বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাস্তার অ্যাপ্রোচ কেটে জমিতে বিলীন

road..................বাঞ্ছারামপুর উপজেলার পাড়িয়াকান্দি ইউনিয়নের চর জয়কালীপুর-বাঞ্ছারামপুর রোডের ভোমরাকান্দি এলাকায় রাস্তার পাশের অ্যাপ্রোচ কেটে জমিতে বিলীন করেছে। এতে করে রাস্তাটি যেকোন সময় ভেঙে জনদুর্ভোগের কারণ হতে পারে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গত ৫ বছর আগে এলজিইডির নির্মিত প্রায় পাঁচ হাজার লোকের জন্য এই রাস্তাটি ভোমরাকান্দি এলাকার মৃত সুলতান মিয়ার জমির পশ্চিম পাশে। সুলতান মিয়া মারা যাবার পর তারই ভগিনা মো. সামসুর রহমান (খোকা) জমির দেখভাল করছেন।
গত ২০ মার্চ বৃহস্পতিবার দুপুরে হঠাৎ করেই লোকজন নিয়ে রাস্তাটির পাশের অ্যাপ্রোচ ও প্রায় ৮/১০টি ফলদ গাছ কেটে ফেলেন তিনি। এলাকাবাসী তার এই ধরনের কাজের প্রতিবাদ করলে তিনি নিজের জায়গা কাটছেন বলে জানান। এ ব্যাপারে বেশি কথা বললে দেখে নেয়ার হুমকি দেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় বিভিন্ন এলাকাবাসী জানান, সামসুর রহমান এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ করে আসছেন। অনেক টাকা আছে বলে তিনি কাউকেই মানুষ মনে করছেন না। প্রায় পাঁচ হাজার লোকের চলাচলযোগ্য এই রাস্তাটির পাশের অ্যাপ্রোচ কেটে নেয়ার কারণে রাস্তাটি এখন হুমকির মধ্যে রয়েছে। বৃষ্টি হলেই এই রাস্তাটি যেকোনো সময় ভেঙে পড়বে। শুধু তাই নয়, রাস্তাটির পাশের প্রায় ৮/১০টি ফলদ ও কাঠ গাছ কেটে প্রায় লাখ টাকারও বেশি ক্ষয়ক্ষতি করেছেন। তার এই কাজের প্রতিবাদ করতে কেউ সাহস পাচ্ছেনা।
ভোমরাকান্দি এলাকার সাবেক ইউপি মেম্বার সিদ্দিকুর রহমান জানান, যদিও জায়গাটি সামসুরের মামার। এখন তিনি তা দেখাশুনা করছেন। এতদিন এই জায়গা নিয়ে কোনো ধরনের ঝামেলা না থাকলেও এখন সামসুরের কাছে কিছু পয়সা হওয়ায় তিনি কোনো কিছুকেই তোয়াক্কা করছেন না। কেউ তার বিরুদ্ধে কিছু বললে তিনি তাকে হুমকি-ধামকি দিয়ে থামিয়ে দিচ্ছেন।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে সামসুর জানান, আামি আমার নিজের জায়গা কেটেছি। এখন যদি রাস্তা ভেঙে যায় তাহলে তা আমি নিজেই ঠিক করে দিবো। এলাকাবাসীর দাবি সঠিক নয়।
পায়রাকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল গনি তালুকদার জানান, রাস্তা কাটার ঘটনাটি আমি জেনে সামসুরের সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি আমাকে জানিয়েছেন রাস্তাটি কাটার জন্য যে লেবার নেয়া হয়েছিল তারা এই রাস্তাটির অ্যাপ্রোচ কেটে ফেলেছে। তিনি ওই অ্যাপ্রোচ আবার ভরাট করে দিবেন। সামসুর ভালো মানুষ। তার বিরুদ্ধে কিছু অসাধু ব্যক্তি নিজেদের স্বার্থ হাসিল করার জন্য অপপ্রচারে লিপ্ত আছে।
 
এলাকাবাসীর দাবি জনস্বার্থে এই রাস্তাটির অ্যাপ্রোচ আগের অবস্থানে নিয়ে রাস্তাটির সংস্কার করা এবং অচিরেই দোষিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবে যথাযথ কর্তৃপক্ষ।
banglamail24.com