রবিবার, ২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ওজন কমাতে সহায়ক খাবার

Greenপ্রতিদিন আমরা নানা ধরনের খাবার খাই। এগুলো আমাদের শক্তি ও পুষ্টি যোগায়। তবে আমরা যা খাই এগুলোর সবটুকু কাজে লাগেনা। অতিরিক্ত এই শক্তিগুলো (যা ক্যালরি নামে পরিচিত) আমাদের শরীরে ফ্যাট হিসাবে জমা হয়। যার ফলে ওজনবৃদ্ধি ও নানা ধরনের রোগ বাসা বাধে। তবে মজার ব্যপার হলো কিছু কিছু খাবার আছে যেগুলো খুবই কম ক্যালরির এবং এরা শরীরের ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে। আসুন আপনাদের সেরকম কিছু অতিপরিচিত খাবারের সাথে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দিই।

গ্রীণ টি (সবুজ চা)

এতে আছে এন্টিঅক্সিডেন্ট, যা ক্যান্সার প্রতিরোধী এবং ওজন কমাতে সাহায্য করে। গবেষনা করে দেখা গেছে প্রতিদিন দুই কাপ করে গ্রীন টি খেলে বছরে প্রায় ৫ কেজি ওজন কমে।

পালং শাক

ছোটবেলায় পাপাইয়ের ফেভারেট খাবার স্পিনাচ এর কথা নিশ্চই সবার মনে আছে। স্পিনাচ খেয়ে শক্তিশালী হয়ে ওঠার দৃশ্য এখনো চোখে ভাসে তাই না? প্রতিদিন পালংশাক খেলে পুষ্টি এবং শক্তি অর্জনের পাশাপাশি প্রায় ১০০ ক্যালরি পরিমাণ ফ্যাট কমায়।

ক্যাপসিকাম

এক কাপ কুচানো ক্যাপসিকামে একটা কমলার থেকেও বেশি ভিটামিন সি পাওয়া যায়। এর মধ্যে আরো আছে ফাইবার, প্রোটিন এবং ভিটামিন-এ। মেদ কমাতে এর ভূমিকা অনন্য।

মাশরুম

একটা ছোট মাশরুমে মাত্র ২ ক্যালরি এনার্জি রয়েছে। এর মানে আপনি যতো ইচ্ছা ততো মাশরুম খেতে পারবেন। এর মধ্যেও রয়েছে প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট যা ফ্যাট বার্ন করে এবং শরীরের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

চিংড়ি

চিংড়ির বৈশিষ্ট হলো ক্যালরি কম কিন্তু প্রোটিন বেশি। একটুকরা মুরগীর মাংসে যে পরিমাণ ক্যালরি রয়েছে, তা মাঝারি আকারের ১৬ টি চিংড়ির সমান। এতে আরো রয়েছে ভিটামিন-ডি, সেলেনিয়াম এবং ওমেগা-৩ ফ্যাট যা আপনার শরীরের অতিরিক্ত ক্যালরি কমাতে অনন্য।

কামরাঙ্গা

মিষ্টি পাকা কামরাঙ্গায় ক্যালরির পরিমান খুবই কম। ভিটামিন-সি তে ভরপুর এবং প্রচুর ফাইবার বিদ্যমান। ফ্যাট কমানোর পাশাপাশি হৃদরোগ প্রতিরোধেও খুবই কার্যকরী।