বৃহস্পতিবার, ১১ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বেশি টেস্ট খেলতে চায় বাংলাদেশ

imgresআগেই জানা গেছে টেস্ট ক্রিকেট খেলা নিয়ে যে শঙ্কা ছিল সেটা কেটে গেছে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থার বৈঠক শেষে গতকাল দেশে ফিরে আরো কিছু প্রাপ্তির কথা জানালেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান। এর মধ্যে আছে, বড় তিন দলের কাছ থেকে বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলতে পারার প্রতিশ্রুতি আদায়। এছাড়াও ভারতকে সমর্থন দেয়ার ব্যাপারে যে হুমকির কথা শোনা গিয়েছিল, সেটা সত্যি নয় বলে জানান বিসিবি সভাপতি।

গতকাল দেশে ফিরে সংবাদ সম্মেলন করে দুবাইয়ে সদ্য সমাপ্ত আইসিসি সভায় তার অর্জনের ফিরিস্তি দেন বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান। তিনি বলেন, আমাদের টেস্ট ক্রিকেটের ভবিষ্যত নিয়ে কোনো শঙ্কা নেই। খসড়া প্রস্তাবে আমাদের স্বার্থ বিরোধী সব কিছুর বিরুদ্ধে নিজেদের তীব্র আপত্তির কথা আমরা জানিয়েছি।

নাজমুল হাসান জানান, এতো দিন ভবিষ্যত সফরসূচি পরিকল্পনা (এফটিপি) মানার কোনো বাধ্যবাধকতা ছিল না। কিন্তু এখন থেকে এটা মানতেই হবে। তাই বাংলাদেশের টেস্টের সংখ্যা আরো বাড়ার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী তিনি, টেস্ট অভিষেকের ১৩ বছর কেটে গেলেও ভারত আমাদের ওদের দেশে সফরে যাওয়ার আমন্ত্রণ জানায়নি।

ইংল্যান্ড গত ১০ বছরে মাত্র একবার বাংলাদেশে এসেছে। এই অবস্থার পরিবর্তন হতে যাচ্ছে। আমি সব বোর্ডের সঙ্গে কথা বলেছি, আমাদের ম্যাচ বাড়ানোর কথা বলেছি। আমি আশাবাদী, পরবর্তী সভায় আমরা কয়েকটি সিরিজের চুক্তি করতে পারবো।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি আইসিসির সভায় খসড়া প্রস্তাব উত্থাপিত হবে বলে জানান নাজমুল হাসান।

সংবাদ সম্মেলনে একটি জাতীয় দৈনিককে ইঙ্গিত করে নাজমুল হাসান বলেন, বিসিবির ২০ জানুয়ারির সভার ব্যাপারে গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, আমরা নাকি প্রস্তাবের পক্ষে অবস্থান নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

সেখানে প্রস্তাবের পক্ষে ২০টি ও বিপক্ষে তিনটি ভোটের কথাও বলা হয়। কিন্তু এমন কোনো সিদ্ধান্ত আমরা নেইনি। আইসিসির বৈঠকে বলেছি, আমি কোনো দলে নেই। আমার দেশের ক্ষতি হবে এমন কোনো দলে আমি নেই। বলেছি তোমাদের সব কথার আগে আমার কথা শুনতে হবে। আমার দেশে খেলতে হবে।

বিশ্ব ক্রিকেটাঙ্গনে গুঞ্জন, প্রস্তাবে রাজি না হলে ভারত নাকি এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে বাংলাদেশে আসবে না। এ প্রসঙ্গে বিসিবি সভাপতি বলেন, এটা সত্যি নয়। ভারত বিপক্ষে থাকলে এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপ বাংলাদেশে হতো না।

আইসিসির সভায় বাংলাদেশকে প্রশংসা করা হয়েছে বলে দাবি করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি। তিনি বলেন, এফটিপি ২০২০ সালের আগেই অনেক দেশ বাংলাদেশে খেলতে আসবে। বাংলাদেশের সঙ্গে টেস্ট খেলার ব্যপারে ভারত, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়র সঙ্গে কথা হয়েছে। আইসিসির আগামী সভায় এ বিষয়ে কিছু একটা হতে পারে। তাছাড়া আইসিসির সভায় বাংলাদেশের প্রশংসাও করা হয়েছে।