শনিবার, ২১শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শহরের প্রাণকেন্দ্রে প্রধান সড়কের বেহাল দশা : দূর্ভোগে যাতায়ত করছে মানুষ

news-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের প্রাণকেন্দ্রে প্রধান সড়কে বেহাল দশায় যাতায়াতে চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে মানুষ। সাচ্ছন্দ্যে যাতায়তের জন্য সড়কের বিভিন্ন অংশের খানা খন্দক গর্ত ভাঙ্গন সংস্কারের জন্য দীর্ঘদিন ধরে দাবী থাকলেও তা আমলে নিচ্ছে না সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এ নিয়ে জনমনে তীব্র ক্ষোভের সৃস্টি হয়েছে। প্রধান সড়ক টি এ রোডের তোয়ায়েল আজম মনুমেন্ট থেকে কুমারশীল মোড় পর্যন্ত এলাকা খুবই নাজুক। সামান্য বৃস্টি হলেই কাদাপানিতে সড়ক চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। ব্রীজ ফারুকী বাজার থেকে স্টেশন পর্যন্ত সড়কে সৃস্টি হয় জলাবদ্ধতা। এ সড়কের পৌর মার্কেটের সামনে থেকে হাসাপাতাল রোড কুমারশীল মোড় এলাকা পর্যন্ত সড়কের দুপাশে ফুটপাত পাওয়া যায়না শুধু কাদা ছাড়া।স্থানে স্থানে রয়েছে ভাঙ্গন আর গর্ত।  শহরের প্রাণকেন্দ্র এ এলাকা ,এস্থান দিয়ে যাতায়ত করে কয়েকটি স্কুলের শিশু শিক্ষার্থী সহ বিভিন্ন বয়সী মানুষ। প্রধান ডাকঘর , ব্যাংক, মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স , প্রেস ক্লাব ও রেডক্রিসেন্ট  ভবন , রেজিষ্ট্রি অফিস হাসপাতাল কয়েকটি ক্লিনিক এ সড়কের পাশে। শহরে প্রবেশের কয়েকটি ফাঁড়ি সড়কের সংযোগও এ এলাকায়। নিউমার্কেট আনন্দবাজার জগঃবাজার টানবাজার কোর্টরোড সহ ব্যবসায়ী এলাকার প্রবেশ দ্বার হওয়া সত্বেও এ সড়কটির ব্যাপারে কতৃপক্ষ উদাসীন। সড়কটি সংস্কারের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্যেরও নির্দেশ রয়েছে । তবুও দূর্ভোগ লাঘবে রহস্যজনক কারণেই কতৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। শুক্রবার বৃস্টির সময় দেখা গেছে চরম দূর্ভোগ নিয়ে কাদা পানি ভাঙ্গন মাড়িয়ে পথ চলছে শহরবাসী।
প্রধান সড়কের বেহাল দশা অনেক দিন যাবৎ। শহরে ভিভিআইপি কারো আগমণ হলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ নড়েচড়ে উঠে পাথর নুঢ়ি ফেলে সড়কের উপরিভাগে কিছু প্রলেপ দিয়ে শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেস্টা করেন তারা। নাম মাত্র লোক দেখানো সংস্কার কাজ করা হয় । কিন্তু স্থায়ী সংস্কার না হওয়ায় শহরবাসীকে দূর্ভোগ যন্ত্রণা সইতে হচ্ছে। ভুক্তভোগীরা জানান শহরের মূল সৌন্দর্য হচ্ছে প্রধান সড়ক এই সড়কের যে দশা তাতে বাইরের কেউ এখানে আসলে শহরের সৌন্দর্য ভাবমূর্তি আর কতৃপক্ষের ভ’মিকা  নিয়ে প্রশ্ন উঠে।
শুক্রবার বৃস্টির মাঝে সরেজমিনে শহরের বিভিন্ন সড়ক পরিদর্শন করেন পৌর মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন। তিনি জানান, শাহরের বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক সংস্কার মেরামত, কালভার্ট ড্রেন সংস্কার নির্মাণে কাজ চলছে। তিনি জানান বৃস্টির সময় কোথাও যেন জলাবদ্ধতা সৃস্টি না হয় সে জন্য অতিরিক্ত লোক দিয়ে কাজ করানো হচ্ছে। তিনি বিভিন্ন কাজ পরিদর্শন করেন। কয়েকটি স্থানে কাজে বিলম্ব ও গাফিলতির জন্য ঠিকাদার সহ সংশ্লিস্টদের উপর তিনি নাখোশও হন । প্রধান সড়কের ব্যাপারে তিনি বলেন, এটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতাধীন। সড়কটি সংস্কারের ব্যাপারে বারবারই বলা হচ্ছে কিন্তু কতৃপক্ষ এ ব্যাপারে যথাযথ ভ’মিকা রাখছেন না। তিনি আরও বলেন পৌর এলাকায় সাচ্ছন্দ্যে যাতায়তের জন্য আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করছি।

 

এ জাতীয় আরও খবর