রবিবার, ২২শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাবা তোমাকে অনেক ভালোবাসি

news-image

জন্মদিন, বিয়ে বার্ষিকী, প্রথম দেখার দিন-তারিখ, পরিচিতজনদের এমন কত কত মুহূর্তকে যে আমরা মনে রাখি তার ইয়ত্তা নেই। দিন মনে রাখার পাশাপাশি ওই দিনটায় তাদের শুভেচ্ছাও জানানো হয়। চলে খাওয়া-দাওয়া, আড্ডাবাজি। আর গিফট তো দেয়া হয়ই। এত এত বন্ধু-বান্ধবের ভিড়ে খুব কাছের মানুষটার কথা হয় তো মনেই থাকে না আমাদের। বছরজুড়ে প্রিয় বন্ধুদের সময় দেয়া হলেও মাথার ওপর ছায়া হয়ে থাকা এই আপনজনকে কখনওই হয় তো ঠিকভাবে সময় দেয়া হয় না। বলছিলাম, আমাদের সবার প্রিয় বাবাদের কথা। সৃষ্টিগতভাবেই মানুষ একটু মাঘেঁষা। মায়ের দুঃখ-কষ্ট দেখলে খুব কম মানুষেরই সহ্য হয়। তবে মায়ের পাশাপাশি আমাদের বাবারাও যে সংসারের জন্য হাড়ভাঙ্গা খাটুনি খাটেন, সেটা আমাদের খেয়ালই থাকে না। মানুষটা কেমন যেন সবার অলক্ষ্যেই থেকে যান। অনেক পরিবারেই বাবার জন্মদিন বলে কখনও কিছু পালন হয়েছে কিনা কেউ মনে করতে পারবে না। আবার বড় হওয়ার পর ছেলে-মেয়েরা নিজ আগ্রহে বাবার জন্ম দিবসটা পালন করতে চাইলে বাবাই নিজ থেকে বাধা দেন। জীবনের পড়ন্ত বেলায় এ সব জন্মদিন হয়তো তার কাছে মূল্যহীনই ঠেকে। তবে এবার বাবার সব দুঃখ-কষ্টকে ভুলিয়ে দেয়ার সুযোগ এসেছে। প্রতিবছর জুন মাসের তৃতীয় রোববার পালিত হয় ‘বাবা দিবস’। সে হিসেবে জুনের ২১ তারিখে এবার বাবা দিবস পালিত হবে। দিনটাকে সামনে রেখে অনেক কিছুই করা সম্ভব। এমন কিছু করুন যাতে আপনার বাবাকে আপনি চমকে দিতে পারেন। বাবা খুশি হবেন এমন জিনিসের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করুন। সেই সঙ্গে হয়তো মাথায় হাত দিয়ে চুল এলোমেলো করে দেয়া বাবার আদরটুকুও পেয়ে যেতে পারেন আপনি। যাদের অফিস আছে তারা শুধু ওই দিনটির জন্য অফিস থেকে ছুটি নিতে পারেন। সারা দিন বাবার সঙ্গে কাটাবেন- এই ইচ্ছাটুকু বাবাকে বলুন। দেখবেন, এতটুকুতেই আপনার বাবা কত খুশি হন। তার ওপর যদি শুধু বাবা দিবসকে উপলক্ষ করে পরিবারের সবাই মিলে কোথাও ঘুরতে যেতে পারেন তাহলে খুশির মাত্রা বাড়বে বৈ কি। কোথাও ঘুরতে যেতে চাওয়ার জন্য পরিচিত স্পটগুলোর পাশাপাশি আপনার বাবার স্মৃতিবিজড়িত কোনো স্থান বেছে নিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে কোথায় যাচ্ছেন তা কোনোভাবেই বাবাকে আগে ভাগে জানানো যাবে না। সেখানে যাওয়ার পর আপনাকে আর কিছু করতে হবে না। স্মৃতি হাতড়ে হাতড়ে আপনার বাবাই আপনাদের পুরনো দিনে ফিরিয়ে নিয়ে যাবেন। বাবা দিবসে আপনার বাবাকে কিছু একটা গিফটও দিতে পারেন। কতকিছুই তো বাজারে পাওয়া যায়। আপনার বাবার পছন্দ এমন কোনো একটা জিনিস কিনে নিয়ে আসুন। বাবাকে দিন। তবে সবচেয়ে ভালো হয়, আপনার বাবার দৈনন্দিন কাজ-কর্মে যে জিনিসটার প্রয়োজন সবচেয়ে বেশি, সেটা গিফট করলে। খুব ভালোভাবে খেয়াল করুন, আপনার বাবার চশমার ফ্রেমটা ভালো আছে তো? কিংবা প্রিয় ব্র্যান্ডের কলমটা? আর আগেরটা ভালো থাকলেও নতুন আরেকটা চশমার ফ্রেম কিংবা প্রিয় ব্র্যান্ডের কলম পেলে খুব একটা মন্দ হয় না। প্রতিদিন যে জায়নামাজে নামাজ পড়ছেন সেটাও কি পুরনো হয়ে যায়নি? বাজার থেকে ভালো দেখে একটা জায়নামাজ কিনে ফেলুন না। আপনার বাবা খুশিই হবেন। ডায়েরি লিখার অভ্যাস থাকলে আপনার বাবাকে একটা ডায়েরিও দিতে পারেন। এ ছাড়া যাদের বাবা বই পড়েন, তারা বইও গিফট করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে আপনার বাবার প্রিয় লেখকের বইকে প্রাধান্য দিন। এ ছাড়া কোনো বইয়ের জন্য আক্ষেপ আছে কিনা সেটা কৌশলে জেনে নিতে পারেন। হতে পারে সেটা আপনার বাবার হারিয়ে ফেলা বই কিংবা এমন কোনো লেখকের বই যেটা অনেক খুঁজেও তিনি পাচ্ছেন না। এ ক’দিনে দায়িত্ব নিয়ে বইটি খুঁজে বের করুন। পৃথিবীতে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়। চেষ্টা করলে অবশ্যই পারবেন। দরকার পড়লে এ সংক্রান্ত অভিজ্ঞ কারও সাহায্য নিন। কল্পনায় রাখুন, বহু আকাক্সিক্ষত বইটি পেলে আপনার বাবা কেমন খুশি হবেন। বাবাকে গিফট দেয়ার ক্ষেত্রেও একটু নাটকীয়তা আনতে পারেন। বাবার পুরনো চশমাটির জায়গায় রেখে দিন নতুন চশমাটি। অথবা পকেট থেকে পুরনো কলমটা সরিয়ে নিয়ে নতুন কলমটা রেখে দিন। আশা করি আপনার বাবা রাগ করবেন না। এ ছাড়া নামাজপড়ার জায়গায় বিছিয়ে রাখুন নতুন জায়নামাজ। দিনের শুরুতে নামাজ পড়তে গিয়ে নতুন জায়নামাজ পেয়ে সম্ভবত অন্যরকম এক ভালোলাগা নিয়েই নামাজ পড়বেন তিনি। আপনার বাবার পড়ার টেবিলে রেখে দিন কিনে আনা দুর্লভ বইগুলো। সঙ্গে দিন ছোট্ট একটা চিরকুট। লিখুন, ‘বাবা দিবসের শুভেচ্ছা। বাবা তোমাকে অনেক ভালোবাসি।’  

এ জাতীয় আরও খবর

দুদকের মামলা স্থগিতে বদির আবেদন খারিজ

সকালে তীব্র, দুপুরে সহনীয় যানজট

অর্থ আত্মসাৎ: নর্থ সাউথের চার ট্রাস্টিকে গ্রেফতারের নির্দেশ

‘মুজিব’ সিনেমার ট্রেলার দেখে সবাই কেন হতাশ তার কারণ পাচ্ছেনা পরিচালক

হয়রানির শিকার বলিউড অভিনেত্রী দিয়া মির্জা

অ্যান্থনি নরম্যান আলবানিজকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন

উত্তরায় নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

আজ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু

কাশিমপুর কারাগারে নারী হাজতির মৃত্যু

সিঙ্গাপুরের হেড কোচ হলেন সালমান বাট

ধানুশের আসল বাবা-মা নাকি তারাই! মানতে নারাজ অভিনেতা

পাকিস্তানি নারীর ‘প্রেমের ফাঁদে’ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচার, ভারতীয় সেনা গ্রেপ্তার