শুক্রবার, ১৯শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কাল থেকে শুরু বিশ্ব ইজতেমা : রাজধানীজুড়ে যানজট

2d7e2936583e494f0a404fa4cd24d12aআগামীকাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে টঙ্গীর তুরাগতীরে তাবলিগ জামাতের ৪৯তম বিশ্ব ইজতেমা। প্রথম দফা এ বিশ্ব ইজতেমায় গতকাল বুধবার থেকেই আসতে শুরু করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। রোববার পূর্বাহ্নে প্রথম দফার আখেরি মুনাজাতের পর চার দিন বিরতি দিয়ে ৩১ জানুয়ারি শুরু হবে ইজতেমার দ্বিতীয় দফা। আগামী ২ ফেব্র“য়ারি রোববার জোহরের আজানের আগে আখেরি মুনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এবারের দুই দফার বিশ্ব ইজতেমা।
এদিকে বৃহস্পতিবার শেষ কার্যদিবসে মানুষের প্রয়োজনীয়তা সারতে এবং বিশ্বইজতেমায় যোগদানকারী মুসল্লিদের ভীড়ে ও যানবাহনের চাপে সকালের প্রথম প্রহর থেকেই রাজধানী ও রাজধানীর প্রবেশ পথ গুলোতে দেখা দিয়েছে ব্যাপক যানজট।
২০১১ সাল থেকে দুই দফায় বিশ্ব ইজতেমা আয়োজন করে আসছে তাবলিগ জামায়াত। এতে ইজতেমা উপলক্ষে টঙ্গীতে মানুষের চাপ যেমন কমছে তেমনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদেরও দায়িত্ব পালন অনেকটা সহজতর হয়েছে। এবারের দুই দফার ইজতেমার সব প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করেছে তাবলিগ জামাত র্র্কতৃপক্ষ। সেই সাথে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিভাগ, দফতর, অধিদফতর ও সংস্থা ইজতেমা আয়োজন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।
এবারের ইজতেমার প্রথম দফায় ৩২টি জেলা এবং দ্বিতীয় দফায় ৩২টি জেলার মুসল্লিরা অংশ নিচ্ছেন। প্রথম দফায় ইজতেমা ময়দানে জেলাওয়ারি মুসল্লিদের অবস্থান হলোÑ গাজীপুর-খিত্তা নম্বর- ১ ও ২, ঢাকা-৩, ৪, ৫, ৬, ৭ (ক), ৭ (খ), ৮, ৯, ১০, ১১, ১২, সিরাজগঞ্জ-১৩, ফরিদপুর-১৪, নরসিংদী-১৫, কিশোরগঞ্জ-১৬ (ক), কিশোরগঞ্জ-১৬ (খ), রাজবাড়ী-১৭, শরীয়তপুর-১৮, নাটোর-১৯, শেরপুর-২০, দিনাজপুর-২১, হবিগঞ্জ-২২, রংপুর-২৩, লালমনিরহাট-২৪, গাইবান্ধা-২৫, জয়পুরহাট-২৬, রাজশাহী-২৭, সিলেট-২৮, চাঁদপুর-২৯, ফেনী-৩০, চট্টগ্রাম-৩১, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও রাঙ্গামাটি-৩২, বাগেরহাট-৩৩, কুষ্টিয়া-৩৪, নরাইল-৩৫, চুয়াডাঙ্গা-৩৬, যশোর-৩৭, ভোলা-৩৮, বরগুনা-৩৯ এবং ঝালকাটি-৪০ নম্বর খিত্তায়।
শুক্রবার শুরু হওয়া প্রথম দফা এ বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লি ও বাড়তি যানবাহনের চাপে বৃহস্পতিবার সকালের প্রথম প্রহর থেকে রাজধানী ও রাজধানীর প্রবেশ পথগুলোতে ব্যাপক যানজট দেখা দিয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে ইজতেমাগামী মুসল্লি ও পথচারীরা। ইজতেমা উপলক্ষ্যে রাজধানীসহ শহরতলী এলাকায় প্রাইভেট গাড়ি ও রিকশা চলাচল নিয়ন্ত্রণ বা সাময়িক বন্ধ করে দিলে যান চলাচল অনেকটাই স্বাভাবিক হতো বলে ভোগান্তিতে পড়া অনেকেই মনে করেন।
পথচারী ইকবাল মাহমুদ বলেন, বিশ্ব ইজতেমার মতো গুরুত্বপূর্ণ সময় রাজধানীতে প্রাইভেটকারসহ কিছু ব্যাক্তিগত গাড়ি চলাচল নিয়ন্ত্রণ বা সাময়িক বন্ধ করে দিলে যানজট থাকে না। কিন্তু রাজধানীর ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ এ বিষয়গুলো ভাবেন না বলেই আমাদের ভোগানিন্ততে পড়তে হয়।
ইজতেমায় আগত মুসল্লি তারেক আমিন জানান, ইজতেমা উপলক্ষে শুধু টঙ্গী ময়দানে ব্যবস্থাপনা ও নিরাপত্তা নিয়ে প্রশাসনের লোকেরা ব্যস্ত থাকে। কিন্তু টঙ্গী ময়দানে যে মুসল্লিরা পৌঁছাবে সেখানে যাওয়ার আগের পথগুলো চলাচল স্বাভাবিক রাখতে তাদের কোন উদ্যোগ নিতে দেখা যায় না। তাই প্রতিবছরই ইজতেমায় আসতে ঢাকায় খুব কষ্ট করতে হয়। তার মতে ঢাকায় এসময় প্রধান সড়ক গুলোতে রিকশা চলাচল বন্ধ করে দিলে যানজট কিছুটা কমে।