বৃহস্পতিবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শুরু হলো স্কুল হকির মহাযজ্ঞ

hokiপ্রাথমিক পর্বে অংশগ্রহণকারী দলের সংখ্যা ১০২, খেলা হবে ১০ ভেন্যুতে এমন মহাযজ্ঞের স্কুল হকির উদ্বোধন হয়ে গেলো গতকাল। ‘শৈশব দুরন্ত, হকিতে আনন্দ, বিশ্বকাপে জয়ের পক্ষে, খেলে যাবো নিজের লক্ষ্যে’, ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে সংগীতশিল্পী এসআই টুটুলের থিম সং মন জয় করার সঙ্গে সঙ্গে এ মহাযঞ্জের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন আন্তর্জাতিক হকি সংস্থার (এফআইএইচ) সভাপতি লিয়েন্দ্রে নেগ্রে। ‘১০২ দলের ছেলেরা স্টিক হাতে টার্ফে নামবে। এমন আয়োজন উদ্বোধন করতে পেরে আমি রোমাঞ্চিত বলেছেন স্প্যানিশ এ ভদ্রলোক। বাংলাদেশে আসা বিশ্ব হকি কর্তা লিয়েন্দ্রো নেগ্রের হয়তো বেশি ভালো লেগেছে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আবদুর রউফ কলেজের শিক্ষার্থীদের ‘লং লিভ লিয়েন্দ্রে’ ডিসপ্লেটি। গতকাল বেলা তিনটায় বর্ণিল অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হলো ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক জাতীয় স্কুল হকি টুর্নামেন্টের। এ সময় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন সিকদার, ফেডারেশনের সভাপতি ও বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার মার্শাল ইনামুল বারী, ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক খাজা রহমতউল্লাহ, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এম জাকারিয়া ও স্কুল হকি টুর্নামেন্টের চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।
সকাল থেকেই সাজসাজ রব। পুরো মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামকেই নবরূপে সাজানো হয়। তখন দুপুর তিনটা। লালগালিচা সংবর্ধনায় স্টেডিয়ামে প্রবেশ করেন আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশনের (এফআইএইচ) সভাপতি লিয়েন্দ্রে নেগ্রে। হাতের স্টিক উচু করে তুলে ধরে তাকে স্বাগত জানায় স্কুলের খুদে খেলোয়াড়রা। পরে টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শুরুতেই নিজের বক্তব্যে এ এ এম জাকারিয়া বলেন, ‘এ টুর্নামেন্টে যারা ভালো খেলবে তাদের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত বৃত্তির ব্যবস্থা করে দেবে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক। হকি ফেডারেশনের সঙ্গে স্কুল হকির মাধ্যমেই আমরা যুক্ত হয়েছি। আশা করছি দেশের হকির স্বার্থে ভবিষ্যতেও থাকবো ফেডারেশনের সঙ্গে।’ ফেডারেশনের সভাপতি এয়ার মার্শাল ইনামুল বারী বলেন, ‘বাংলাদেশের হকির ইতিহাসে আজকের দিনটি আনন্দময় একটি ঘটনা। এ টুর্নামেন্ট উপলক্ষে দেশের ১০টি ভেন্যুতেই সংস্কার কাজ হয়েছে। এ আসর  উপলক্ষে ৫৭টি স্কুলে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলেছে। স্কুল হকির প্রতিযোগিতা শেষে সেরা খেলোয়াড়দের বাছাই করে বিশেষ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। আমাদের প্রত্যাশা আমরা ২০২২ সালে হকি বিশ্বকাপে খেলবো। সে লক্ষ্যেই এখনকার খুদেরাই হবে ভবিষ্যৎ জাতীয় দলের কাণ্ডারি।’ যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন সিকদার বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে দেশের হকি উন্নয়নের জন্য ফেডারেশনকে ৭ লাখ টাকা দেয়া হয়েছে। এছাড়া কিছুদিনের মধ্যে অনূর্ধ্ব-১৮ জাতীয় দল গড়তে ও এফআইএইচের দেয়া টার্ফ স্থাপনের জন্য আরও দেড় কোটি টাকা দেয়া হবে।’ বিশ্ব হকির অভিবাবক লিয়েন্দ্রো নেগ্রে বলেন, ‘ড্রিমস কাম রিয়েলিটি (স্বপ্নই সত্যে পরিণত হয়)। বাংলাদেশে হকির উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে, এটা আমি বিশ্বাস করি। আর আজকের স্কুল হকি টুর্নামেন্টের এ উদ্যোগ এ দেশের হকি প্রসারে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। তাছাড়া আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি (আইওসি) এবং এফআইএইচের উদ্যোগে যে টার্ফ বাংলাদেশে স্থাপনের যে কথা হচ্ছিল, তা বাস্তবসম্মত এবং প্রয়োজনীয়।’ সবশেষে লিয়েন্দ্রোর সম্মানে জিঞ্জিরা পিএম পাইলট স্কুল ও ফতুল্লা পাইলট স্কুলের মধ্যে একটি প্রদর্শনী ম্যাচ হয়।