বুধবার, ৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আর্জেন্টিনার জয়, আর্জেন্টিনার হার

বার্সেলোনা আর অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। দৃশ্যত চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমিফাইনালের লড়াইটা ছিল এই দুই স্প্যানিশ ক্লাবের। কিন্তু নেপথ্যে লড়াইটা হয়েছে দুই আর্জেন্টাইনেরও। জয়-পরাজয় নির্ধারণে বড় ভূমিকাই রেখেছে দুই আর্জেন্টাইন কোচের রণকৌশল। যে লড়াইয়ে ডিয়েগো সিমিওনের কাছে হারতে হয়েছে তাঁরই স্বদেশি জেরার্ডো মার্টিনোকে। প্রথম লেগের খেলা ১-১ গোলে ড্র হওয়ার পর দ্বিতীয় লেগে ১-০ গোলের জয় দিয়ে সেমিফাইনালে চলে গেছে সিমিওনের অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

শক্তিমত্তার বিচারে অ্যাটলেটিকোর চেয়ে বেশ কয়েক ধাপ এগিয়েই ছিল বার্সেলোনা। মেসি, নেইমার, জাভি, ইনিয়েস্তা, ফেব্রিগাস—বার্সেলোনা দলটি রীতিমতো তারকায় ঠাসা। অন্যদিকে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের সবচেয়ে বড় তারকা ডিয়েগো কস্তা গতকাল মাঠে নামতে পারেননি ইনজুরির কারণে। তার পরও অ্যাটলেটিকো যে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে, চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে পা দিয়েছে, তার সিংহভাগ কৃতিত্বই সিমিওনের দুর্দান্ত রণকৌশলের। ম্যাচের বেশির ভাগ সময় বলের দখল নিজেদের কাছে রাখলেও সেই সুবিধা কাজে লাগাতে পারেনি বার্সেলোনা। মাঝমাঠে জাভি-ইনিয়েস্তাকে খুব বেশি চিন্তাভাবনা করারও সুযোগ দেননি সিমিওনের শিষ্যরা। সবকিছু যে ঠিকঠাক কাজ করেনি, সেটা ম্যাচশেষে স্বীকারও করে নিয়েছেন বার্সার আর্জেন্টাইন কোচ মার্টিনো, ‘এমন কিছু সময় আসে, যখন আপনি একটা কাজ যেভাবে করতে চাইবেন, সেভাবে করতে পারবেন না। কী করতে হবে, এ-সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা থাকা সত্ত্বেও আমরা সেটা করতে পারিনি। প্রথম ২০ মিনিটের মধ্যেই তারা ম্যাচটা নিজেদের দখলে নিয়ে নিয়েছিল। আমরা একটা গোল করতে পারলে হয়তো খেলাটা বদলাতে পারতাম।’

প্রথম ২০ মিনিটই যে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিয়েছে, সে কথা শোনা গেছে সিমিওনের মুখেও, ‘আমার মনে হয় প্রথমার্ধের প্রথম ২০  মিনিট আমাদের জন্য খুবই ভালো কেটেছে। এ সময় আমাদের আক্রমণাত্মক মনোভাব, গতি, মনোযোগ সবকিছু খুবই ভালো ছিল।’ নিজেদের মাঠে অ্যাটলেটিকো ১-০ গোলে এগিয়েও গিয়েছিল প্রথম ২০ মিনিটের মধ্যে। খেলা শুরুর পঞ্চম মিনিটে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেছিলেন কোকে।

১৯৯৬ সালের পর এবারই দুর্দান্ত একটা মৌসুম কাটাচ্ছে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। সেবার তারা জিতেছিল লা লিগা ও কোপা ডেল রে শিরোপা। ১৯৯৫-৯৬ মৌসুমেও অ্যাটলেটিকোর এই সাফল্যের সাক্ষী ছিলেন সিমিওনে। তখন তিনি দলে ছিলেন খেলোয়াড় হিসেবে। এবার কোচ হিসেবেও স্প্যানিশ ক্লাবটিকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছেন এই আর্জেন্টাইন। এ মুহূর্তে রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনাকে ছাড়িয়ে লা লিগার শীর্ষে আছে অ্যাটলেটিকো। গতকাল বার্সেলোনাকে হারিয়ে নিশ্চিত করেছে চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনাল। সামনে আরও কতদূর যাবে সেটাই এখন দেখার বিষয়।