বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘তিস্তা-মার্চ’ করবে সিপিবি-বাসদ

তিস্তা নদীর পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিতে ১৭ থেকে ১৯ এপ্রিল ‘তিস্তা-মার্চ’ করবে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)।

আজ শনিবার দুপুরে রাজধানীর মুক্তি ভবনে সংগঠন দুটি এক সংবাদ সম্মেলন করে ওই কর্মসূচির ঘোষণা দেয়।

লিখিত বক্তব্যে সিপিবির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহম্মেদ বলেন, ‘সরকার ও শাসকগোষ্ঠীর কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ, বিশেষ করে তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়, ভারতের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা ও প্রয়োজনে আন্তর্জাতিক ফোরামে আলোচনার মাধ্যমে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে বাধ্য করতে এই কর্মসূচি ঘোষণা করছি।’

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ৭ এপ্রিল ‘দাবি দিবস’ উপলক্ষে সারা দেশে বিক্ষোভ সমাবেশ। ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ওই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। ১৭ এপ্রিল বেলা তিনটায় জাতীয় প্রেসক্লাবে সমাবেশ শেষে তিস্তা-মার্চের জন্য যাত্রা শুরু। প্রথম দিন জাতীয় প্রেসক্লাব-টঙ্গী-গাজীপুর-সিরাজগঞ্জ (রাত্রিযাপন)। ১৮ এপ্রিল সকাল ১০টায় সিরাজগঞ্জে সমাবেশ। পরে বগুড়ার উদ্দেশে যাত্রার সময় বিভিন্ন স্থানে জনসংযোগ। বেলা তিনটায় বগুড়ায় জনসভা ও রাত্রিযাপন। ১৯ এপ্রিল বগুড়া থেকে রংপুরের উদ্দেশে সকাল আটটায় যাত্রা শুরু। এরপর সকাল ১০টায় রংপুরে সমাবেশ। পরে ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা ব্যারাজ অভিমুখে যাত্রা এবং হাতিবান্ধার দোয়ানী বাজারে জনসভা।

সিপিবি-বাসদ ঘোষিত ওই কর্মসূচিতে অন্যান্য বামপন্থী-প্রগতিশীল, পরিবেশ আন্দোলনসহ বিভিন্ন নাগরিক আন্দোলনের প্রতিনিধিকে অংশগ্রহণ করার জন্য সংবাদ সম্মেলনে আহ্বান জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বাংলাদেশকে তার পানির ন্যায্য হিস্যা থেকে বঞ্চিত করার ভারতের এই মনোভাব সম্পূর্ণভাবে আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী ও মানবতাবিরোধী। এই সমস্যা সমাধানের সঙ্গে ভারতের ট্রানজিটের শর্ত জুড়ে দেওয়ার বিষয়টি প্রতিবেশীসুলভ নয়।

দল দুটির মতে, এ-সংক্রান্ত বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য চীন, ভারত, বাংলাদেশ, নেপাল ও ভুটানকে নিয়ে যৌথ অববাহিকা কর্তৃপক্ষ গঠন করা প্রয়োজন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, সিপিবির আহসান হাবিব, রুহিন হোসেন, বাসদের বজলুর রশীদ, জাহিদুল হক, রাজেকুজ্জামান প্রমুখ।