সোমবার, ১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৩১শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আজ সেরা বারোর দিন

530a58b2efd24-38বিকেএসপিতে বেশ কটি আমগাছ। প্রায় সবগুলোতেই ঝাঁপিয়ে মুকুল এসেছে। আর কদিন পর নিশ্চয়ই সব মুকুল থাকবে না? বিকেএসপি চত্বরে আমের মুকুলের মতো ফুটবলের মুকুলেরাও এসেছে এয়ারটেল রাইজিং স্টারস প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় আসরে। মোট ১২০ জন খুদে ফুটবলার থেকে ১২ জন ‘ভাগ্যবান’কে খুঁজে বের করার জন্য কাল থেকে মাঠে নেমেছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড সকার স্কুলের চার কোচ—কেভিন ও’কনেল, অ্যাড হিল্টন, ডেভিড চ্যাপম্যান ও লামি সোনোলা। আজ চূড়ান্ত ফলের দিন। 

তাহলে কি বাকি ১০৮ জন হবে অকালে ঝরে পড়া মুকুল? এমনটা মানতে নারাজ মানিকগঞ্জের জাকির হোসেন, টাঙ্গাইলের নাহিদ হাসান, বগুড়ার আল আমিন কিংবা যশোরের জাহাঙ্গীর আলম। ওদের কথা, ওল্ড ট্রাফোর্ডে যেতে পারলে মন্দ হবে না, কিন্তু এখানে এসে দেশি-বিদেশি কোচদের কাছ কিছু শিখতে পারাও অনেক কিছু। বিশেষ করে সকার স্কুলের চার কোচের প্রশংসা শোনা গেল সবার মুখে। জয়পুরহাটের ফাইসুল আজিম বলছিল, ‘স্যাররা যে পদ্ধতিতে ওয়ার্মআপ করালেন, তেমনটা আমরা এর আগে করিনি। বেশ সহজ পদ্ধতি, আবার কাজের কাজটাও হয়ে যায়।’

সকাল সাড়ে আটটা থেকে শুরু হয়েছিল গতকালের পর্ব। শুরুতেই নিজেদের কায়দায় ওয়ার্মআপ করিয়ে চারজনের একটা করে দলে ভাগ করে দেন কোচরা। প্রথমে ছোট ছোট মাঠে হলো ছোট ছোট ম্যাচ। দিন গড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ল দলের সদস্য ও ম্যাচের সময়সীমা। ছোট-বড়—প্রতিটি ম্যাচেই ছেলেদের পায়ের দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখলেন চার কোচ। কিছুক্ষণ বাদে বাদে নোটপ্যাডে টুকে নিলেন নম্বর। তাই কোচরা সামনে এলেই ছেলেরাও নিজেদের সেরাটুকু দেখিয়ে দিতে ভুলল না। আবার অতি উত্তেজনায় লেজেগোবরেও হয়ে যাচ্ছিল কখনো কখনো! মুখে না বললেও শরীরী ভাষায় ঠিকই বোঝা যাচ্ছিল, ক্রিকেটের মতো ‘নার্ভাস নাইনটি’তে ভুগছে অনেকেই! ভোগারই কথা, টানা চার মাস ওদের মাথায় যে কেবল সেরা ১২ হওয়ার পোকা! আর আজ শেষ হচ্ছে অপেক্ষার প্রহর। বিকেল সাড়ে পাঁচটায় সেরা বারো ঘোষণার মুহূর্তটি সম্প্রচারিত হবে ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনে।

খুব খেটে খেলছে বিকেএসপির শিক্ষার্থী মোস্তাজেব খান। মাঠের পাশ থেকে সতীর্থরাও দারুণ উৎসাহ দিয়ে যাচ্ছে প্রতিদিনই। বন্ধুদের বিশ্বাস, ‘মোস্তাজেবের চান্স পাওয়ার “চান্স” আছে! ও খুব ভালো খেলে।’ তবে যাকে নিয়ে এত প্রত্যাশা, সে বলছে, ‘আমার কাছে মনে হয় এটা পুরোই ভাগ্য!’

ভাগ্যের বিষয়টায় অনেকটাই একমত প্রতিযোগিতার আট বাংলাদেশি কোচের একজন জাভেদ হোসেনও, ‘এখানে ভাগ্য বড় একটা বিষয়। কারণ, ওরা (বিদেশি কোচ) তো খুব অল্প সময় পাচ্ছে ছেলেদের মেধা বুঝতে। তার পরও আশা করি, ওদের পর্যবেক্ষণে চমৎকারিত্ব থাকবে, ফলে ভালোরাই সুযোগ পাবে।’

আর সকার স্কুলের কোচরা কী বলেন এ বিষয়ে? কথা হলো চার কোচের একজন লামি সোনোলার সঙ্গে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ফাউন্ডেশনের বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন। এই অল্প সময়ে বাংলাদেশের ফুটবলারদের কেমন দেখলেন তিনি? সোনোলার কথা, ফুটবলের জন্য যে ওদের গভীর ভালোবাসা, এটা ভালোভাবেই বুঝেছেন। ওদের প্রায় সবাই মেধাবী। সবাই মিলেমিশে খেলছে। খেলা উপভোগও করছে। ভালো ফুটবলার হওয়ার জন্য এই তো যথেষ্ট! দেড় দিনে সেরা ১২ খুঁজে বের করা খুব কঠিন নয়?

সোনোলা বললেন, নিঃসন্দেহে কঠিন। এটা খুব বড় দায়িত্ব। তাই এটাকে তাঁরা নিয়েছেন খুব গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছি। ফুটবলকে ঘিরে ছেলেদের চোখে অনেক বড় স্বপ্ন। সোনোলার কাছ থেকেই জানা গেল আজ মূলত টেকনিক্যাল, শারীরিক সক্ষমতা, দলগতভাবে একেকজন কেমন করছে সেটা এবং বিচক্ষণতা-মানসিক শক্তি দেখা হবে।

এ জাতীয় আরও খবর

দেশে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ঘটে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মিসরে গির্জায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহত ৪১

ফাঁস হওয়া গোপন ভিডিও নিয়ে যা বললেন অঞ্জলি

‘বালুখেকো’ সেলিমকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

পাখির আঘাতে বিকল লন্ডনগামী বিমানের ফ্লাইট

বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে বাসের ধাক্কায় নিহত ২

বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত বুয়েট শিক্ষার্থীরা

বুয়েটের আন্দোলনকারীরা শিবির: জয়

অনুশীলনে গুলিবিদ্ধ বিজিবি সদস্যের মৃত্যু

সরকারি চাকরিজীবীদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ বিষয়ে করা রিট খারিজ

বঙ্গবন্ধু হত্যার বড় সুবিধাভোগী জিয়া ও তার পরিবার : তথ্যমন্ত্রী

আপনারা সবাই আমারে খায়া ফেললেন : পররাষ্ট্রমন্ত্রী