রবিবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

লিবারেশন ’৭১ : বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ

 

wফিচার ডেস্ক: লিবারেশন ’৭১ মূলত বাংলাদেশি স্টুডিওতে নির্মানাধীন একটি ফার্স্ট পারসন শ্যুটার গেম। গেমটি ডেভেলপ করছেন কয়েকজন তরুণ গ্রাফিক্স ডিজাইনার ও প্রোগ্রামারের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ‘টিম ৭১’ ।  ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠিত হওয়া এই গ্র“পের উদ্দেশ্য তরুণ প্রজš§ তথা পুরো পৃথিবীর কাছে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস তুলে ধরা।
সম্পূর্ণ স্বেচ্ছাসেবী এই টিমটি এক বছরে অনেক কিছু গুছিয়ে নিতে পারলেও গেমটির ডেভেলপের কাজ চলছে খুব ধীরে। কারণ এই ধরণের একটি গেম বানাতে বাইরের দেশে কোটি কোটি টাকা খরচ হয়, কিন্তু এই গ্র“পের ঝুলি একেবারেই ভাড়ে মা ভবানী! নিজেদের পকেটের টাকা দিয়ে, সমবায়ের মাধ্যমেই চলছে গেমের ডেভেলপিং এর কাজ। নিজেদের এগিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা ও মুক্তিযুদ্ধকে সবার কাছে ছড়িয়ে দিতেই তরুণরা রাত জেগে একটু একটু করে এগিয়ে যাচ্ছেন সফলতার দিকে।
বাংলাদেশে এর আগে ‘অরুনোদয়ের অগ্নিশিখা’ নামে একটি মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক গেম বের হলেও একসময় সেটির প্রচার বন্ধ হয়ে যায়। সেই অনুপ্রেরণা থেকেই নতুন করে আবার দেশের তরুণ প্রজšে§র কাছে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস পৌঁছে দেওয়ার জন্যেই এই উদ্যোগ। টিম ৭১ এর প্রতিষ্ঠাতা ফরহাদ রাকিব জানান, ‘এই দেশের বর্তমান তরুন প্রজš§ মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে খুব বেশি অবগত নয়। তারা জানে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস এবং নয় মাস আমরা যুদ্ধ করেছি যার ফলে  ১৬ই ডিসেম্বর আমাদের বিজয় দিবস। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত অনেক কিছুই ঘটেছে যা সম্পর্কে তারা খুব কমই জানে। আপনি চাইলেই তাদেরকে মুক্তিযুদ্ধের বই ধরিয়ে দিয়ে ইতিহাস শেখাতে পারবেন না। তাই আমাদের পরিকল্পনা ছিলো যে এখনকার প্রজš§ যেহেতু কম্পিউটার ও কম্পিউটার গেমস এর প্রতি বেশি আগ্রহী, কেননা তাদেরকে তাদের পছন্দের পদ্ধতিতেই মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে একটা পরিষ্কার ধারণা দেয়া যায়! এতে তারা আনন্দও পাবে, মুক্তিযুদ্ধের সময়কার পরিস্থিতি গুলো অনুভব করতে পারবে, এমনকি মুক্তিযুদ্ধে আসলে কি হয়েছিলো সে সম্পর্কেও জানতে পারবে’
সম্পূর্ণ গেমটির মাঝে কমপক্ষে ১৬ টি মিশন থাকবে বলে জানা গেছে। যেগুলো ২৫ শে মার্চ রাত থেকে শুরু হয়ে একটি টাইমলাইন অনুসরণ করে ১৬ ডিসেম্বরে গিয়ে শেষ হবে। এছাড়া গেমের মধ্যে আমাদের মহান সাত জন বীরশ্রেষ্ঠের শেষ মিশনগুলো এবং মুক্তিযুদ্ধের সময়কার অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ মিশনগুলোর আদলে একটি গেমপ্লে অন্তর্ভুক্ত হবে বলে জানায় গেমটির ডেভেলপাররা। তবে এর আগে একটি দুই মিশনের ‘ডেমো ভার্সন’ রিলিজ করার পরিকল্পনা রয়েছে ‘টিমÑ ৭১  এর।
টিমটির প্রতিষ্ঠার এক বছর পূর্ণ হলেও পর্যাপ্ত লোকবল এবং অর্থের অভাবে গেমটির কোন ভালো প্রতিফলন সৃষ্টি করতে পারেনি টিম ৭১। টিম ৭১ এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রোগ্রামিং ডিপার্টমেন্ট হেড ফয়সাল আহমেদের মতে, ‘যদি পর্যাপ্ত অভিজ্ঞ লোকবল ও ডেভেলপমেন্ট এর কাজ পরিচালনার জন্য আর্থিক সুবিধাদি পাওয়া যেত তাহলে এতদিনে হয়তো বেশ ভালোই এগিয়ে যেতে পারতো ‘টিমÑ ৭১।
তবে টিম ৭১ ভক্তদের জন্য গ্র“পটি স্বাধীনতার মাস মার্চেই এন্ড্রয়েড এবং ফেসবুকে ‘রাজাকার ব্লাস্ট’ নামে একটি সিম্পল গেইম রিলিজ করবে।  এছাড়া লিবারেশন ৭১ এর একটি ডেমো ভার্সনও মার্চ মাসে রিলিজ করার আশা প্রকাশ করছে টিম ৭১।
কোন বড় প্রতিষ্ঠান থেকে সাহায্য পেলে লিবারেশন ৭১ আরও তাড়াতাড়ি আলোর মুখ দেখতে পারতো, সেই সঙ্গে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের আসল ইতিহাস ছড়িয়ে দেওয়া যেত বিশ্ব বাজারে তরুণদের মধ্যে।
 
লিবারেশন ‘৭১ এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইট পেতে ক্লিক করু 
িি.িষরনবৎধঃরড়হ৭১.পড়স, িি.িভধপবনড়ড়শ.পড়স/খরনবৎধঃরড়হ৭১.ইউ
 

এ জাতীয় আরও খবর