বুধবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আগামীকাল এশিয়ার ‘বিশ্বকাপ’ শুরু : টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া দলগুলোর পরিসংখ্যান


 

 
asডেস্ক রিপোর্ট : উপমহাদেশের ‘বিশ্ব কাপ’ খ্যাত এশিয়া কাপে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ৩ দেশ- ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকা ছাড়াও স্বাগতিক বাংলাদেশ ও নবাগত আফগানিস্তান দু’সপ্তাহব্যাপী এ টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে। এবার ৫টি দল ও কিছু পরিসংখ্যানের দিকে দৃষ্টি দেওয়া যাক। 

ভারত: এশিয়া কাপে এ পর্যন্ত সবচেয়ে সফল দল। সর্বশেষ ২০১০ সালসহ মোট পাঁচবার শিরোপা জিতেছে দলটি। ইনজুরির কারণে নিয়মিত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি অংশ নিতে না পারলেও ভারতের মতো প্রায় একই কন্ডিশনের কারণে তারুণ্য নির্ভর দলটির ভালো করার যথেষ্ট সম্ভাবনা আছে। বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি দলের নেতৃত্ব দেবেন। গত বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরেও তিনি ভাল করেছেন। এছাড়াও রোহিত শর্মা, চেতেশ্বর পুজারার মতো অনেক ভাল ব্যাটসম্যানতো রয়েছেই। তবে বিশ্বকাপের মাত্র এক বছর বাকি থাকায় মিডল অর্ডার কতটা শক্তিশালী হয়, সেজন্য পুজারার পারফরমেন্সের ওপরই বেশি নজর রাখবে ভারতীয় ক্রিকেট সংশ্লিষ্টরা।

পাকিস্তান: বড় একটা টুর্নামেন্টের আগে আবারও মাঠের ভিতরের চেয়ে বাইরের সমস্যায় জড়িয়ে পড়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। তবে প্রশাসনিক সমস্যা যাই থাকুক না কেন, দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলংকার বিপক্ষে সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজ জয়ী পাকিস্তান বেশ ভালো অবস্থায় আছে। অভিজ্ঞ ও তারুণ্যের মিশ্রণে গড়া দলটি বেশ আত্মবিশ্বাসী। মিসবাহ উল হকের নেতৃত্বাধীন বর্তমান চ্যাম্পিয়ন দলটি শিরোপা অক্ষুন্ন রাখতে বদ্ধপরিকর। দলটি পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। তবে পেস ও স্পিন উভয় প্রকার বোলিংয়েই শক্তিশালী একটি দল। ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ খ্যাত পাকিস্তান যে কোনো কিছুই করতে পারে। এ পর্যন্ত দুই বার শিরোপা জয় করেছে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন এ দলটি।

শ্রীলংকা: অভিজ্ঞ মাহেলা জয়াবর্ধনে ও সাঙ্গাকারা থাকলেও পূর্বের ন্যায় শক্তিশালী নয় চারবারের চ্যাম্পিয়ন দলটি। যদিও দিনেশ চান্ডিমাল, কুশল পেরেরা, আশান প্রিয়াঞ্জন ও লাহিরু থিরিমান্নের মতো দক্ষ খেলোয়াড় দলটিতে রয়েছে। তবে এখনো তারা নিজেদের নামের সুবিচার করতে পারেননি। দলটির বড় সুবিধা হলো গত এক মাস যাবত বাংলাদেশে অবস্থান করে স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-২০ সিরিজ জয় করেছে। বোলিং আক্রমণের নেতৃত্বে থাকা লাসিথ মালিঙ্গার সঙ্গে অধিনায়ক অলরাউন্ডার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ও থিসারা পেরেরা মূল শক্তি হিসাবে দলকে এগিয়ে নেবেন। মন্থর গতির উইকেটে দুই স্পিনার সাচিত্রা সেনানায়েকেও অজন্থা মেন্ডিজও ঝলসে উঠতে পারেন।

বাংলাদেশ: কাগজে কলমের হিসেবে হয়ত এখনো পরাশক্তি নয়। তবে  বাংলাদেশকে হিসেবে খাতা থেকে বাদ দেওয়া যাবে না। লংকার বিপক্ষে সদ্য শেষ হওয়া সিরিজে দলটি খুব ভালো কিছু করতে না পারলেও কিছুদিন আগেই নিজ মাঠে নিউজিল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে। গত আসরে ভারত, শ্রীলংকাকে হারিয়ে ফাইনালে মাত্র ২ রানে পাকিস্তানের কাছে পরাজিত হয়ে রানার্স আপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে। নিজেদের সেরাটা খেলতে পারলে যে কোন দলকে হারানোর ক্ষমতা রাখে স্বাগতিকরা। ২০১২ সালের এশিয়া কাপে শচিন টেন্ডুলকার তার শততম আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরী করা ম্যাচেও ভারতকে হারিয়েছিল দলটি। তবে ইনজুরির কারণে দলে নেই ওপেনার তামিম ইকবাল। নিষেধাজ্ঞার কারণে প্রথম ২ ম্যাচ খেলতে পারছেন না বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও। তবে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক, সোহাগ গাজি, এনামুল হক বিজয় ও আরাফাত সানির মতো খেলোয়াড় থাকায় যে কোনো ঘটনা তারা ঘটাতে সক্ষম। স্পিন নির্ভর বোলিং আক্রমণ নিয়ে এর আগে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন সকল দলের বিপক্ষেই জয় ছিনিয়ে এনেছে। তাছাড়া হোম গ্রাউন্ডের বাড়তি সুবিধাতো থাকছেই।

আফগানিস্তান: বিশ্ব ক্রিকেটে ইতোমধ্যেই সবার নজর কেড়েছে দলটি। যুদ্ধ-বিধ্বস্ত দেশটি অত্যন্ত স্বল্প সময়ের মধ্যে বিশ্ব ক্রিকেটে নিজেদের শক্ত অবস্থান গড়ে নিয়েছে। প্রথমবারের মতো অংশ নিচ্ছে এশিয়া কাপে। অবশ্যই ইতোমধ্যে টি-২০ ও ৫০ ওভারের বিশ্ব কাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে দলটি। টেস্ট খেলুড়ে দেশগুলোর বিপক্ষে আফগানদের বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। 
প্রতিপক্ষ হিসেবে তারা খুব শক্তিশালী না হলেও মোহাম্মদ নবী, মোহাম্মদ শাহজাদ, নওরোজ মঙ্গল, শাপুর জারদান ও দৌলত জারদানের মতো ভালো খেলোয়াড় দলটিতে রয়েছে। তাছাড়া বেশ কয়েক জন খেলোয়াড়  বিপিএল এবং ঢাকা লীগে খেলেছেন। টি-২০ বিশ্বকাপের আগে এ টুর্নামেন্ট হবে দলটির আদর্শ  প্রস্তুতি।

সবচেয়ে বেশি রান: খেলোয়াড়/ দেশ/ ম্যাচ/ রান/ গড়/ ১০০
এস জয়সুরিয়া শ্রীলংকা ২৫ ১২২০ ৫৩.০৪ ৬
এস টেন্ডুলকার ভারত ২৩ ৯৭১ ৫১.১০ ২
কে সাঙ্গাকারা শ্রীলংকা ১৯ ৮২৭ ৪৮.৬৪ ৩
এ রানাতুঙ্গা শ্রীলংকা ১৯ ৭৪১ ৫৭.০০ ১
এ ডি সিলভা শ্রীলংকা ২৪ ৬৪৫ ৩২.২৫ ০

ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংস: খেলোয়াড়/ দেশ/ রান/ বল/ প্রতিপক্ষ/ তারিখ
ভি কোহলি ভারত ১০৩ ১৪৮ পাকিস্তান ১৮ মার্চ ২০১২
ইউনিস খান পাকিস্তান ১৪৪ ১২২ হংকং ১৮ জুলাই ২০০৪
এস মালিক পাকিস্তান ১৪৩ ১২৭ ভারত ২৫ জুলাই ২০০৪
সৌরভ গাঙ্গলি ভারত ১৩৫* ১২৪ বাংলাদেশ ৩০ মে ২০০০
এ রানাতুঙ্গা শ্রীলংকা ১৩১* ১৫২ ভারত ১৮ জুলাই ১৯৯৭

সর্বাধিক উইকেট: খেলোয়াড় দেশ ম্যাচ উইকেট গড় ইকোনোমি
এম মুরলিধরন শ্রীলংকা ২৪ ৩০ ৫/৩১ ২৮.৮৩
সি ভাস শ্রীলংকা ১৯ ২৩ ৩/৩০ ২৭.৭৮
আই পাঠান ভারত ১২ ২২ ৪/৩২ ২৭.৫০
এস জয়সুরিয়া শ্রীলংকা ২৫ ২২ ৪/৪৯ ৩০.৩১
রাজ্জাক বাংলাদেশ ১৫ ২০ ৩/১৭ ৩০.৬০

সেরা বোলিং: খেলোয়াড় দেশ ফিগার প্রতিপক্ষ ভেন্যু
এ মেন্ডিজ শ্রীলংকা ৬-১৩ ভারত করাচি
এ জাবেদ পাকিস্তান ৫-১৯ ভারত শারজাহ
এ আইউব ভারত ৫-২১ পাকিস্তান ঢাকা
এ মেন্ডিজ শ্রীলংকা ৫-২২ সংযুক্ত আরব আমীরাত লাহোর
এম মুরলিধরন শ্রীলংকা ৫-৩১ বাংলাদেশ করাচি


দলীয় সাফল্য: দল ম্যাচ জয় পরাজয় টাই/পরিত্যক্ত সাফল্য %
শ্রীলংকা ৪৩ ২৯ ১৪ ০/০ ৬৭.৪৪
ভারত ৩৯ ২৪ ১৪ /১ ৬৩.১৫
পাকিস্তান ৩৫ ২১ ১৩ /১ ৬১.৭৬
বাংলাদেশ ৩৩ ৪ ২৯ ০/০ ১২.১২
হংকং ৪ ০ ৪ ০/০ ০.০০
সংযুক্ত আরব আমীরাত ৪ ০ ৪ ০/০ ০.০০

রোল অব অনার: সাল ভেন্যু চ্যাম্পিয়ন রানার আপ
১৯৮৪- আমিরাত- ভারত শ্রীলংকা
১৯৮৬- শ্রীলংকা- শ্রীলংকা পাকিস্তান
১৯৮৮- বাংলাদেশ- ভারত শ্রীলংকা
১৯৯০-৯১- ভারত- ভারত শ্রীলংকা
১৯৯৫- আমিরাত- ভারত শ্রীলংকা
১৯৯৭- শ্রীলংকা- শ্রীলংকা ভারত
২০০০- পাকিস্তান- পাকিস্তান শ্রীলংকা
২০০৪- শ্রীলংকা- শ্রীলংকা ভারত
২০০৮- পাকিস্তান- শ্রীলংকা ভারত
২০১০- শ্রীলংকা- ভারত শ্রীলংকা
২০১২- বাংলাদেশ- পাকিস্তান বাংলাদেশ

এ জাতীয় আরও খবর

বিএনপি নেতা টুকুর বক্তব্য শিষ্টাচারবহির্ভূত ও কুরুচিপূর্ণ: জামায়াত

মাথা দিয়ে বাংলাদেশকে উড়িয়ে দিলেন অঞ্জন

ক্যাম্পাসে ফিরেছেন রিভা-রাজিয়া

পরীক্ষার সিরিজে প্রত্যাশিত জয় টাইগারদের

প্রেমিকাকে পেতে স্ত্রীকে বিষ খাইয়ে হত্যা

রাজনৈতিক সহিংসতা ও নির্বাচনী অস্থিতিশীলতা বিনিয়োগকারীদের ভীত করে: পিটার হাস

গৃহবধূকে ধর্ষণের পর হত্যায় ৯ জনের যাবজ্জীবন

নিহত রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহর ১৪ স্বজন কানাডায়

টুকু জনগণের ভাষায় কথা বলতে পারেন না: জামায়াত

‘সাবধানে যাবি, তাড়াতাড়ি আসবি’: মেয়ের সঙ্গে বাবার শেষ কথা

প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা বার্তা লিখবে দেড় কোটি শিক্ষার্থী

মানুষের জন্য চিকিৎসা নেই, বেকারদের জন্য কাজের নিশ্চয়তা নেই : জিএম কাদের