রবিবার, ৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৩শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘একদা এখানে ছিল কুমার নদ’

nodiএক সময়ের উত্তাল কুমার নদ এখন পুরোপুরি মরা খাল। এই নদে এক সময় প্রবল সে াত আর উত্তাল ঢেউ ভেঙ্গে চলাচল করত শত শত পালতোলা নৌকা। চলাচল করত যাত্রীবাহী ও মালবাহী বড় বড় লঞ্চ। এ নদকেই কেন্দ্র করে এই এলাকায় গড়ে উঠেছিল অসংখ্য হাটবাজার। নানা জাতের দেশি মাছের জন্যও খ্যাতি ছিল এ নদের। মাছ উত্পাদন হত এ নদে। এ সবই এখন মন কেমন করা সুখস্মৃতি। দখলদাররা নদ ভরাট করে খুশিমত ফসলি জমি তৈরি করছে। অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন ও পাড় কেটে মাটি বিক্রির প্রতিযোগিতায় মেতে উঠে নদীর চিহ্নটিও মুছে ফেলতে মরিয়া কিছু লোক। এক কথায় বলা যায়, মরণ ঘন্টা বেজে গেছে কুমার নদের। আর কদিন বাদেই হয়তো ভূগোলের পাতায় লেখা থাকবে 'একদা এখানে ছিল কুমার নদ।'

এ জাতীয় আরও খবর

বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে হত্যা মামলার আসামিকে কুপিয়ে খুন

সরকারের উন্নয়নের ফানুস ফুটো হয়ে যাচ্ছে: সাকি

কিয়ারা আপনার প্যান্ট কোথায়, প্রশ্ন নেটিজেনদের

হাঁটুর অস্ত্রোপচারের পর দোয়া চাইলেন শোয়েব আখতার

চীন সীমান্তে সামরিক মহড়া চালাবে যুক্তরাষ্ট্র-ভারত

শিল্পাঞ্চলে আলাদা সাপ্তাহিক ছুটির ভাবনা

সরকার নিরুপায় হয়ে জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়েছে : কাদের

মিরাজের শিকারে জিম্বাবুয়ের তৃতীয় উইকেট

পুলিশের গাড়িতে বাসের ধাক্কা, কনস্টেবলের প্রাণ গেল

দারুণ ফিফটির পর তামিমের বিদায়

‘যাত্রী প্রতিনিধি ছাড়াই বাস ভাড়া নির্ধারণ করা হয়’

বাংলাদেশের ৯৯ শতাংশ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা দেবে চীন