রবিবার, ২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রেম নিয়ে হিংসায় জ্বলছেন ম্যারাডোনা!

5326d39365a66-Maradonaডিয়েগো ম্যারাডোনাকে দেখে আতঙ্কিত হননি এমন গোলরক্ষক বোধ হয় পাওয়াই যাবে না। বল নিয়ে গোলপোস্টের দিকে আসতে দেখলে হয়তো আতঙ্কের শিহরণই খেলে যেত প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকদের মনে। সেই ম্যারাডোনাই কিনা এখন হিংসা করছেন এক গোলরক্ষককে! না, বিষয়টা ফুটবলসংক্রান্ত কিছু না, প্রেমঘটিত!

২৩ বছর বয়সী রোসিও অলিভার সঙ্গে চুটিয়ে প্রেম করছিলেন ম্যারাডোনা। গত মাসে ভালোবাসা দিবসে বাগদানও সেরে ফেলেছিলেন। কিন্তু হঠাত্ করেই সুখের সংসারে ছড়িয়ে পড়েছে সন্দেহের বিষবাষ্প। প্রেয়সীর সঙ্গে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের গোলরক্ষক ডেভিড ডি গিয়ার গোপন যোগাযোগ আছে, এমন সন্দেহ থেকেই নাকি হিংসায় জ্বলছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল কিংবদন্তি। রাগের মাথায় ইতিও টেনে ফেলেছেন সম্পর্কের। দুবাই থেকে একাই আর্জেন্টিনায় ফিরে গেছেন ম্যারাডোনার প্রেমিকা অলিভা।

গত মাসে অনুশীলনের জন্য দুবাইয়ে গিয়েছিলেন ইউনাইটেডের খেলোয়াড়েরা। গোলটা বেধেছে সে সময়ই। প্রেমিকা অলিভা রেড ডেভিলদের স্প্যানিশ গোলরক্ষক ডি গিয়ার সঙ্গে গোপনে ফেসবুক-টুইটারের তথ্য আদান-প্রদান করেছেন বলে সন্দেহ করেছেন ম্যারাডোনা। সন্দেহটা উসকে দিয়েছিলেন ম্যারাডোনার ভাগনে চিনো লাকোস্তে। ঠাট্টা করে তিনি বলেছিলেন যে, ‘অলিভা সমবয়সী কোনো প্রেমিক খুঁজছে।’ সঙ্গে যোগ করেছিলেন, ‘সম্ভবত একজন গোলরক্ষক।’ ম্যারাডোনা হয়তো দুইয়ে দুইয়ে চার মেলাতে দেরি করেননি।

কিন্তু যাকে নিয়ে এত কাণ্ড, সেই ডি গিয়া নাকি এসবের কিছুই জানেন না। ম্যারাডোনার প্রেমিকার সঙ্গে কখনো দেখাও হয়নি বলে জানিয়েছেন এই স্প্যানিশ গোলরক্ষক। তাহলে কি শুধু সন্দেহের বশেই হিংসায় জ্বলছেন ম্যারাডোনা?