি সেন্ট্রাল রোডের বাসায় যাওয়ার জন্য প্রথমে একটি রিকশায় ওঠে কাজীপাড়া পর্যন্ত আসেন। এরপর একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা পান।

রিজওয়ানা বলেন, ধরে নিয়ে যাওয়ার পর এক সেকেন্ডের জন্য চোখ খুলে দেওয়া হয়নি। কিন্তু কেন তাঁকে ধরে নিয়ে যাওয়া হলো, তা সম্পূর্ণ রহস্যাবৃত্তই রয়ে গেছে। তারা ‘মোটিভ ক্লিয়ার’ করেনি। অপহরণকারীরা নিজেরা নিজেরা টাকার কথা বলছিল। তবে কেউ টাকা চায়নি। এমনকি তাঁর কাছে পরিবারের নম্বরও চায়নি।

রিজওয়ানা বলেন, টাকার জন্য এই অপহরণ করা হয়েছে বলে আমি প্রাথমিকভাবে মনে করছি না। প্রচ- চাপের মধ্যে পড়ে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

কীসের চাপ জানতে চাইলে তিনি বলেন, গণমাধ্যমের চাপ তো ছিলই। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী নিজে নির্দেশনা দিয়ে পুরো বিষয়টি তদারকি করছিলেন। আইনশৃক্সখলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতাও ছিল অনেক বেশি।

পরে রাত সোয়া তিনটার দিকে আবু বকর সিদ্দিকে থানা থেকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার বিকেল সোয়া ৩টায় নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার ভূইয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে ৭ থেকে ৮ জন যুবক লাঠি সোটা ও অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায় সৈয়দা রেজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকর সিদ্দিকে।

এ জাতীয় আরও খবর