বুধবার, ১লা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ ১৮ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মীর সাব্বিরের কথায় মাইন্ড করেছেন উপস্থাপিকা (ভিডিও)

news-image

বিনোদন প্রতিবেদক : কথায় আছে ‘এক দেশের গালি, আরেক দেশের বুলি’। সবাই জানেন, বরিশালের মানুষদের অঞ্চলিক ভাষাগুলোর একটি ‘মাতারি’। যা তারা মহিলাদেরকে বলে থাকে। মাতা (জননী) থেকেই এসেছে ‘মাতারি’ শব্দটি। আর তা বলে সমালোচনার মুখে পড়েছেন জনপ্রিয় অভিনেতা মীর সাব্বির।

ঘটনা গত ১১ নভেম্বর ‘মিসেস ইউনিভার্স ২০২২’-এর গ্র্যান্ড ফিনালের মঞ্চে। সেখানে উপস্থাপকের দায়িত্বে ছিলেন ইসরাত পায়েল। আর এই প্রতিযোগিতার বিচারক ছিলেন মীর সাব্বির। চূড়ান্ত পর্বের আয়োজনে বক্তব্য দিতে মঞ্চে উঠেন মীর সাব্বির। সেখান থেকে নামার ঠিক আগ মুহূর্তে উপস্থাপিকা পায়েল তাকে অনুরোধ করেন, আঞ্চলিক ভাষায় একটি সংলাপ বলার জন্য। আর মীর সাব্বিরের গ্রামের বাড়ি বরিশালে এটাও সবার জানা।

যাই হোক, উপস্থাপিকার অনুরোধে মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে এই অভিনেতা বলেন, ‘আমার নাটকের সংলাপ এখন মনে পড়ছে না।’ এরপর খানিকটা সময় নিয়ে তিনি আঞ্চলিক ভাষায় পায়েলকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘এই মাতারি তুমি এইরহম উদলা গাইয়ে দাঁড়ায় আছো কিয়ের লাইগ্যা।’

তার এই সংলাপ শেষ হওয়ার পর হাসতে থাকেন পায়েল। মঞ্চের সামনে বসা অতিথিরাও সমস্বরে হেসে উঠেন। কিন্তু ঘটনা মোড় নেয় সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া এর একটি ছোট্ট ভিডিও ক্লিপ নিয়ে। মঞ্চে বিষয়টি হেসে উড়িয়ে দিলেও সবার সামনে সাব্বিরের এমন সংলাপ শুনে মাইন্ড করেছেন উপস্থাপিকা। এই সংলাপকে ‘কুরুচিপূর্প’ সংলাপ বলেও মন্তব্য করেছেন পায়েল।

তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক মানের এমন একটি প্রতিযোগীরার মঞ্চে এমন মন্তব্য মেনে নেওয়ার মতো না। আমি বুঝতে পারছি না উনি কি বুঝে বলেছেন, নাকি এক্সসাইটমেন্ট থেকে এটা বলে ফেলেছেন! যেভাবেই বলুক না কেন আমাকে অন্তত একবার সরি বলতে পারতেন।’

পায়েল আরও বলেন, ‘এমন বক্তব্যের কারণে তার ক্ষমা চাওয়া উচিত। আপনার যদি নারীর পোশাক নিয়ে আপত্তি থাকে, সেটা আপনি আপনার পরিবারের ওপর প্রয়োগ করতে পারেন। অন্যদের পোশাক নিয়ে নাক না গলানোই ভালো। একটি ইন্টারন্যাশনাল প্লাটফর্মে এসে পোশাক নিয়ে কথা বলাটা কুরুচির লক্ষণ। তার কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য আমার জন্য অসম্মানজনক। আর বিষয়টি হলরুম পর্যন্ত সীমাবদ্ধ থাকলে ঠিক ছিল। কিন্তু অনুষ্ঠান শেষে দেখি সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা মন্তব্য হচ্ছে। এ কারণে সামাজিকভাবে আমাকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে এবং আমি সাইবার বুলিংয়ের শিকার। তাই তার সরি বলি উচিত।’

এ বিষয়ে মীর সাব্বির বলেন, ‘ছোট্ট একটা বিষয়কে এভাবে বড় করে দেখার কোন মানেই হয় না। উপস্থাপিকা মজার ছলে আমার বরিশালের আঞ্চলিক ভাষায় কথা শুনতে চেয়েছেন। তার কথার প্রেক্ষিতে আমি বলেছি। আমি যে কথাটা বলেছিলাম, সেটা উপস্থাপিকা চমৎকার হেঁসে রিসিভ করেছেন এবং দর্শকরাও তখন মজা পেয়েছেন। আমি যেটা বলেছি সেটা তাৎক্ষণিক আর এর পেছনে কোনো উদ্দেশ্য ছিল না। কাউকে হেয় করার জন্য কিছু বলি নাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘উপস্থাপিকা আমার ছোট বোনের মতোন। সে যদি কথাটি শুনে কষ্ট পেয়ে থাকেন, তাহলে আমি দুঃখ প্রকাশ করতেই পারি। সেটা নিয়ে এভাবে ফেসবুক কিংবা বিভিন্ন মাধ্যমে বক্তব্য দেওয়ার কিছু নাই। আমাকে বললেই হতো, “দাদাভাই কিংবা ভাইয়া আপনাকে আমি রেসপেক্ট করি। আপনার কথায় আমি কষ্ট পেয়েছি।” আমি সঙ্গে সঙ্গে সরি বলে দিতাম। আসলে উপস্থাপিকা আমার শব্দের মানে বুঝতে পারেনি। যাই হোক আপনাদের মাধ্যমে বলছি, আমার কথাটি শুনে যদি সে (ইসরাত পায়েল) কষ্ট পেয়ে থাকে তাহলে আমি দুঃখিত।’

এ জাতীয় আরও খবর

মাতৃভাষার মাস শুরু আজ

২১০ রান টপকে অবিশ্বাস্য এক জয় কুমিল্লার

বগুড়ায় উপ-নির্বাচন : নেতাকর্মীরা ভোটকেন্দ্রে গেলেই ব্যবস্থা নেবে বিএনপি

আগুন নিয়ন্ত্রণে মোংলা ইপিজেডের

নিজেদের ইচ্ছামতো বিশ্ববিদ্যালয় চালানো যাবে না : রাষ্ট্রপতি

বিএনপির ছেড়ে দেওয়া ৬ আসনে ভোটগ্রহণ আজ

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুকুলের অফিস থেকে ঘরে ফেরা হলো না

আমি আহলে হাদিসের অনুসারী, পকেটে দুই কোটি ভোট : রহমতুল্লাহ

স্বাস্থ্যের ৪ পরিচালককে বদলি, নিপসমে সেব্রিনা ফ্লোরা

ভুল তথ্যে র‌্যাবের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল আমেরিকা : সংসদে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

বিশ্বের শীর্ষ ১০ ধনীর তালিকা থেকে ছিটকে গেলেন আদানি

বাণিজ্য মেলায় ১০০ কোটি টাকার পণ্য বিক্রি