রবিবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ‘আশা’র উদ্দ্যোগে শ্যামগ্রাম ব্রাঞ্চে তিনদিন ব্যাপি বিনামূল্যে ফিজিওথেরাপী ক্যাম্প

“আশা” দরিদ্র জনগোষ্টির আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও দারিদ্র বিমোচনের লক্ষ্যে ১৯৭৮ সাল থেকে কাজ করছে। আশা’য় বর্তমানে প্রায় ৫০ লক্ষ সদস্য সঞ্চয় ও ঋন কর্মসূচীর আওতায় রয়েছে। “আশা” দেশের দরিদ্র ও সুবিধা বঞ্চিত জনগণের মধ্যে ঋণ কর্মসূচীর পাশাপাশি প্রাথমিক শিক্ষা শক্তিশালীকরণ ও শিক্ষার্থী ঝরে পড়া রোধ, চুনারো ঘাট আশা মেডিকেল ট্রেনিং স্কুলে কম খরচে মেডিকেল ও প্যাথলজিক্যাল বিষয়ে শিক্ষা প্রদান, ফিজিওথেরাপী চিকিৎসা, চক্ষু চিকিৎসা ইত্যাদি সামাজিক উন্নয়নমূলক কার্যক্রম করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় অদ্য ২৮/০১/১৪ইং হতে ৩০/০১/১৪ইং তারিখ পর্যন্ত তিন দিন ব্যাপি প্রতি দিন ৫০জন করে ১৫০ জন রোগীকে  আশা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা নবীনগর উপজেলার শ্যামগ্রাম ব্রাঞ্চে বিনামূল্যে  ফিজিওথেরাপী সেবা প্রদান ক্যাম্প এর আয়োজন করা হয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আশা বি-বাড়ীয়া জেলার জেলা ব্যবস্থাপক তপন চন্দ্র বিশ্বাস ও প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন  জনাব মোঃ নাছির উদ্দিন সরকার, ইউপি চেয়ারম্যান শ্যামগ্রাম, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন শ্যামগ্রাম ইউ.পি সদস্য কাজল লতা ও সাইফুল ইসলাম পল্ট্।ু স্বাগত বক্তব্যে আশা দারিদ্র জনগোষ্ঠির আর্থ সামাজিক উন্নয়ন , প্রাথমিক শিক্ষা শক্তিশালী করন , চিকিৎসা সেবা ও আজকের ফিজিওথেরাপী কার্যক্রম  সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেন আশা, বাঞ্ছারামপুর অঞ্চলের আঞ্চলিক ম্যানেজার দেওয়ান ফরিদ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ব্রাঞ্চ ম্যানেজার বিজয় চন্দ্র দাস। ডাক্তার হিসাবে ফিজিওথেরাপী সেবা প্রদান করবেন ডা. সুমন কুমার দেবনাথ। উক্ত উনুষ্ঠানে এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন ।  প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে শিক্ষা শক্তিশালী করণ কার্যক্রম সম্প্রসারন, ফিজিওফেরাপী চিকিৎসা ও চক্ষু চিকিৎসা কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে সারা বাংলাদেশে চালু করার আহ্বান জানান। 
সভাপতি জানান ২০১৪ সালে  শ্যামগ্রাম ব্রাঞ্চের  পাশাপাশি  পর্যায়ক্রমে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলার  আশা’র সকল ব্রাঞ্চে ফিজিওথেরাপী ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হবে।