রবিবার, ২৯শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় একরাতে ৪ঘরে ডাকাতি

Crimeব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা থানা সদর পৌর এলাকাধীনইমামপাড়ায় পৃথক ৪টি ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাতরা নগদ টাকা,স্বর্ণালংকারসহ মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। জানা যায় শুক্রবার গভীর রাতে কসবা থানা সদর পৌর এলাকার ইমাম পাড়ায় ২০/২৫ জনের একটি সশস্ত্র ডাকাত দল বব্ধুকের ভয় দেখিয়ে ইমামপাড়ায় ত্রাস সৃষ্টি করে। দুই বাড়ির ৪টি ঘরের লোকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি ও বাড়ির মালিক সামসুন্নাহারকে মারধোর করে নগদ ৮০ হাজার টাকা ও ৩ ভরিস্বর্ণ,একই পাড়ার নাছিমা আলম আহত করে নগদ ২৫ হাজার টাকা ও ৬ভরি স্বর্ণ,মোখলেছুর রহমানের বাড়িতে প্রবেশ কওে তার শ্বশুড়কে আহত করে নগদ ৭৮ হাজার টাকা ও ৩ ভরি স্বর্ণ, এ ছাড়া খোরশেদ মিয়া বাড়ি থেকে নগদ ৫হাজার টাকাসহ ৩ ভরি স্বর্ণ লুট করে। ভুক্তভোগীরা জানান শুক্রবার রাত ১টা থেকে টানা ৩টা পর্যন্ত ডাকাতরা হানা দিয়ে অস্ত্রেমুখে ফেলে আহতসহ ডাকাতি বরে।শনিবার সকালে কসবা থানা অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান,সরেজমিনে গিয়েছি ২বাড়ির ৪টি ঘরে সংঘটিত হয়েছে । এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন মামলা দায়ের হয়নি বলে জানান ।

নাসিরনগরে স্ত্রী ও শুশ্বড় বাড়ির লোকজনের সাথে বনি বনা না থাকার কারণে শ্বশুড় বাড়ির লোকজন পরিকল্পিত ভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে জামাইকে। মুমুর্ষ আহত জামাই জাবেদমিয়া(২৫) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জাা লড়ছে।
ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার ভোর অনুমান ৫ ঘটিকার সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার বুড়িশ্বর ইউনিয়নের আশুরাইল গ্রামের। এব্যাপারে  মামলার বাদী আহত জাবেদ মিয়ার পিতা মোঃ মিয়াজান জানান প্রায় দেড় বছর পূর্বে প্রতিবেশি জিলু মিয়ার মেয়েকে বিয়ে করে জাবেদ। বেশ সুখে কাটছিল তাদের দাম্পদ্য জীবন। অনুমান ২ মাস পূর্বে জাবেদের শ্বশুড় ও তার চাচাত ভাইয়েরা মিলে পরিকল্পিত ভাবে জাবেদের স্ত্রী শিউলী বেগম (২০) কে দিয়ে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে তালাক দেয় জাবেদকে। তালাক দেয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মাঝে আক্রোশের সৃষ্টি হয়। জাবেদের শ্বশুড় বাড়ির লোকজন মারপিট করার সুযোগ খুজতে থাকে। ঘটনার সময়ে পূর্বের আক্রোশে শ্বশুড় বাড়ির লোকজন মিলে দেশীয় অস্ত্র,সস্ত্র নিয়ে জাবেদের ঘরে প্রবেশ ঘুমন্ত জাবেদকে মারপিট শুরু করে। জাবেদের মা-বাবা বাধা দিতে আসলে তাদেরকেও মারপিট করে। ডাঙ্গাবাজরা ওই সময়ে জাবেদের ঘরে থাকা নগদ এক লক্ষ আশি হাজার টাকা, একটি টিভি,একটি ডিডি,অন্যান্য মালামালসহ আড়াই লক্ষ টাকার মালামাল নিয়ে যায় এবং ব্যাপক ভাংচুর করে। ওই ঘটনায় জাবেদের পিতা মিয়াজান বাদী হয়ে শিক্ষকসহ ৭জনকে আসামী করে নাসিরনগর থানায় মামলা রুজু করে।