মঙ্গলবার, ৯ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সংবাদ সম্মেলনে দুই প্রার্থীর নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা

press conf brahmanbariaব্যাপক ভোট কারচুপির অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের জেপি মনোনীত প্রার্থী ডা. মো. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ও ৫ আসনের জাপা মনোনীত প্রার্থী কাজী মামুনুর রশীদ নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। আজ রোববার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রিপোর্টার্স ক্লাব কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে তারা নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন। জেপি প্রার্থী ডা. মো. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ এসময় ভোট ডাকাতির তদন্ত করে পুন:নির্বাচনের দাবি করেন।
সংবাদ সম্মেলনে ডা. উরিদ জানান, সকাল থেকেই শহরের সবকটি কেন্দ্রে ব্যাপক হারে জাল ভোট দেয়া হয়। এসময় নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা সংশ্লিষ্টরাও নীরব থাকেন। সকাল সোয়া ১০ টার দিকে তিনি শহরের অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নিজের ভোট (নম্ব^র-৪৩৩) দিতে গিয়ে দেখেন তার ভোট ইতোমধ্যে দেওয়া হয়ে গেছে। পরে বিষয়টি তিনি জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তাকে জানান এবং নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।
এদিকে জাপার প্রার্থী কাজী মামুনুর রশীদ সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, সকাল থেকেই তার এজন্টদের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে মারধর করে বের করে দেওয়া হচ্ছিল। দুপুর নাগাদ ১২৬ কেন্দ্রের ১০৫টি দখল করে নেয় স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এসময় ভোট ডাকাতির ভিডিও চিত্র ধারণ করায় তার কর্মীদের মারধর করে আওয়ামী লীগের লোকজন। তিনি বলেন, এভাবে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে আওয়ামীলীগ গণতন্ত্রের কবর রচনা করেছে। এসময় তিনি আওয়ামী লীগ সভানেত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, গণতন্ত্রকে গণতন্ত্রের পথে চলতে দিন। তাহলে সবার মঙ্গল হবে।