বুধবার, ২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অংশগ্রহণ সবার জন্য উন্মুক্ত

nat antham

ডেস্ক রিপোর্ট :

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে ‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ অনুষ্ঠানে সব শ্রেণির মানুষ অংশ নিতে পারবে। গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস-এ অন্তর্ভুক্তির লক্ষ্যে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এবং বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সহযোগিতায় জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে আয়োজিত এই অনুষ্ঠান সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

শনিবার সকালে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রভোস্ট মার্শাল ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সারাফাত হোসেন এ তথ্য জানিয়ে বলেন, অনুষ্ঠানে প্রবেশ শুরু হবে সকাল সাড়ে ৬টায়। সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলবে বেলা ১১টা পর্যন্ত। শেষ পর্বের মূল আয়োজনে লাখো কণ্ঠে ধ্বনিত হবে জাতীয় সংগীত ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি’।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির কমিশনার বেনজীর আহমেদ এবং নবম পদাতিক ডিভিশনের কর্মকর্তারা।

সারাফাত হোসেন বলেন, গিনেস বুকে বাংলাদেশের নাম অন্তর্ভুক্তি করাই মূল উদ্দেশ্যে। এ জন্য ৩ লাখ মানুষ জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে সমবেত হওয়ার সুযোগ পাবেন। যদি ৮টার মধ্যেই ৩ লাখ লোক পূর্ণ হয়ে যায় তাহলে অতিরিক্ত কাউকে ভেতরে প্রবেশ করানো সম্ভব হবে না। তবে যারা আশপাশে উপস্থিত হবেন তারা যে যেখানে থাকবেন সেখান থেকেই অংশ নিতে পারবেন।

তিনি বলেন, অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগেই প্যারেড গ্রাউন্ডে শিল্পকলা একাডেমীর তত্ত্বাবধানে জাতীয় সংগীতের রিহার্সেল হবে। এর আগে থেকেই সশস্ত্র বাহিনী থেকে তিন স্তরের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ঢাকা ও ঢাকার বাইরের যেসব মানুষ জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে অংশগ্রহণ করতে পারবেন না, তারা নিজ নিজ জেলা বা উপজেলায় প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে একই সঙ্গে সমস্বরে জাতীয় সংগীত গাওয়ার মাধ্যমে ইতিহাসের অংশ হতে পারবেন।

এ ব্যাপারে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাধ্যমে জেলা বা উপজেলায় প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা পাঠাবে। পাশাপাশি ওই দিন একই সময়ে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানে অবস্থান করেও জাতীয় সংগীত গাইতে পারবেন সাধারণ মানুষ।

এ ছাড়া জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে যখন জাতীয় সংগীত পরিবেশনা চলবে, তখন বিভিন্ন দেশে অবস্থিত মিশনগুলোর মাধ্যমে বিদেশে বসবাসরত প্রবাসী বাঙালিরাও জাতীয় সংগীত গাইতে পারবেন।

অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্য : স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে সর্বস্তরের জনগণ, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মকে স্বাধীনতার চেতনা ও দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধকরণ এবং গিনেস বুকে বাংলাদেশের নাম সংযোজন করা।

থিম : ‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’।

অনুষ্ঠানের স্লোগান : ‘জাতীয় সংগীত গাইব, বিশ্ব রেকর্ড গড়বো’।
অংশগ্রহণকারী জনসংখ্যার বিবরণ : ছাত্রছাত্রী (৮ম শ্রেণি ও তদূর্ধ্ব), সাংস্কৃতিক কর্মী, মুক্তিযোদ্ধা, গার্মেন্টস কর্মী, সশস্ত্র বাহিনী, বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাব, আনসার ও ভিডিপিসহ সব শ্রেণি ও পেশার মানুষ।

বিশেষ নির্দেশনা : অংশগ্রহণকারীদের সবাইকে উচ্চস্বরে জাতীয় সংগীত গাইতে হবে।

 

এ জাতীয় আরও খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোরবানীর হাটে জন্য প্রস্তুত খামারিরা,শেষ সময়ে পরিচর্যায় ব্যস্ত

নতুন নোট বাজারে আসছে বুধবার

শিগগিরই ৫-১২ বছরের শিশুদের করোনার টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

এক দিনে রেকর্ড ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

বিষাক্ত হলুদ ধোঁয়ায় ঢেকে গেল জাহাজ! মুহূর্তে ১২ জনের মৃত্যু

বিয়ের আসরে কনের পা ছুয়ে প্রণাম বরের!

বিশ্বের সব স্বৈরাচারকে টেক্কা দিয়েছে আওয়ামী সরকার : ফখরুল

আসছে ‘ডিজিজ এক্স’! অজানা রোগের মহামারীর শঙ্কা বিজ্ঞানীদের

রেসলিংয়ের মঞ্চে আরব নারী!

শ্রীলঙ্কায় এবার পেট্রল বিক্রি বন্ধ

পদ্মা সেতুর টোল প্লাজার বেরিয়ারে বাসের ধাক্কা

গাড়ি আমদানিতে চট্টগ্রাম বন্দরকে পেছনে ফেলল মোংলা‍