সোমবার, ৩রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘মুক্তিযোদ্ধা’ ম্যাডোনা!

‘সেই আশির দশকের শুরু থেকে বরাবরই নিজেকে একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বিবেচনা করে আসছি আমি। মুক্ত মত প্রকাশ ও স্বাধীন জীবন-যাপনের অধিকার সবারই আছে। মনের ইচ্ছেকে প্রাধান্য দিতে কিংবা স্বকীয়তা বজায় রাখতে আমাদের যুঝতে হবে কেন!’ সম্প্রতি অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত কনসার্টে হূদয়-ছোঁয়া এক বক্তব্যে এমন মন্তব্যই করেছেন ‘পপ কুইন’ ম্যাডোনা।



মুক্ত মত প্রকাশ করতে গিয়ে মৃত্যুর হুমকি এমনকি গ্রেপ্তারের হুমকিও পেয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন ৫৫ বছর বয়সী মার্কিন গায়িকা, গীতিকার, লেখিকা, নারী উদ্যোক্তা, নৃত্যশিল্পী ও অভিনেত্রী ম্যাডোনা লুইস চিকোনি।



সম্প্রতি নিউইয়র্কের বারক্লেস সেন্টারে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত কনসার্টের মঞ্চে রাশিয়ার নারীবাদী পাংক রক ব্যান্ড দল পুসি রায়টের সঙ্গে উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের পরিচয় করিয়ে দেওয়ার সময় চমত্কার কিছু কথা বলেন ম্যাডোনা।



ম্যাডোনা তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘পুসি রায়টের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় আমি মৃত্যুর হুমকি পেয়েছিলাম। শুধু তা-ই নয়, ২০১২ সালে রাশিয়ায় একটি কনসার্টে আমার বিরুদ্ধে সমকামী আচরণকে উত্সাহিত করার অভিযোগ তুলে গ্রেপ্তারের হুমকি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেদিন আমি আমার মঞ্চ পরিবেশনায় বিন্দুমাত্র পরিবর্তনও আনিনি। সেই কনসার্ট থেকে আমার ৮৭ জন ভক্ত গ্রেপ্তার হন। তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ—তাঁরা নাকি সমকামী আচরণ করেছিলেন!’ সম্প্রতি এক খবরে এমনটিই জানিয়েছে কন্ট্যাক্টমিউজিক।পুসি রায়ট ব্যান্ডের দুই সদস্য মারিয়া অ্যালভোকিনা (বাঁয়ে) ও নাদেজা তোলোকোনিকোভা



ম্যাডোনা আরও বলেন, ‘সেই আশির দশকের শুরু থেকে বরাবরই নিজেকে একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বিবেচনা করে আসছি আমি। আমি অনুধাবন করেছিলাম, আমারও কিছু বলার আছে। আমার মনের কথা সবাইকে জানানোর জন্য গানকেই বেছে নিই আমি। ‘‘লাইক এ ভার্জিন’’ কিংবা ‘‘ম্যাটেরিয়াল গার্ল’’-এর মতো গান গেয়ে আমাকে কম তোপের মুখে পড়তে হয়নি। লিঙ্গবৈষম্যের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় নানাভাবে শাস্তির মুখোমুখি হতে হয়েছে আমাকে। কিন্তু আমি হাল ছাড়িনি।’



অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত কনসার্টে হাজির হয়েছিলেন পুসি রায়ট ব্যান্ডের দুই সদস্য মারিয়া অ্যালভোকিনা ও নাদেজা তোলোকোনিকোভা। একজন অনুবাদকের মাধ্যমে তাঁরা তাঁদের বক্তব্যে বলেন, ‘আমাদের মনে রাখতে হবে, স্বাধীনতা কেউ কাউকে দেয় না। এটা আদায় করে নিতে হয়। পুসি রায়টের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।’



প্রসঙ্গত, নারী অধিকার, মানবাধিকার ও রাশিয়ার সরকারবিরোধী নীতির মতো বিষয়বস্তু নিয়ে গান গেয়ে এবং ভিন্ন ধারার পরিবেশনার মাধ্যমে আলোচিত হয়েছে রাশিয়ার প্রতিবাদী গানের দল পুসি রায়ট। 



রাশিয়ার বর্তমান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান রয়েছে ব্যান্ডটির। এর সদস্যরা পুতিনকে একনায়ক বলে আখ্যা দিয়েছেন। পুতিনের সঙ্গে রাশিয়ান অর্থোডক্স চার্চের সম্পৃক্ততা নিয়েও সোচ্চার পুসি রায়ট। এসব কারণে শুরু থেকেই রাশিয়ার সরকারের তোপের মুখে পড়ে ব্যান্ডটি।



২০১২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মস্কোর ক্রাইস্ট দ্য সেভিয়ার গির্জায় ঢুকে বিতর্কিত ‘পাংক প্রেয়ার’ গানটি পরিবেশনের মাধ্যমে তুমুল বিতর্কের জন্ম দেয় পুসি রায়ট। ‘পাংক প্রেয়ার’ গানটির মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের প্রতি অর্থোডক্স চার্চের সমর্থনের বিষয়টিকে আক্রমণ করা হয়। এর কয়েক সপ্তাহ পর ধর্মীয় বিদ্বেষ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে গির্জায় সহিংস আচরণের অভিযোগে গ্রেপ্তার হন পুসি রায়টের তিন সদস্য মারিয়া অ্যালভোকিনা, ইক্যাটেরিনা সামুেসভিচ ও নাদেজা তোলোকোনিকোভা। গির্জায় মাস্তানির অভিযোগে দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয় তাঁদের। ২০১২ সালের অক্টোবরে শর্ত সাপেক্ষে মুক্তি পান সামুেসভিচ। কিন্তু অ্যালভোকিনা ও তোলোকোনিকোভাকে কারাগারে আটকে রাখা হয়।



পুসি রায়টের দুই সদস্যকে আটকে রাখায় রাশিয়ায় বিক্ষোভ শুরু হয়। সরকার ও ধর্মীয় গোঁড়ামির বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় পুসি রায়টের দুই সদস্যকে অন্যায়ভাবে কারাবন্দী করে রাখা হয়েছে বলে মত দেন বিক্ষোভকারীরা। একপর্যায়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনের মনোযোগ আকর্ষণ করে বিষয়টি। ব্রিটিশ সংগীতশিল্পী স্টিং, মার্কিন রক ব্যান্ড দল রেড হট চিলি পেপারস, ‘পপ কুইন’ ম্যাডোনা, ‘বিটলস’ তারকা জন লেননের স্ত্রী, মানবাধিকারকর্মী ও সংগীতশিল্পী ইয়োকো ওনোসহ অনেকেই পুসি রায়টের সদস্যদের মুক্তির দাবি তোলেন। একপর্যায়ে বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।



সাধারণ মানুষের বিক্ষোভ আর অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল থেকে শুরু করে ম্যাডোনা, ইয়োকো ওনোর মতো সংগীতব্যক্তিত্বদের চাপের মুখে পুসি রায়ট ব্যান্ডের গ্রেপ্তার হওয়া দুই সদস্যকে গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর মুক্তি দিতে বাধ্য হয় রাশিয়ার সরকার।