মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সমর্থকদের দুষলেন দানি আলভেজ

52edda27bd079-Barcelona_Imageন্যু ক্যাম্পে জয় পাওয়াটাকে যেন অভ্যাসই বানিয়ে ফেলেছিল বার্সেলোনা। নিজেদের মাঠে লা লিগার টানা ২৫ ম্যাচ জয়বঞ্চিত হতে হয়নি কাতালানদের। কিন্তু গতকাল উড়তে থাকা বার্সেলোনাকে মাটিতে নামিয়ে এনেছে ভ্যালেন্সিয়া। ৩-২ গোলের জয় দিয়ে অবসান ঘটিয়েছে ঘরের মাঠে বার্সার একচ্ছত্র আধিপত্যের। আকস্মিক এই হারের পর বার্সেলোনার রক্ষণভাগের দুর্বলতাকেই দায়ী করেছেন অনেকে। কিন্তু দানি আলভেজ দেখছেন অন্য কারণ। সমর্থকদের কাছ থেকে পর্যাপ্ত সমর্থন না পাওয়াকেই এই হারের প্রধান কারণ বলে চিহ্নিত করেছেন বার্সেলোনার এই ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার।

বরাবরের মতো গতকালও বেশির ভাগ সময় বলের দখল ছিল বার্সেলোনার কাছেই। খেলা শুরুর সাত মিনিটের মাথায় ম্যাচের প্রথম গোলটি করে দলকে এগিয়েও দিয়েছিলেন অ্যালেক্সিস সানচেজ। কিন্তু প্রথমার্ধের শেষে আর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে দুটি গোল হজম করে চাপে পড়ে যায় কাতালানরা। ৫৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে ম্যাচে সমতা ফিরিয়েছিলেন লিওনেল মেসি। কিন্তু চার মিনিট পরেই আরেকটি গোল দিয়ে এগিয়ে যায় ভ্যালেন্সিয়া। এটাই হয়ে যায় তাদের জয়সূচক গোল। ৭৮ মিনিটে জরডি আলবা দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়ার পর আর খেলায় ফিরতে পারেনি বার্সেলোনা। ১০ জনের দলে পরিণত হয়ে শেষ পর্যন্ত ৩-২ গোলের হার নিয়েই শেষ করতে হয়েছে লা লিগায় নিজেদের ২২তম ম্যাচটি। আকস্মিক এই হারের পর দায়টা অনেকাংশে সমর্থকদের ওপরই চাপিয়েছেন আলভেজ। নিজেদের মাঠ ন্যু ক্যাম্পে খেলছিলেন এটা নাকি অনুভবই করতে পারেননি এই ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার, ‘কখনো কখনো মনে হয়েছে আমরা অন্য কোথাও গিয়ে খেলছি। খেলোয়াড় আর সমর্থকদের মধ্যে সম্পর্কটা ইতিবাচক হওয়া উচিত।’

ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে ৩-২ গোলের এই হারের পর এখন শীর্ষস্থানটাও হয়তো হারাতে হবে বার্সেলোনাকে। ২২ ম্যাচ শেষে এখনো ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে অবশ্য শীর্ষেই আছেন জেরার্ডো মার্টিনোর শিষ্যরা। কিন্তু আজ অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ও রিয়াল মাদ্রিদ জয় পেলে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় স্থানে নেমে যেতে হবে বার্সাকে। তবে শীর্ষস্থান হারানোটাকে খুব বেশি পাত্তা দিচ্ছেন না আলভেজ। শিরোপা জয়ের আশা যে তাদের এখনো ভালোভাবেই আছে, সেটাই সবাইকে মনে করিয়ে দিয়েছেন এই ডিফেন্ডার, ‘আমরা হেরেছি আর আমাদের এখন ঘুরে দাঁড়াতে হবে। এটা নিয়ে আফসোস করার কোনো সময় নেই। এই হার থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে যেন ভবিষ্যতে আর এমনটা না ঘটে। লা লিগার শীর্ষস্থান হারানোটা খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ না।’— গোল ডটকম