মঙ্গলবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আওয়ামী লীগ ২৭ বিএনপি 22 জামায়াত ৩ অন্যান্য ৩ জাপা ০

image_115991তৃতীয় দফায়  শনিবার ৮১টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্যে ৫৩টি উপজেলার প্রাথমিক ফলাফল  এসে পৌঁছেছে। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা ২৭ টি, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা 22টি, জাপা সমর্থিত প্রার্থীরা ০টি, জামায়াত সমর্থিত প্রার্থীরা ৩টি ও অন্যান্য প্রার্থীরা ৩টিতে জয় পেয়েছেন।





কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী শরিফুল ইসলাম ৬১, ৭৯৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামী লীগ সমর্থিত সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটু পেয়েছেন ৪৭, ৯৭৮ ভোট। 





হোসেনপুর (কিশোরগঞ্জ) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আইয়ূব আলী ৪২,০৮৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত জহিরুল ইসলাম মবিন পেয়েছেন ৩০, ৪৪৮ ভোট





কুলিয়ারচর (কিশোরগঞ্জ) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী নুরুল মিল্লাত ৪২, ৩৭৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী হাসান সারওয়ার পেয়েছেন ৩০, ২৪২ ভোট।





নেত্রকোনা সদরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এস এম কামরুল হাসান শাহীন ৫৭, ০১৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মজিবুর রহমান খান পেয়েছেন ৪৮, ৫৬৩ ভোট।





মোহনগঞ্জ (নেত্রকোনা) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আখম শফিকুল হক ২৮, ৪২৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের সমর্থিত প্রার্থী লতিফুর রহমান রতন পেয়েছেন ২২, ৩২৭ ভোট। 











আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী কামরুজ্জামান কমল ৩৯, ০৮৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর পেয়েছেন ৩৩, ৮৭২ ভোট।





বাগেরহাট সদরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মজিবর রহমান খান ৬৬, ৫১০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সৈয়দ নাসির আহমদ মালেক পেয়েছেন ২২, ৮৮৬ ভোট।





শরণখোলা(বাগেরহাট) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী কামাল উদ্দিন আকন ২৭, ৬২৯ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী খান মতিয়ার রহমান পেয়েছেন ৮, ১৪৪ ভোট।





রামপাল (বাগেরহাট) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শেখ আবু সাঈদ ৪৪, ২৮৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী জুলফিকার আলী পেয়েছেন ১৭, ০৫৩ ভোট। 





মোড়লগঞ্জ (বাগেরহাট) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো. শাহ আলম বাচ্চু ৭৬, ৯৭৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আব্দুল মজিদ জব্বার পেয়েছেন ১৪, ৮৮২ ভোট। 





মানিকগঞ্জ সদর উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী খন্দকার লিয়াকত হোসেন ২১, ৩৩৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী অধ্যক্ষ হাবিবুর রহমান পেয়েছেন ১২, ৯০৮ ভোট।





ফরিদপুর সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবর ৮৪, ৯২৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত মাহাবুবুল হাসান পিংকু পেয়েছেন ৬২, ৮৫৩ ভোট।





আলফাডাঙ্গা (ফরিদপুর) উপজেলায় আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী এম এম জালালউদ্দিন ১৯, ১৫৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত মকিবুল হাসান কুটু পেয়েছেন ১২, ৬৪১ ভোট।





চরভদ্রাসন (ফরিদপুর) উপজেলায় বিএনপি প্রার্থী এজিএম বাদল আমীন ৯, ০১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদন্ধি আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো. কাউসার পেয়েছেন ৭, ০৮৮ ভোট। 





সদরপুর (ফরিদপুর) উপজেলায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী কাজী শফিকুর রহমান ৩৩, ২৮০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এইচএম শাহেদীদ জামান লিপু পেয়েছেন ২৩, ৭১৯ ভোট।





হরিপুর (ঠাকুরগাঁও) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী নুরুল ইসলাম ৩৮, ০৬৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শামীম ফেরদৌস টগর পেয়েছেন ১৭, ৬৩৭ ভোট।





কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী এড. সৈয়দ মো. শামছুল আলম ২৪, ১৯৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত এ কে এম নুরুল আমিন রাজু প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১০, ৩৫২ ভোট।





হোমনা (কুমিল্লা) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আজিজুর রহমান মোল্লা ৩৭, ৯১৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী রেহানা বেগম পেয়েছেন ২৫, ১০৭ ভোট।





পাইকগাছায় (খুলনা) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট স.ম বাবর আলী ৫৯, ০৩৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামী লীগ সমর্থিত রশিদুজ্জামান পেয়েছেন ৩৮, ৪৯৪ ভোট।





মংলা (খুলনা) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবু তাহের হাওলাদার ৩৫, ৫৬১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত মোল্লা আবদুল জলিল পেয়েছেন ১৬, ৩২৯ ভোট।





লোহাগড়া (নড়াইল) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সৈয়দ ফয়জুল আমীর লিটু ৫৯, ১৭৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী জিএম নজরুল ইসলাম পেয়েছেন ৩০, ৬০৭ ভোট।





সাদুল্লাপুর (গাইবান্ধা) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত সাইদুর রহমান মুন্সি ৪৮, ১২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সাহারিয়ার খান বিপ্লব পেয়েছেন ৪৪, ৩৪৬ ভোট।





ফুলপুর (ময়মনসিংহ) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট আবুল বাসার আকন্দ ৫০, ৭০০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আতাউল করিম রাসেল ২৯, ৮৫৭ পেয়েছেন ভোট।





কাউখালী (রাঙ্গামাটি) উপজেলা আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রাথী এস এম চৌধূরী (চৌচামং) ১৩, ৫০৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী অর্জুন মনি চাকমা পেয়েছেন ১১, ৫০৮ ভোট।





গোদাগাড়ী (রাজশাহী) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ইসহাক আলী ৭৬, ২৬৭, ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামী লীগ সমর্থিত একেএম আসাদুজ্জামান পেয়েছেন ৪৫, ৪৩৭ ভোট।





দিনাজপুর সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ফরিদুল ইসলাম ৭০, ৮৪২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মোকারম হোসেন পেয়েছেন ৬০, ৬২৮ ভোট।





নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) উপজেলায় জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী নুরে আলম সিদ্দিকী ৩৪, ২০৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামী লীগ সমর্থিত আতাউর রহমান পেয়েছেন ৩৩, ৬৪৭ ভোট। 





নাঙ্গলকাট (কুমিল্লা) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সামছু উদ্দিন কালু ১, ৩৭০৫০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপি সমর্থিত নজির আহাম্মদ ভুঁইয়া পেয়েছেন ২৩, ১৯২ ভোট।





গাইবান্ধা সদর উপজেলায় জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী আবদুল করিম ৫৯, ৯৭৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী আওয়ামী লীগ সমর্থিত শাহ সারোয়ার করিম পেয়েছেন ৩২, ০২৯ ভোট।





আদিতমারী (লালমনিরহাট) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আইয়ুব আলী ৩৬, ১৯২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ফারুক ইমরুল কায়েস পেয়েছেন ২৯, ৩০৯ ভোট।





কুড়িগ্রাম সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী পনির উদ্দীন ‍আহমেদ ৪৪, ৮৩৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সাইদুর রহমান ব্যাটারি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৮, ০২৫ ভোট। 





শরীয়তপুর সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবুল হাশেম ৪৬, ৯৬৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত মাহবুব মোর্শেদ টিপু পেয়েছেন ১১, ০১৪ ভোট।





দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ ৫৭, ২৯৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শাহ মনিরুল ইসলাম মনির পেয়েছেন ৫১, ২৩২ ভোট। 





নড়িয়া (শরীয়তপুর) উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এ কে এম ইসমাইল হোসেন ৪৮, ১১৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন খান পেয়েছেন ৩৯, ০৯৫ ভোট।





দক্ষিণ সুরমা (সিলেট)উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবু জাহিদ ৩০, ৫৮৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াতের মাওলানা লোকমান আহমদ পেয়েছেন ২৬, ৩৩৭ ভোট।





ঘিওর (মানিকগঞ্জ) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী খন্দকার লিয়াকত হোসেন ২১, ৭৪৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব পেয়েছেন ১২, ৯০৮ ভোট। 





বড়লেখা (মৌলভীবাজার) উপজেলায় আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম সুন্দর ২৯, ৯৪৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াত সমর্থিত এমাদুল ইসলাম পেয়েছেন ২৮, ২২৬ ভোট। 





শ্রীবরদী (শেরপুর)উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মো. আশরাফ হোসেন খোকা ২৮, ০৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটকতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আব্দুর রহিম দুলাল পেয়েছেন ২৫, ৭৪৮ ভোট।





বুড়িচং (কুমিল্লা) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত এটিএম মিজানুর রহমান ৪৩, ৯৬০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাজ্জাদ হোসেন স্বপন আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৩৭, ৩৪২ ভোট। 





ব্রা‌হ্মণপাড়া (কুমিল্লা) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী ২৭, ৪৩৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সামছুল আলম ২১, ৫০৪ ভোট।





দেলদুয়ার (টাঙ্গাইল) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী এস এম ফেরদৌস আহমেদ ৩৯, ৪৯১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবুল কালাম সিদ্দিকী (মঈন সিদ্দিকী) পেয়েছেন ২১, ৫৯২ ভোট। 





ধনবাড়ি (টাঙ্গাইল) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মীর ফারুক আহমাদ ফরিদ ৩১, ৪৪৫ ভোট ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী হাবিবুল্লাহ ফকির ২৪, ৬৪৮ ভোট। 





বাঘাইছড়ি (রাঙামাটি) উপজেলায় জেএসএস (সন্তু) সমর্থিত প্রার্থী বড় ঋষি চাকমা ১৯, ২৭১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জেএসএস (এমএন লারমা) সমর্থিত সুদর্শন চাকমা পেয়েছেন ১২, ২১৬ ভোট।





বরকল (রাঙামাটি) উপজেলায় জেএসএস (সন্তু) সমর্থিত প্রার্থী মনি চাকমা ৯, ৩৮০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের সন্তোষ চাকমা পেয়েছেন ৬, ১৬৭ ভোট।





বান্দরবান সদর উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত আবদুল কুদ্দুস ১১, ১৯১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জনসংহতি সমিতির (জেএসএস-সন্তু লারমা) প্রার্থী উ উইন মং জলি পেয়েছেন ৯, ১৩১ ভোট।





আলীকদম (বান্দরবান) উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আবুল কালাম ৮, ৩৩১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী জামাল উদ্দীন পেয়েছেন ৫, ৪৬৮ ভোট।





দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) উপজেলায় জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী মওলানা আজিজুর রহমান ৫৮, ১৫৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ আজাদুল ইসলাম আজাদ ৪৮, ৯২৩ ভোট।





দাগনভূঞা (ফেনী) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী দিদারুল কবির রতন ৯৩, ০৫৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত আকবর হোসেন ৫, ৩৩২ ভোট। এ উপজেলার দুইটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।





টুঙ্গিপাড়া (গোপালগঞ্জ) উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী গাজী গোলাম মোস্তাফা ৩১, ৯৬৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সোলায়মান বিশ্বাস পেয়েছেন ১১, ৯২৩ ভোট।





হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবদুর রশিদ মজুমদার ৫১, ৬৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী-নজরুল ইসলাম তালুকদার পেয়েছেন ৪৮, ০৯৯ ভোট।





ভোলা সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মোশারেফ হোসেন ১, ৫৬, ৩৮৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত ফারুক মিয়া পেয়েছেন ৯, ৯০৪ ভোট।





বাবুগঞ্জ (বরিশাল) উপজেলায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সরদার খালেদ হোসেন ৩৬, ৬৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী সুলতান আহমেদ খান পেয়েছেন ৯, ৮১৯ ভোট। 





জামালগঞ্জ (সুনামগঞ্জ) উপজেলায় পরিষদে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী শামছুল আলম ঝুনু মিয়া ২৪, ৮৭৪ ভোট । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী রেজাউল করিম শামীম আহমদ পেয়েছেন ২৪, ১০৩ ভোট।

এ জাতীয় আরও খবর