মঙ্গলবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শহর পরিছন্ন রাখতে গৃহিনী ও গৃহ কর্মীদের সচেতন করুন…..মেয়র হেলাল উদ্দিন

mmmmmব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র, মিউনিসিপ্যাল এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ম্যাব) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি জননেতা মোঃ হেলাল উদ্দিন বলেছেন, শহরের রাস্তা ও ড্রেন দূষনের অন্যতম কারন গৃহস্থলী বর্জ্য। গৃহিনী ও গৃহ কর্মীগন বাড়ির আশে পাশে গৃহস্থলী বর্জ্য ফেলে। অনেক বাড়ির জানালা ও ছাদ থেকেই রাস্তা ও ড্রেনের উপর ময়লা ফেলানো হয়। অধিকাংশ সময় এ সমস্ত ময়লা ফেলানো হয় সকালে পরিছন্ন কর্মীরা তাদের দৈনন্দিন কাজ শেষ করার পর। এতে করে ঐ ময়লাটি পরদিন সকাল পর্যন্ত রয়ে যায়। যা শহরের পরিবশে ও ড্রেনেজ ব্যবস্থাকে বিনষ্ট করে। প্রত্যেক বাড়ির ময়লা যদি নির্ধারিত স্থানে জমা করে রাখা হয় এবং তা পরিছন্নতা কর্মী দিয়ে সরানো হয় তাহলে শহর পরিছন্ন থাকবে। তিনি প্রত্যেক বাড়ির গৃহিনী ও গৃহকর্মীদের কে সচেতন করার জন্য শহরবাসীকে আহবান জানান। মেয়র ১৮ ফেব্রুয়ারী সকালে পৌরসভার ফুলবাড়িয়ায় ড্রেন নির্মাণ কাজ উদ্বোধন কালে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তির উপস্থিতিতে উপরোক্ত বক্তব্য প্রদান করেন। এসময় অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক অধ্যক্ষ ইকবাল হোসেন, মেজর (অবঃ) দলিল উদ্দিন, পৌরসভার সহকারি প্রকৌশলী মোঃ কাওছার আহমেদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলহাজ মোঃ শাহজাহান মিয়া, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা শহিদ মিয়া, বাবুল মিয়া, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি রেজাউল করিম বাবুল, সাধারণ সম্পাদক মোঃ খবির উদ্দিন, শহর আওয়ামীলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন সোহেল, আমজাদ হোসেন রনি, যুবলীগ নেতা এমরান হোসেন মাসুদ, ঠিকাদার ফোরকান, জামিল, জুয়েল, জনি, ছগির হোসেন প্রমুখ। উল্লেখ্য ফুলবাড়িয়ার এই রাস্তা টি বর্ষা মৌসুমে জলামঙ্গ থাকে। তাই এই রাস্তাটি দিয়ে চলা চল কারি মানুষের দূর্ভোগ লাগভে গুরুত্বপূর্ন বিবেচনা করে এই ড্রেনটি নির্মান করা হচ্ছে। যা এলকাবাসীর দীর্ঘদিনের আকাংখা। পরবতীর্তে পানি নিষ্কাশনের জন্য বাইপাস রাস্তা সংলগ্ন বড় ড্রেন খনন ও রাস্তাটিও সংষ্কার করা হবে। 

এ জাতীয় আরও খবর