মঙ্গলবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

৬ কোটি টাকার কাজ পেতে সহকারি প্রকৌশলীকে ব্ল্যাকমেইল ॥ গ্রেপ্তার-২

 blackmailব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের প্রায় ৬ কোটি টাকার কাজ দিতে রাজী না হওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের সহকারি প্রকৌশলী হুমায়ূন কবিরকে দুই তরুণী দিয়ে ব্ল্যাকমেইলিং করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার রাতে। এ ঘটনায় সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে মঙ্গলবার রাতেই ঘটনাস্থল থেকে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে কাউতলী গ্রামের সেলিম মিয়ার ছেলে দিদারুল আলম- (২০) ও বাছির মিয়ার ছেলে মোশাররফ হোসেন-(২২)। এ ঘটনায় জেলা পরিষদের কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।
ঘটনার নেপথ্য নায়ক হিসেবে জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক সৈয়দ এমদাদুল বারীর বড় ছেলে সৈয়দ এহতেশামুল বারী ওরফে তানজিলের নাম শহরে আলোচিত হচ্ছে। বুধবার কড়া পুলিশী ব্যবস্থার মধ্যে দিয়ে আলোচিত দরপত্রটি দাখিল করা হয়।
জেলা পরিষদের কর্মকর্তারা জানান, জেলার বাঞ্চারামপুর উপজেলার জগন্নাথপুর এলাকায় ৫ কোটি ৯২ লাখ ৮৩ হাজার টাকা ব্যয়ে ৫০০ আসন বিশিষ্ট একটি অডিটোরিয়াম নির্মাণের জন্য গত ২১ অক্টোবর এ দরপত্র আহবান করা হয়। গতকাল বুধবার ছিল দরপত্র জমাদানের শেষ তারিখ। কাজটি পাওয়ার জন্য গত কয়েকদিন ধরেই চেষ্টা করছিল একটি প্রভাবশালী মহল।
ব্ল্যাকমেইলের শিকার সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ূন কবির বলেন, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি শহরের কাউতলী এলাকায় জেলা পরিষদের ডাকবাংলোর নিচতলার পলাশ নামক একটি কক্ষে অবস্থানের সময় ওই কক্ষের দরজায় কড়া নেড়ে আচমকা ২০/২২ বছর বয়সী দুই তরুণী ঢুকে পড়ে। নেকাপ পড়া দুই তরুণী তাকে বলেন, তারা সেলাই মেশিন পাওয়ার জন্য আবেদনপত্র নিয়ে এসেছে। তখন তিনি  তরুনীদেরকে আবেদনপত্র জেলা পরিষদের প্রশাসকের কাছে দেয়ার কথা বললে পেছন থেকে আরো কয়েকজন যুবক তার কক্ষে ঢুকে। যুবকরা ওই দুই তরুণীকে তাকে জাপটে ধরার কথা বলেন। এরপর তরুণীরা তাকে জোর করে জাপটে ধরলে যুবকরা ক্যামেরায় তার স্থির ও ভিডিও চিত্র ধারণ করে। এসময় তারা বলে, ‘আগামীকাল সব টের পাবে। পরে তারা প্রকৌশলীর দুটি মোবাইল ফোন জোর করে নিয়ে চলে যায়। এ ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে একপর্যায়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন প্রকৌশলী হুমায়ূন কবীর। ঘটনাটি তিনি তাৎক্ষণিক নৈশ প্রহরীর মোবাইল ফোনে মাধ্যমে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিষয়টি পুলিশ সুপার ও স্থানীয় সংসদ সদস্যকে জানান। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নৈশ প্রহরী আলমগীর মিয়ার কথা অনুযায়ী কাউতলী এলাকা দিদারুল আলম ও মোশাররফ হোসেন-(২২) কে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়।
এদিকে ওই দুই যুবককে গ্রেপ্তারের পর তাদেরকে ছাড়িয়ে নিতে একটি প্রভাবশালী মহল তৎপর হয়ে উঠে। বুধবার সকালে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কক্ষে বিষয়টি মীমাংসা করার প্রস্তাব নিয়ে যান কাউতলী গ্রামের বাসিন্দা ভূমি ব্যবসায়ী সাঈদুর রহমান ও জেলা চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মোঃ শাহআলম ও গ্রেপ্তারকৃত দিদারুল আলমের পিতা ও পরিবহন ব্যবসায়ী মোঃ সেলিম মিয়া।
এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা পরিষদের দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, কাজটি পাওয়ার জন্য এর আগে হুমায়ূন কবিরকে ম্যানেজ করার চেষ্টা করা হয়। তাকে ম্যানেজ করতে না পারায় তারা তরুণী দিয়ে তাকে ব্ল্যাকমেইল করে।
এ ব্যাপারে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মান্নান বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক একটি ব্যাপার। বিষয়টি মিমাংসার জন্য কয়েকজন লোক এসেছিলেন। এটি মীমাংসা যোগ্য কোনো অপরাধ নয়। জেলা পরিষদের ইতিহাসে এটিই বড় টেন্ডার। এই দরপত্র মূল্যায়নে ঘটনার শিকার সহকারি প্রকৌশলীর ভূমিকা রয়েছে। সেজন্যই তারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে আমরা ধারণা করছি।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক সৈয়দ এমদাদুল বারী বলেন, ‘আমার ছেলে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়। ঘটনা মীমাংসার জন্য কাউতলির দুইজন সর্দার আমার কাছে এসেছিল। আমি তাদেরকে ফিরিয়ে দিয়েছি।
এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক সৈয়দ এমদাদুল বারীর ছেলে সৈয়দ এহতেশামুল বারী ওরফে তানজিল বলেন, আমি ঠিকাদারী ব্যবসা করিনা। আমার কোন লাইসেন্সও নেই। ঢাকায় থাকি। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তেমন যাইনা। এ ঘটনার সাথে আমার জড়িত থাকার প্রশ্নই উঠেনা।

 

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের প্রায় ৬ কোটি টাকার কাজ দিতে রাজী না হওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের সহকারি প্রকৌশলী হুমায়ূন কবিরকে দুই তরুণী দিয়ে ব্ল্যাকমেইলিং করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার রাতে। এ ঘটনায় সদর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে মঙ্গলবার রাতেই ঘটনাস্থল থেকে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে কাউতলী গ্রামের সেলিম মিয়ার ছেলে দিদারুল আলম- (২০) ও বাছির মিয়ার ছেলে মোশাররফ হোসেন-(২২)। এ ঘটনায় জেলা পরিষদের কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।
ঘটনার নেপথ্য নায়ক হিসেবে জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক সৈয়দ এমদাদুল বারীর বড় ছেলে সৈয়দ এহতেশামুল বারী ওরফে তানজিলের নাম শহরে আলোচিত হচ্ছে। বুধবার কড়া পুলিশী ব্যবস্থার মধ্যে দিয়ে আলোচিত দরপত্রটি দাখিল করা হয়।
জেলা পরিষদের কর্মকর্তারা জানান, জেলার বাঞ্চারামপুর উপজেলার জগন্নাথপুর এলাকায় ৫ কোটি ৯২ লাখ ৮৩ হাজার টাকা ব্যয়ে ৫০০ আসন বিশিষ্ট একটি অডিটোরিয়াম নির্মাণের জন্য গত ২১ অক্টোবর এ দরপত্র আহবান করা হয়। গতকাল বুধবার ছিল দরপত্র জমাদানের শেষ তারিখ। কাজটি পাওয়ার জন্য গত কয়েকদিন ধরেই চেষ্টা করছিল একটি প্রভাবশালী মহল।
ব্ল্যাকমেইলের শিকার সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ূন কবির বলেন, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি শহরের কাউতলী এলাকায় জেলা পরিষদের ডাকবাংলোর নিচতলার পলাশ নামক একটি কক্ষে অবস্থানের সময় ওই কক্ষের দরজায় কড়া নেড়ে আচমকা ২০/২২ বছর বয়সী দুই তরুণী ঢুকে পড়ে। নেকাপ পড়া দুই তরুণী তাকে বলেন, তারা সেলাই মেশিন পাওয়ার জন্য আবেদনপত্র নিয়ে এসেছে। তখন তিনি  তরুনীদেরকে আবেদনপত্র জেলা পরিষদের প্রশাসকের কাছে দেয়ার কথা বললে পেছন থেকে আরো কয়েকজন যুবক তার কক্ষে ঢুকে। যুবকরা ওই দুই তরুণীকে তাকে জাপটে ধরার কথা বলেন। এরপর তরুণীরা তাকে জোর করে জাপটে ধরলে যুবকরা ক্যামেরায় তার স্থির ও ভিডিও চিত্র ধারণ করে। এসময় তারা বলে, ‘আগামীকাল সব টের পাবে। পরে তারা প্রকৌশলীর দুটি মোবাইল ফোন জোর করে নিয়ে চলে যায়। এ ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে একপর্যায়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন প্রকৌশলী হুমায়ূন কবীর। ঘটনাটি তিনি তাৎক্ষণিক নৈশ প্রহরীর মোবাইল ফোনে মাধ্যমে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিষয়টি পুলিশ সুপার ও স্থানীয় সংসদ সদস্যকে জানান। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নৈশ প্রহরী আলমগীর মিয়ার কথা অনুযায়ী কাউতলী এলাকা দিদারুল আলম ও মোশাররফ হোসেন-(২২) কে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়।
এদিকে ওই দুই যুবককে গ্রেপ্তারের পর তাদেরকে ছাড়িয়ে নিতে একটি প্রভাবশালী মহল তৎপর হয়ে উঠে। বুধবার সকালে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কক্ষে বিষয়টি মীমাংসা করার প্রস্তাব নিয়ে যান কাউতলী গ্রামের বাসিন্দা ভূমি ব্যবসায়ী সাঈদুর রহমান ও জেলা চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মোঃ শাহআলম ও গ্রেপ্তারকৃত দিদারুল আলমের পিতা ও পরিবহন ব্যবসায়ী মোঃ সেলিম মিয়া।
এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা পরিষদের দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, কাজটি পাওয়ার জন্য এর আগে হুমায়ূন কবিরকে ম্যানেজ করার চেষ্টা করা হয়। তাকে ম্যানেজ করতে না পারায় তারা তরুণী দিয়ে তাকে ব্ল্যাকমেইল করে।
এ ব্যাপারে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মান্নান বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক একটি ব্যাপার। বিষয়টি মিমাংসার জন্য কয়েকজন লোক এসেছিলেন। এটি মীমাংসা যোগ্য কোনো অপরাধ নয়। জেলা পরিষদের ইতিহাসে এটিই বড় টেন্ডার। এই দরপত্র মূল্যায়নে ঘটনার শিকার সহকারি প্রকৌশলীর ভূমিকা রয়েছে। সেজন্যই তারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে আমরা ধারণা করছি।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক সৈয়দ এমদাদুল বারী বলেন, ‘আমার ছেলে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নয়। ঘটনা মীমাংসার জন্য কাউতলির দুইজন সর্দার আমার কাছে এসেছিল। আমি তাদেরকে ফিরিয়ে দিয়েছি।
এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক সৈয়দ এমদাদুল বারীর ছেলে সৈয়দ এহতেশামুল বারী ওরফে তানজিল বলেন, আমি ঠিকাদারী ব্যবসা করিনা। আমার কোন লাইসেন্সও নেই। ঢাকায় থাকি। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তেমন যাইনা। এ ঘটনার সাথে আমার জড়িত থাকার প্রশ্নই উঠেনা।

  

– See more at: http://titas24.com/%E0%A7%AC-%E0%A6%95%E0%A7%8B%E0%A6%9F%E0%A6%BF-%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%9C-%E0%A6%AA%E0%A7%87%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A6%B9%E0%A6%95%E0%A6%BE/#sthash.hkyZsU0J.dpuf

এ জাতীয় আরও খবর

কখন শারীরিক সম্পর্ক সর্বোচ্চ অনুভূতি দেয়?

অভিনেত্রীকে ধর্ষণের হুমকি, বাড়ির সামনে তাণ্ডব

‘আমি মরলে যেন আমার স্বামী আরেকটা বিয়ে করে’

নিউ জার্সিতে চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স এলামনাইয়ের আহবায়ক কমিটি গঠন

শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর কাল থেকে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জনপ্রিয় হচ্ছে পারিবারিক পুষ্টি বাগান

বড় পরাজয়ে শুরু বাংলাদেশের নতুন টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া নেওয়ার সিদ্ধান্ত

ওমিক্রন: আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ বাইডেনের

দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির সমাবেশ, চলছে প্রস্তুতি

গণপিটুনি খেয়ে অনাবিলের সেই বাসচালক ঢামেকে

করোনায় একদিনে সাত হাজারের বেশি প্রাণহানি